২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৩ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

বাঁশখালীতে পরিবহন শ্রমিক নৈরাজ্য


বাঁশখালীতে পরিবহন শ্রমিক নৈরাজ্য

নিজস্ব সংবাদদাতা, বাঁশখালী ॥ পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই এক নেতাকে খুশি করতে পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের ব্যানারে অবরোধের নাম দিয়ে পুরো সড়ক জুড়ে নৈরাজ্য সৃষ্টি করেছে সিএনজি আটো-টেক্সি শ্রমিক ও কথিত নেতার দলীয় লোকজন। এতে সাধারণ জনগণ চরম ভোগান্তিতে ছিলো দিনভর। শ্রমিকদের হাত থেকে রক্ষা পায়নি রোগী ও লাশবাহী এ্যম্বুলেন্স। যান চলাচল ছিল অস্বাভাবিক। ভোগান্তিতে পড়ছে যাত্রী সাধারণ। (বুধবার ২০সেপ্টেম্বর) চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলায় সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬ পর্যন্ত ১২ঘন্টার পরিবহন ধর্মঘটেরর ডাক দিয়েছিলো স্থানীয় শ্রমিক ইউনিয়ন। তবে, দুপুর ৩টার দিকে পুলিশি বাধায় পন্ড হয়ে যায় তাদের ডাকা ধর্মঘট। পরিবহন ধর্মঘট চালাকালীন সময়ে বড় ধরণের সংঘর্ষের ঘটনা না ঘটলেও শ্রমিকদের হাতে লাঞ্চিত হয়েছেন অনেকেই।

এ ঘটনায় বাঁশখালী থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আলমগীর হোসেন জানিয়েছেন, শ্রমিকেরা তাদের ধর্মঘট প্রত্যাহার করেছে। বর্তমানে যান চলাচল স্বাভাবিক।উপজেলার পুরো প্রধান সড়ক জুড়ে নিরাপত্তায় অতিরিক্ত পুলিশ সদস্যরা রয়েছে বলেও তিনি জানান। তাছাড়া পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে চট্টগ্রাম ডিভিশনের ডিবি পুলিশ সদস্যরাও যোগ দেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, চট্টগ্রামের আনোয়ারা-বাঁশখালী সীমান্তের উপর বহমান শঙ্খ নদী। সেই নদীর উপর নির্মিত শঙ্খসেতুর টোল আদায় জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক মেয়র মাহামুদুল ইসলাম চৌধুরীর হস্তক্ষেপে আদালতের আদেশে বন্ধ হয়ে যায়। সেতুর টোল আদায় বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর মাহামুদুল ইসলাম চৌধুরীকে গণসংবর্ধনা দেয়ার আয়োজন করেছিল স্থানীয় পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন। তবে, তাতে বাধা হয়ে দাড়ায় স্থানীয় সাংসদ মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরীর অনুসারীরা। উভয় নেতার অনুসারীদের মধ্যে দ্বন্দ্ব চরম আকার ধারণ করলে মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী প্রেস কনফারেন্সেরর মাধ্যমে পূর্বঘোষিত সংবর্ধণা অনুষ্টান স্তগিত ঘোষণা করেন। তবে মঙ্গলবার বিকেলে প্রচারপত্র বিলির মাধ্যমে পরিবহন ধর্মঘটের ডাক দেন স্থানীয় শ্রমিক ইউনিয়ন। বুধবার সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত মাহামুদুল ইসলামের অনুসারী ও শ্রমিকেরা ব্যাপক নৈরাজ্য সৃষ্টি করে। এসময় শ্রমিকদের হাতে লাঞ্চিত হয় সাধারাণ মানুষ। বন্ধ হয়ে যায় চট্টগ্রাম-কক্সবাজারের বিকল্প রুট বাঁশখালীর প্রধান সড়কের যান চলাচল। ভোগান্তিতে পড়েন হাজারো যাত্রী। শ্রমিকদের নিয়ন্ত্রণে ছিল পুরো সড়ক।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: