১৯ জানুয়ারী ২০১৮,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৮ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

ইসলামপুর থেকে কোটি টাকার বন্ডের কাপড় আটক


স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীর ইসলামপুর থেকে আনুমানিক এক কোটি টাকা মূল্যের বন্ডের কাপড়সহ ট্রাক আটক করেছে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতর। রবিবার গভীর রাতে টহলকালে ইসলামপুর থেকে ট্রাকভর্তি বন্ডের কাপড় আটক করা হয়।

শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতরের মহাপরিচালক (ডিজি) ড. মঈনুল খান জানান, প্রাথমিকভাবে জানা যায়, চালানটি চট্টগ্রাম বন্দর থেকে শুল্কমুক্তভাবে (আইএম৭) খালাস করে রবিবার খোলাবাজারে বিক্রি করার উদ্দেশে ইসলামপুরে নেয়া হয়। ন্ডের এই কাপড় টঙ্গীর মাসটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ নামের গার্মেন্টস ফ্যাক্টরির। আটক ট্রাকটি এনবিআরে রাখা হয়েছে। এ সময় একটি কাভার্ডভ্যান (ঢাকা মেট্রো-ট ১৪-২৮২৩) আটক করা হয়।

বিদেশে পণ্য রফতানি উৎসাহিত করতে রফতানিতব্য পণ্যের কাঁচামাল শুল্কমুক্তভাবে আমদানির জন্য ‘বন্ডিং সুবিধা’ প্রদান করা হয়ে থাকে। এ ক্ষেত্রে আমদানিকৃত কাঁচামাল দিয়ে পণ্য প্রস্তুতপূর্বক বিদেশে রফতানি না করে সেগুলো অবৈধভাবে খোলাবাজারে বিক্রয় করা হচ্ছিল। গাড়িচালকের দেয়া তথ্য মতে, আটক গাড়িটিতে পরিবাহিত পণ্য ছিল ২৬৩ রোল শতভাগ পলিয়েস্টার ফেব্রিক্সÑ যা ‘মাসটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিঃ, ৯১, ধউর, থানা রোড, তুরাগ, ঢাকা’ নামীয় প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে আমদানিকৃত। গাড়ির সঙ্গে থাকা আমদানি দলিলাদিতে দেখা যায়, উল্লেখিত বন্ডেড প্রতিষ্ঠানটি গত ১৭ আগস্ট চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসের বিল অব এন্ট্রি নং-১০৬০১০৫-এর মাধ্যমে ৭৮৯ প্যাকেজ পলিয়েস্টার ফেব্রিক্স শুল্কমুক্ত (আইএম৭) সুবিধায় আমদানি করে। পরে আমদানিকৃত কাপড়গুলো ৪টি কাভার্ডভ্যানের মাধ্যমে ঢাকাস্থ ফ্যাক্টরিতে নিয়ে আসার জন্য বোঝাই করা হয়। কিন্তু ভোরবেলায় গাড়ি ঢাকয় প্রবেশের সময় আমদানিকারক বন্ডেড প্রতিষ্ঠানের নির্দেশে রাজধানীর ইসলামপুরের বিক্রমপুর মার্কেটে মালামাল আনলোড করতে শুরু করে। গাড়িচালক পণ্য পরিবহনের চালান (নম্বর-৪৭০) আটককারী কর্মকর্তাগণের কাছে পেশ করেন। শুল্ক গোয়েন্দার উপস্থিতি টের পেয়ে বাকি ৩টি গাড়ি দ্রুত পালিয়ে যায়। শুল্ক গোয়েন্দা দল পণ্যসমেত কাভার্ডভ্যানটি আটক করে ভোররাতেই জাতীয় রাজস্ব বোর্ড প্রাঙ্গণে নিয়ে আসে। গাড়িচালক হতে প্রাপ্ত পণ্য পরিবহনের স্বপক্ষে বর্ণিত চালানটি পর্যালোচনায় দেখা যায় যে, বন্ডের কাপড়বোঝাই গাড়িটি সেই বন্ডেড প্রতিষ্ঠানের টঙ্গীর তুরাগস্থ কারখানায় না নিয়ে অবৈধভাবে খোলাবাজারে বিক্রয়ের উদ্দেশে ইসলামপুরে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। আটককৃত পণ্যের আনুমানিক বাজারমূল্য প্রায় এক কোটি টাকা। এ বিষয়ে বিস্তারিত তদন্ত শেষে দ্য কাস্টমস এ্যাক্ট ১৯৬৯ অনুযায়ী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। পালিয়ে যাওয়া বাকি গাড়িগুলো আটকের চেষ্টা চলছে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: