২৪ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

রাজধানীর এক ক্লিনিকে নার্সের রহস্যজনক মৃত্যু


স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীর কলাবাগানে বেসরকারী ক্লিনিকের এক সেবিকার রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। ক্যান্টনমেন্ট এলাকায় বাসচাপায় এক পথচারী নিহত হয়েছেন। এদিকে রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে লুণ্ঠিত প্রায় সোয়া ছয় লাখ টাকাসহ ডাকাতদলের সাত সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

সোমবার সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানায়, রাজধানীর গ্রীন রোডের একটি বেসরকারী হাসপাতালে কামরুন্নাহার (৩০) নামে এক সেবিকার রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে পুলিশ কলাবাগান থানাধীন গ্রীন রোডের ধানমন্ডি ক্লিনিক থেকে তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। কলাবাগান থানার ওসি (তদন্ত) সমীর চন্দ্র সূত্রধর জানান, কামরুন্নাহার গ্রীন রোডের ধানম-ি ক্লিনিকের সেবিকা ছিলেন। তিনি জানান, বিকেলে হাসপাতালের বাথরুমের পাশে তার লাশ পড়ে ছিল। এ সময় তার হাতে ইনজেকশনের সিরিঞ্জ পাওয়া যায়। এ ছাড়া হাতে একটি ছিদ্রও আছে। তার মৃত্যুর ঘটনায় যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে। তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলে আসল ঘটনা জানা যাবে।

সড়ক দুর্ঘটনায় পথচারীর মৃত্যু

রাজধানীর ক্যান্টনমেন্ট এলাকায় বাসচাপায় হারুন অর রশিদ রনি (৩৫) নামে এক পথচারীর মৃত্যু হয়েছে। নিহত রনি একটি বেসরকারী ক্যাটারিং ফার্মে চাকরি করতেন। নিহতের বাবার নাম সিরাজ উদ্দিন। গ্রামের বাড়ি গাজীপুর জেলার কোনাবাড়ীতে। উত্তর ভাষানটেকে একটি বাড়িতে ভাড়া থাকতেন তিনি।

সাত ডাকাত গ্রেফতার

রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে ডাকাতদলের সাত সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছে আক্তার হোসেন বাবু, আওলাদ হোসেন, মোঃ ওয়াসিম, মোঃ সাইফুর রহমান সোহাগ, মোঃ বাদল হোসেন জহির, মোঃ ইসমাইল প্রধান বাবু ও মোঃ আনিস। এ সময় তাদের কাছ থেকে ৬ লাখ ১৯ হাজার ৫০০ টাকা, চারটি ছোরা, তিনটি মোটরসাইকেল ও সাতটি ককটেল উদ্ধার করা হয়। পুলিশ জানায়, গত সপ্তাহে লুটে নেয়া টাকাসহ এক ডাকাতদলের সাত সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার দুপুরে ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে ওয়ারী বিভাগের পুলিশের উপকমিশনার মোঃ ফরিদ উদ্দিন এ কথা জানান।

সংবাদ সম্মেলনে ডিসি ফরিদ উদ্দিন জানান, এরা ডাকাতদের একটি চক্র। তাদের সদস্য সংখ্যা ১২ জন। তিনি জানান, মতিঝিল এলাকা থেকে কেউ মোটা অঙ্কের টাকা উঠালে সেই ব্যক্তিকে অনুসরণ করে সুবিধামতো স্থানে আটকিয়ে টাকা-পয়সা নিয়ে যায়। জিজ্ঞাসাবাদে তারা এ ধরনের কথা স্বীকার করেছে।

ঢাকা মহানগর পুলিশের জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ কমিশনার ইফতেখারুল ইসলাম জানান, রবিবার গভীর রাতে যাত্রাবাড়ী এলাকার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ওই সাত ডাকাতকে গ্রেফতার করা হয়। তিনি জানান, গত ১৮ সেপ্টেম্বর যাত্রাবাড়ী এলাকায় ওই ডাকাতির ঘটনা ঘটে। ডাকাতদল সেদিন নয় লাখ টাকা লুট করে নিয়ে যায়। ওই ডাকাতদল যাত্রাবাড়ী এলাকার কনকর্ড টাওয়ারে অবস্থান করছে বলে রবিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে খবর পায় পুলিশ। এরপর সেখানে অভিযান চালিয়ে ডাকাতদলের দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়। পরে তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে বাকি পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় গ্রেফতারকৃতদের কাছ থেকে ৬ লাখ ১৯ হাজার ৫০০ টাকা এবং চারটি ছোরা, তিনটি মোটরসাইকেল ও সাতটি ককটেল উদ্ধার করা হয়। এসি ইফতেখারুল ইসলাম জানান, গ্রেফতারের সময় ডাকাতরা পুলিশকে লক্ষ্য করে হাতবোমা ছোড়ে। এতে এক পুলিশ সদস্য আহত হন।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: