২৩ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

সোয়া ৪ লাখ রোহিঙ্গাদেরকে মানবিক সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ ॥ মায়া


সোয়া ৪ লাখ রোহিঙ্গাদেরকে মানবিক সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ ॥  মায়া

অনলাইন রিপোর্টার ॥ গত ২৫ দিনে মিয়ানমার থেকে সোয়া চার লাখ রোহিঙ্গা নারী-পুরুষ-শিশু বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে বলে জানিয়েছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়। এই বিপুলসংখ্যক মানুষকে আন্তর্জাতিক সাহায্যে মানবিক সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ।

সম্পূর্ণ মানবিক কারণে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে এলেও শিগগিরিই মিয়ানমার তার নাগরিকদের ফেরত নেবে এটাই প্রত্যাশা বাংলাদেশের। রোহিঙ্গা পরিস্থিতি নিয়ে বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হেসেন চৌধুরী মায়া।

তিনি বলেন, গত ২৫ আগস্ট থেকে ২০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত অনিবন্ধিত মিয়ানমারের রোহিঙ্গার সংখ্যা চার লাখ ২৪ হাজার। তারা প্রতিনিয়ত স্থান পরিবর্তন এবং বিচ্ছিন্নভাবে বিভিন্ন জায়গায় অবস্থান করায় প্রকৃত সংখ্যা কম-বেশি হতে পারে। এ পর্যন্ত বায়োমেট্রিক নিবন্ধনের সংখ্যা পাঁচ হাজার ৫৭৫ জন। মিয়ানমারের অভ্যন্তরীণ সংঘাতময় পরিস্থিতির কারণে বিগত কয়েক বছর ধরে রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, এসব নাগরিক দেশের অভ্যন্তরে সম্পূর্ণ অবৈধভাবে মানবেতর জীবন-যাপন করছে।

২৫ আগস্টের পর নতুন করে বিপুল সংখ্যক রোহিঙ্গা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নদী ও সাগর পেরিয়ে বাংলাদেশে এসেছে। নারী-শিশু ও অসহায় অনুপ্রবেশকারীদের করুণ চিত্র বিশ্ববাসীর নজরে এসেছে, বাংলাদেশ ও বিশ্ববাসী এ নিয়ে বিশেষ উদ্বিগ্ন। অসহায় এসব মানুষের দুঃখ-দুর্দশা মানবিক সংকট তৈরি করেছে।

রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমারসহ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করে মন্ত্রী বলেন, সম্পূর্ণ মানবিক কারণে আমরা মিয়ানমারের রোহিঙ্গা নাগরিকদের আশ্রয় দিয়েছি। অতি দ্রুত মিয়ানমার তার নাগরিকদের ফেরত নেবে এইটাই আমাদের প্রত্যাশা। রোহিঙ্গা সমস্যার সুষ্ঠু সমাধানের জন্য কূটনৈতিক পর্যায়ে সকল ধরনের যোগাযোগ অব্যাহত রেখেছি। আমার বিশ্বাস বিশ্ববাসী একমত হবেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোহিঙ্গা ইস্যুতে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার জন্য ওআইসিভুক্ত দেশসমূহকে আহ্বান জানিয়েছেন উল্লেখ করে মায়া বলেন, তাদের ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমারের ওপর চাপ সৃষ্টি করতে সকল দেশের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। ইতোমধ্যে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, তুরস্ক, আজারবাইজান, ইরান, ইন্দোনেশিয়া, ভারত, মালয়েশয়া, মালদ্বীপসহ বিভিন্ন দেশ তাতে সমর্থন দিয়েছে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: