২৩ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

মাদারীপুরে যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে হত্যা


মাদারীপুরে যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে হত্যা

নিজস্ব সংবাদদাতা, মাদারীপুর ॥ মাদারীপুর সদর উপজেলার পেয়ারপুর ইউনিয়নের বলাইকান্দি গ্রমের মান্নান খানের মেয়ে সোনিয়া আক্তার (২৫)কে মঙ্গলবার মধ্যরাতে যৌতুক না দেয়ার কারণে গলায় ফাঁস লাগিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে স্বামী রাজমিস্ত্রী শাহিন মীরের বিরুদ্ধে।

অভিযোগে জানা গেছে, দেড় বছর আগে একই ইউনিয়নের পাতিলাদি গ্রামের রাজ্জাক মীরের ছেলে শাহিনের সাথে সোনিয়া আক্তারের সম্পর্ক হলে তারা দু’জন পালিয়ে বিয়ে করে। তাদের ঘরে দুই মাসের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। বিয়ের পর থেকেই বিভিন্ন সময় সোনিয়ার পরিবারের কাছে যৌতুক দাবি করে আসছিল শশুড় বাড়ির লোকজন।

সোনিয়ার ভাই মোঃ মিশর খান বলেন, ‘বুধবার সকালে সোনিয়ার শশুড় বাড়ীর পাশে লোকজন আমাদের খবর দিলে আমরা সেখানে গিয়ে দেখি বোনের লাশ। পরে সদর হাসপাতালে নিয়ে আসি বেঁচে আছে কিনা তা জানার জন্য। কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করে। আমার বোনকে জোরপূর্বক বিয়ে করার পর আমরা মেনে নেইনি। বোন স্বামীর বাড়িতেই থাকতো। বিভিন্ন সময় ফোনে সোনিয়া আমাদের বলতো যৌতুকের টাকার জন্য মারপিট করা কথা। আমরা যৌতুকের টাকা না দেয়ায় আমরা বোনকে গলায় ফাঁস দিয়ে শ্বাসসরোধ করে হত্যা করেছে শাহিন। আমি আমার বোনের হত্যাকারীর দৃষ্টান্তমূলক বিচার চাই।’

মাদারীপুর সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. শশাংক চন্দ্র বলেন, ‘সোনিয়া আক্তার নামের এক গৃহবধুর লাশ হাসপাতালে আছে। আমরা পোস্টমডেম করবো। পোস্টমডেম করার পর বুঝা যাবে হত্যা না আত্মহত্যা।’

মাদারীপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. কামরুল হাসান বলেন, ‘একজন মহিলার লাশ তার পরিবারের লোকজন সদর হাসপাতালে নিয়ে এসেছে শুনে আমি সেখানে গিয়ে লাশের সুরতহাল সংগ্রহ করি। লাশের গলায় দাগ পাওয়া গেছে। এটা হত্যা না আত্মহত্যা তা ডাক্তারের ময়না তদন্ত রিপোর্টের পরেই নিশ্চিত হওয়া যাবে। যদি হত্যা হয় তা হলে হত্যা মামলা নিব এবং দোষীদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: