১৯ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

কক্সবাজারে বিশ্বের সবচেয়ে লম্বা মানুষটি অসুস্থ-


কক্সবাজারে বিশ্বের সবচেয়ে লম্বা মানুষটি অসুস্থ-

স্টাফ রিপোর্টার, কক্সবাজার ॥ বিশ্বের সবচেয়ে লম্বা জীবিত মানুষটির বাড়ি কক্সবাজারের রামু গর্জনিয়ায়। বয়স মাত্র ১৯। নাম জিন্নাত আলী। বর্তমান উচ্চতা ৮ ফুট ৬ ইঞ্চি। কৃষক আমির হামজার ঘরে জন্ম বিশ্বের সবচেয়ে লম্বা জীবিত মানুষটি এখন অসুস্থ। মাথায় টিউমার, ডান পায়ে ঘা হয়ে পচন ধরেছে। এক পা আরেক পায়ের চেয়ে দুই ইঞ্চি খাটো হয়ে যাচ্ছে। অর্থের অভাবে চিকিৎসা করা সম্ভব হচ্ছে না। তাদের পরিবারে ভিটামাটি ছাড়া আর কোন অর্থসম্পদও নেই। কৃষক পিতা আমির হামজা জানান, ছেলে লম্বা হওয়ার কারণে এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় নিয়ে যাওয়া মুশকিল হয়ে দাঁড়িয়েছে। রিক্সা, সিএনজি, মাইক্রো, জীপ গাড়িতে বসানো যায় না। আমার পক্ষে তার শরীরের দুরবস্থা নিয়ে চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন করা সম্ভব হচ্ছে না। তারপরও চিকিৎসার জন্য গত বছর স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ঢাকা নিয়ে যাবার পরামর্শ দেন। কষ্ট করে খেয়ে না খেয়ে ছেলের জীবন রক্ষার্থে কিছু টাকা জোগাড় করে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। কিন্তু বিধিবাম! হাতে করে নিয়ে যাওয়া টাকায় কিছুই করা সম্ভব হয়নি। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজে নেয়ার পর ব্যয়বহুল চিকিৎসার কথা শুনে চমকে উঠি। আমি গরিব, এত টাকা পাই কোথায়? টাকার অভাবে চিকিৎসা করাতে না পেরে ফেরত নিয়ে আসি বাড়িতে। তখন থেকে ছেলেটির বয়স বাড়ার সঙ্গে আরও লম্বা হতে থাকে। লম্বা ছেলেটির খাবারও দিতে হয় প্রচুর। বর্তমানে তার শারীরিক অবস্থা দিন দিন অবনতির দিকে যাচ্ছে। চিকিৎসা সেবা না পেয়ে ঘরে বসে কাঁদছে জিন্নাত আলী।

গর্ভধারিণী মা শাহপুরি বেগম জানান, আল্লার হুকুমেই ছেলেটি এত লম্বা। বিভিন্ন রোগ-ব্যাধিতে আক্রান্ত হওয়ায় বর্তমানে তেমন একটা নড়াচড়া করতে পারে না। এমনকি কোন কাজও করতে পারছে না। তিনি বলেন, কত দানবীর ব্যক্তি মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের সাহায্যার্থে এগিয়ে আসছেন। বিশ্বের রেকর্ড সৃষ্টিকারী লম্বা এ ছেলেটির চিকিৎসার জন্য সরকারপ্রধান শেখ হাসিনা ও দেশের দানশীল ব্যক্তিদের নিকট আবেদন করছি।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: