১৮ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৭ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

বাংলাদেশকে তাহিরের সমীহ


বাংলাদেশকে তাহিরের সমীহ

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ টেস্ট সিরিজে দক্ষিণ আফ্রিকার পেস এ্যাটাকের বিরুদ্ধে একেবারে ধসে পড়ে বাংলাদেশ দল। দুই টেস্টে একেবারেই দুর্দশাগ্রস্ত হয় সফরকারীরা। লজ্জাজনক পরাজয়ের মাধ্যমে হোয়াইটওয়াশ হয় সিরিজে। বিশেষ করে ব্যাটিং ব্যর্থতাই ডুবিয়েছে সফরকারীদের। কিন্তু ওয়ানডে ক্রিকেটে অনেক শক্তিধর বাংলাদেশ। তাছাড়া বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান খেলবেন এবং এবার নেতৃত্বে থাকবেন অনুপ্রেরণার নাম মাশরাফি বিন মর্তুজা। গত তিন বছরে ওয়ানডে ক্রিকেটে ধারাবাহিকভাবে সাফল্য পেয়েছে তারা। এ কারণে ঘরের মাটিতে প্রতিপক্ষকে পেলেও ৩ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে কঠিন প্রতিদ্বন্দ্বিতা আশা করছেন প্রোটিয়ারা। লেগস্পিনার ইমরান তাহির মনে করছেন ওয়ানডে সিরিজে চ্যালেঞ্জের মুখে পড়বে দক্ষিণ আফ্রিকা।

টেস্ট সিরিজে প্রতিদ্বন্দ্বিতা আশা করেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। কারণ সম্প্রতি টেস্ট ক্রিকেটেও দারুণ এগিয়েছে বাংলাদেশ আর এবার দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে যাওয়ার আগেই ঘরের মাটিতে অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে দেয়। উজ্জীবিত দলটি প্রোটিয়া ভূমিতে এবার দারুণ কিছু করবে এমনটাই ধরে নিয়েছিল সবাই। কিন্তু বাস্তবে সেটা হয়নি। একেবারেই অসহায় আত্মসমর্পণ করে সবার চিন্তাকে ভুল প্রমাণ করেছে বাংলাদেশ দল। এবার ক্ষুদ্র ফরমেটের লড়াই। টেস্ট সিরিজে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব খেলেননি বলে শক্তিমত্তায় কিছুটা ঘাটতি ছিল। তবে এবার ওয়ানডে সিরিজে তিনি ফিরেছেন। প্রস্তুতি ম্যাচে দারুণ এক অর্ধশতকও হাঁকিয়েছেন আর গত ৩ বছরে বাংলাদেশ দল ওয়ানডে ক্রিকেটে অন্যতম শক্তি হিসেবে নিজেদের প্রমাণ করেছে। আইসিসি ওয়ানডে র‌্যাঙ্কিংয়ে বর্তমানে ৭ নম্বরে অবস্থান করছে বাংলাদেশ দল। বিশেষ করে গত জুনে আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে ৫ উইকেটের অবিশ্বাস্য জয়টাকে বাংলাদেশ দলকে অন্যরকম এক অবস্থানে নিয়ে গেছে। টাইগাররা সেমিফাইনালেও খেলে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া ও বিশ্বকাপ রানার্সআপ নিউজিল্যান্ডকে পেছনে ফেলে। এ কারণেই ওয়ানডে সিরিজে কঠিন লড়াইয়ের ইঙ্গিতই পাওয়া যাচ্ছে। এ বিষয়ে তাহির বলেন, ‘তারা কতটা শক্তিধর সেটা চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে প্রমাণ করেছে সেমিফাইনাল খেলে। যদি মানুষ মনে করে তাদের হারিয়ে দেয়া সহজ তাহলে আমি এর বিরুদ্ধে থাকব। কারণ তাদের মতো দলকে সহজে হারানো সম্ভব নয়। আমরা অন্যান্য যে কোন আন্তর্জাতিক ম্যাচের জন্য যেভাবে প্রস্তুত হই এখন সেটাই হচ্ছি।’

নতুন মৌসুমে এটাই প্রথম ঘরের মাটিতে খেলবে দক্ষিণ আফ্রিকা। এ কারণে তারাও প্রস্তুত হচ্ছে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ভাল নৈপুণ্য দেখাতে। এ বিষয়ে তাহির বলেন, ‘গত ২/৩ বছর আমরা যে ধরনের ক্রিকেট খেলেছি সেটাই ধরে রাখার চেষ্টা করব। আমার কোন সন্দেহ নেই যে, যে কোন দলকে আমরা হারিয়ে দিতে পারি। এটাই চলতি মৌসুমে দেশের মাটিতে আমাদের প্রথম সিরিজ। তাই আমরা এটার জন্য ভালভাবেই প্রস্তুত হচ্ছি। আমরা জিততে চাই সেজন্য নিশ্চিত করছি সব দিক যেন আমরা ভাল করতে পারি।’ তাহির মনে করেন, যে কোন দলকে হারিয়ে দেয়ার জন্য শুধু মাঠে নামলেই হয় না। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে কোন দলকেই সহজ করে দেখলে উল্টো বিপদ ঘটতে পারে বলে দাবি তার। ৩৮ বছর বয়সী তাহির আগামী বিশ্বকাপের প্রস্তুতি শুরুর সিরিজ হিসেবেও দেখছেন এটিকে। ওটিস গিবসন প্রধান কোচ হিসেবে দায়িত্বও শুরু করবেন এ সিরিজ দিয়ে। এ বিষয়ে তাহির বলেন, ‘আমরা যদি ২০১৯ বিশ্বকাপকে মাথায় রেখে এগোতে চাই এখন থেকেই ভাল ক্রিকেট খেলতে হবে নিয়মিত। সব ম্যাচই জিততে হবে এমন নয়, কিন্তু নিজেদের সেরা ক্রিকেট খেলতে হবে কঠোর পরিশ্রম করে। এই সিরিজ দিয়ে বিশ্বকাপের সেই প্রস্তুতিটা শুরু হচ্ছে।’

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: