১৭ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

নজর থাকছে পেসারদের দিকেই


নজর থাকছে পেসারদের দিকেই

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ খেলা উপমহাদেশের মাটিতে নয়। খেলা দক্ষিণ আফ্রিকায়। যেখানে স্পিনারদের চেয়ে অনেক বেশি উইকেট থেকে সুবিধা পাবে পেসাররা। বাংলাদেশ দল এখন দক্ষিণ আফ্রিকায়। দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলার জন্য প্রস্তুত হচ্ছে। সেই প্রস্তুতিতে পেসারদের দিকেই বিশেষ নজর দেয়া হচ্ছে। প্রোটিয়াদের বিপক্ষে যে পেস আক্রমণেই দ্যুতি ছড়াতে হবে।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের জন্য বাংলাদেশ দল পাঁচ পেসার নিয়ে দল গড়েছে। ‘কাটার মাস্টার’ মুস্তাফিজুর রহমান, তাসকিন আহমেদ, শফিউল ইসলাম, রুবেল হোসেন ও শুভাশীষ রায়কে রাখা হয়েছে। প্রোটিয়াদের বিপক্ষে এ পেসারদেরই ঝলক দেখাতে হবে। ম্যাচে ভাল ফল আনতে হলে পেসারদের গতির ঝড় তুলতে হবে। উইকেট নিতে হবে। তা না হলে ভাল করার যে আশা সেটি সম্ভব হবে না। আর তাইতো রুবেল ছাড়া (রুবেল এখনও দক্ষিণ আফ্রিকা যেতে পারেননি) বাকি চার পেসারকে বিশেষভাবে প্রস্তুত করে তোলা হচ্ছে। বাংলাদেশ পেস বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশের বিশেষ নজরে রয়েছেন এই পেসাররা। পেসারদের নিয়ে আলাদাভাবে ক্লাস করছেন ওয়ালশ।

নয় বছর পর দক্ষিণ আফ্রিকায় গেছে বাংলাদেশ দল। ২০০৮ সালের পর পূর্ণাঙ্গ সফর করছে এবার। সফরের শুরুটা হবে ২১ সেপ্টেম্বর থেকে তিনদিনের প্রস্তুতি ম্যাচ দিয়ে। এদিন দক্ষিণ আফ্রিকা আমন্ত্রিত একাদশের বিপক্ষে তিনদিনের প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে নামবে বাংলাদেশ দল। ৪৩ দিনের এই সফরে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। শুরুতে হবে টেস্ট সিরিজ। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ২৮ সেপ্টেম্বর প্রথম ও ৬ অক্টোবর দ্বিতীয় টেস্টে খেলতে নামবে বাংলাদেশ। টেস্ট সিরিজ শেষে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ১৫, ১৮ ও ২২ অক্টোবর যথাক্রমে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় ওয়ানডে খেলবে বাংলাদেশ। ২৬ ও ২৯ অক্টোবর যথাক্রমে প্রথম ও দ্বিতীয় টি২০ খেলবে। তবে আগে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ হবে, তাই টেস্ট দলের ক্রিকেটাররাই দক্ষিণ আফ্রিকা গেছেন আগে। টেস্ট সিরিজ শেষ হওয়ার আগেই ওয়ানডে দলে যারা ডাক পাবেন তারা দক্ষিণ আফ্রিকায় পৌঁছাবেন।

টেস্ট সিরিজে রয়েছেন মুশফিকুর রহীম, তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, ইমরুল কায়েস, সাব্বির রহমান, মুমিনুল হক, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, লিটন কুমার দাশ, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, মুস্তাফিজুর রহমান, রুবেল হোসেন, শফিউল ইসলাম, তাসকিন আহমেদ ও শুভাশীষ রায়। টেস্ট সিরিজ থেকে যে ক্রিকেটাররা ওয়ানডে সিরিজে সুযোগ পাবেন তারা দক্ষিণ আফ্রিকায় থাকবেন। যারা বাদ পড়বেন তারা দেশে ফিরে আসবেন। দেশে থাকা মাশরাফিসহ যারা ওয়ানডে দলে থাকবেন তারা দক্ষিণ আফ্রিকায় ৭ অক্টোবর উড়াল দিতে পারেন। রুবেল ছাড়া বাকি সবাই এখন দক্ষিণ আফ্রিকায় আছেন। কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নিচ্ছেন। প্রতিদিন সকালে অনুশীলন করছেন। দল বেনোনিতে আছে। বেনোনির উইলোমোর পার্ক স্টেডিয়ামে অনুশীলন করছে মুশফিকবাহিনী। বৃহস্পতিবার থেকে প্রস্তুতি ম্যাচও খেলবে। যে প্রস্তুতি ম্যাচটিতেই বোঝা যাবে কেমন করবে বাংলাদেশ দল। দলের পেসাররাই বা কেমন করবে।

যদিও এ প্রস্তুতি ম্যাচটি কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নেয়ার ক্ষেত্রে গুরুত্ব রাখবে। কিন্তু সিরিজজুড়ে বাংলাদেশ কেমন খেলবে প্রস্তুতি ম্যাচ দিয়ে তা বোঝা যাবে কমই। কারণ প্রস্তুতি ম্যাচটিতে দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে যে বড় কোন তারকা ক্রিকেটার খেলবেন না। অপরিচিত মুখগুলোর বিপক্ষেই খেলতে হবে বাংলাদেশকে। অধিনায়ক হিসেবে থাকছেন আইডেন মার্করাম। সঙ্গে দলে আছেন তালাদি বোকাকো, ওখুলি কেলে, ম্যাথু ক্রিস্টেনসেন, মাইকেল কোহেন, আইজ্যাক ডিকগালে, জুবায়ের হামসা, হেনরিক ক্লাসেন, মিগায়েল প্রিটোরিয়াস, ইয়ানসি ভ্যালি, শন ভন বার্গ ও লনডিসওয়া জুমা। তাছাড়া বেনোনিতে প্রস্তুতি ম্যাচ হবে। আর টেস্ট সিরিজ শুরু হবে প্রোচেফস্ট্রুমে। এরপরও দক্ষিণ আফ্রিকায় যেহেতু খেলা প্রস্তুতি ম্যাচ থেকেই বাংলাদেশ পেসারদের দিকে বিশেষ নজর থাকবে।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: