২৪ জানুয়ারী ২০১৮,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৬ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

ভারত-চিন সীমান্তে পাথর ছুড়ে সংঘর্ষ দুই বাহিনীর


ভারত-চিন সীমান্তে পাথর ছুড়ে সংঘর্ষ দুই বাহিনীর

অনলাইন ডেস্ক ॥ সংঘর্ষের খবর এল ভারত চিন সীমান্ত থেকে। যে ডোকলামে আড়াই মাস ধরে মুখোমুখি অবস্থানে দু’দেশের বাহিনী, সংঘর্ষ সেখানে হয়নি। অপ্রীতিকর পরিস্থিতির খবর এল লাদাখ থেকে। প্যাংগং লেক সংলগ্ন এলাকা দুই বাহিনী পরস্পরের দিকে পাথর ছুড়েছে বলে জানা গিয়েছে। সেনার তরফে বা প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের তরফে এ নিয়ে কোনও মন্তব্য করা হয়নি। তবে লাদাখে সংঘর্ষের খবর সেনার তরফে অস্বীকারও করা হয়নি।

ভারত-ভুটান-চিন সীমান্তের ডোকলামকে কেন্দ্র করে চলতে থাকা টানাপড়েন, ভারত এবং চিনের মধ্যে দীর্ঘতম সীমান্ত সঙ্কট। সীমান্তের অশান্তি কখনও এত লম্বা সময় ধরে চলেনি দু’দেশের মধ্যে। পূর্ব হিমালয়ে সেই অশান্তির মাঝেই নতুন করে সমস্যা তৈরি হয়েছে পশ্চিম হিমালয়ের লাদাখে। গতকাল অর্থাত্ ভারতের স্বাধীনতা দিবসে চিনা সেনা সীমান্ত লঙ্ঘন করে প্যাংগং লেকের তট ধরে ভারতীয় এলাকায় অনুপ্রবেশ করেছিল বলে জানা গিয়েছে। এনডিটিভি সূত্রের খবর, চিনা বাহিনীর অন্তত ১৫ জন ভারতীয় এলাকায় ঢুকেছিল। চিনা সেনার পথ আটকায় সীমান্তে মোতায়েন ভারতীয় বাহিনী ইন্দো-টিবেটান বর্ডার পুলিশ

অন্তত ২ ঘণ্টা ধরে প্যাংগং লেকের ধারে দু’পক্ষের টানাপড়েন চলে বলে খবর। চিনা বাহিনী পিছু হঠতে রাজি না হওয়ায় পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়। সংঘর্ষে জড়াই দুই বাহিনী। গোলাগুলি বিনিময় হয়নি। তবে দু’পক্ষই পরস্পরের দিকে পাথর ছুড়েছে বলে খবর। কয়েক জন তাতে সামান্য চোটও পেয়েছেন বলে জানা গিয়েছে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ব্যানার তুলে ধরা হয়। দু’পক্ষই ব্যানার তুলে ধরে দাবি করে ওই বিতর্কিত এলাকা তাদের নিজেদের। এর পর দুই বাহিনীই ছাউনিতে ফিরে যায়।

স্বাধীনতা দিবসে ভারত-চিন সীমান্তে দুই বাহিনীর প্রতিনিধিরা পরস্পরের সঙ্গে প্রতি বছর সৌজন্য বৈঠক করেন। দু’পক্ষের মধ্যে শুভেচ্ছা বিনিময় হয়। লাদাখে সেই কর্মসূচিতে গতকাল অংশ নেয়নি চিন।

সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: