২৫ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৫ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

মাদারীপুরে পদ্মায় জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে অভিযানে আটক ৮


মাদারীপুরে পদ্মায় জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে অভিযানে আটক ৮

নিজস্ব সংবাদদাতা, মাদারীপুর ॥ সরকারের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে পদ্মায় ইলিশ নিধন চলছেই। ইলিশ রক্ষায় জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে প্রতিনিয়তই মাদারীপুর জেলার শিবচরের পদ্মায় অভিযান পরিচালনা করছে প্রশাসন। এ পর্যন্ত ৪২ জেলেকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ড প্রদান করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। ধ্বংস করা হয়েছে বিপুল পরিমান জাল। জব্দ করা হয়েছে প্রচুর পরিমান ইলিশ মাছ। তবুও থামছে না মা ইলিশ শিকার। প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে এক শ্রেণির অসাধু জেলে প্রতিরাতে পদ্মা নদীতে ইলিশ শিকার করেই চলেছে। মঙ্গলবার বিকেলে ইলিশ শিকার করা অবস্থায় ৮ জেলেকে জেলা প্রশাসক নিজে হাতে-নাতে আটক করেন।

সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে, ইলিশের ডিম ছাড়ার মৌসুম হওয়ায় ১ অক্টোবর থেকে ২২ অক্টোবর পর্যন্ত ইলিশ মাছ নিধনে সরকারের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। এই নিষেধ অমান্য করে পদ্মায় ইলিশ শিকার করছে অসাধু জেলেরা। মাদারীপুর জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুল ইসলামের নেতৃত্বে প্রতিনিয়ত পদ্মা নদীর শিবচর অংশের ১২ কিলোমিটার এলাকায় অভিযান পরিচালিত হচ্ছে। মঙ্গলবার বিকেল থেকে রাত পর্যন্ত জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে পদ্মায় অভিযান চালায় ভ্রাম্যমান আদালত। এসময় ইলিশ শিকার করা অবস্থায় হাতে-নাতে আরো ৮ জেলেকে আটক করে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ড প্রদান করা হয়।

জব্দ করা হয় প্রায় এক‘শ কেজি ইলিশ মাছ ও প্রায় ৩ হাজার মিটার জাল আগুনে পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয়। ১ অক্টোবর থেকে বুধবার (১১ অক্টোবর) পর্যন্ত ১০দিনে ৪২ জেলেকে কারাদন্ড, ৩ লক্ষাধিক মিটার জাল ধ্বংস ও প্রায় চার‘শ কেজি ইলিশ মাছ জব্দ করা হয়েছে। তবুও থেমে নেই বেপরোয়া জেলেরা।

মাদারীপুর জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুল ইসলাম বলেন, ‘ইলিশ মাছ রক্ষায় পদ্মা, আড়িয়াল খাঁ নদী ও বিভিন্ন বাজারে প্রতিনিয়ত আমাদের অভিযান চলছে। জেলেদের আটক করে সাজা দেওয়া হচ্ছে। প্রতি বছরের মতো এ বছরও জেলেদের মধ্যে ভিজিএফ বিতরণ করা হবে। ইতোমধ্যে আমরা ভিজিএফ এর চাহিদা কর্তৃপক্ষের নিকট প্রেরণ করেছি। ভিজিএফ পেলেই জেলেদের মাঝে বিতরণ করা হবে।’

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: