১৯ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৩ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

অখ্যাত পোর্টালে প্রধানমন্ত্রীকে হত্যাচেষ্টার খবর ‌॥ উদ্দেশ্যমূলক


বিশেষ প্রতিনিধি ॥ প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাকে গত ২৪ আগস্ট হত্যার চেষ্টা করা হয়েছিল মর্মে একটি বিদেশী অনলাইন নিউজ পোর্টালে প্রকাশিত সংবাদকে ভিত্তিহীন, বিভ্রান্তিমূলক ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে জানিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়।

রবিবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়। এতে আরও বলা হয়, প্রধানমন্ত্রীর ওপর তথাকথিত ব্যর্থ হামলার সঙ্গে একটি বিশেষ বাহিনীর কতিপয় সদস্যকে সংশ্লিষ্ট করে বাংলাদেশের কয়েকটি টিভি চ্যানেলে খবর প্রচারসহ আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়, যা কাম্য নয়। এই ধরনের বিভ্রান্তিকর সংবাদ প্রচারের ক্ষেত্রে সবাইকে সতর্ক থাকতেও বলা হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে।

জাতিসংঘের ৭২তম সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছেন। তার প্রেস সচিব ইহসানুল করিমের পক্ষে উপ প্রেস সচিব আশরাফুল আলম খোকন রবিবারের ওই সংবাদ বিজ্ঞপ্তি গণমাধ্যমে পাঠিয়েছেন।

শুধু প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ই নয়, আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতা ও মন্ত্রীরাও এ ধরনের হামলা সংক্রান্ত খবরের সত্যতা নাকচ করে দিয়েছেন। রবিবার সচিবালয়ে আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে সাংবাদিকরা এই খবরের সত্যতা জানতে চাইলে কমিটির সভাপতি ও শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেন, ‘এমন ষড়যন্ত্রের খবর সত্য নয়। এটি ভিত্তিহীন। এর কোন সত্যতা আছে বলে আমাদের কাছে প্রতীয়মান হয়নি। তাই এ বিষয়ে আইনশৃঙ্খলাবিষয়ক কমিটির সভায় কোন আলোচনা হয়নি।’ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, গত ২৩ সেপ্টেম্বর একটি বিদেশী

টিভি চ্যানেল ও একটি আন্তর্জাতিক অনলাইন পত্রিকার সূত্র ব্যবহার করে বাংলাদেশের কয়েকটি সংবাদ মাধ্যম প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওপর গত ২৪ আগস্ট প্রাণনাশী হামলার ব্যর্থ প্রচেষ্টার খবর প্রকাশ করে। প্রধানমন্ত্রীর ওপর তথাকথিত ব্যর্থ হামলার সঙ্গে একটি বিশেষ বাহিনীর কতিপয় সদস্যকে সংশ্লিষ্ট করে বাংলাদেশের কয়েকটি টিভি চ্যানেলে খবর প্রচারসহ আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সবার অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে, প্রধানমন্ত্রীর ওপর ২৪ আগস্ট হামলার খবরটি সম্পূর্ণভাবে ভিত্তিহীন, বিভ্রান্তিমূলক এবং উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, দেশের নিরাপত্তার সার্বিক স্বার্থ পরিপন্থী এরূপ বিভ্রান্তিমূলক সংবাদ প্রচার করা কোন দায়িত্বশীল ব্যক্তি ও সচেতন গণমাধ্যমের পক্ষ থেকে মোটেও কাম্য নয়। এরূপ ভিত্তিহীন এবং বিভ্রান্তিমূলক সংবাদ প্রকাশের আগে সংশ্লিষ্ট সবাইকে সতর্কতা অবলম্বন এবং বিচার বিবেচনাপ্রসূত মিডিয়া কার্যক্রম পরিচালনার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো।

উল্লেখ্য, গত ২৩ সেপ্টেম্বর সুবির ভৌমিক নামের ত্রিপুরার এক সাংবাদিকের লেখা একটি অখ্যাত অনলাইন পোর্টালে প্রকাশিত হয়। ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, গত ২৪ আগস্ট প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের বাইরে ধারাবাহিক বোমার বিস্ফোরণ ঘটিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার চক্রান্ত করেছিল জেএমবি জঙ্গীরা। বাংলাদেশ ও ভারতের জঙ্গীবিরোধী গোয়েন্দারা এই ষড়যন্ত্র বানচাল করে দেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত ২৪ আগস্ট প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার কার্যালয়ে এক অনুষ্ঠানে সিলেটে জঙ্গীবিরোধী অভিযানে নিহত কর্মকর্তাদের স্বজনদের হাতে আর্থিক অনুদানের চেক তুলে দেন। সেখানে বিদ্যুত বিভাগের কর্মকর্তাদের সঙ্গে একটি অনুষ্ঠানেও উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী। একই দিন রাজধানীর গুলশানে প্রয়াত রাষ্ট্রপতি মোঃ জিল্লুর রহমানের বাড়িতে গ্রেনেড হামলায় নিহত বেগম আইভি রহমানের মৃত্যুবার্ষিকীর মিলাদেও যোগ দিয়েছিলেন। ওই দিন শেখ হাসিনাকে হত্যার ব্যর্থ চেষ্টার খবর গত ২৩ সেপ্টেম্বর ওই বিদেশী অখ্যাত অনলাইনটিতে প্রকাশের পর এ নিয়ে নানা মহলে নানা আলোচনা শুরু হয়। এ নিয়ে সৃষ্ট সকল বিভ্রান্তি দূর করতেই রবিবার বাংলাদেশ সরকারের আনুষ্ঠানিক ভাষ্য প্রদান করা হয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: