মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৪ আগস্ট ২০১৭, ৯ ভাদ্র ১৪২৪, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

বখাটেদের বিচার দাবিতে স্মারকলিপি প্রদান

প্রকাশিত : ১২ আগস্ট ২০১৭, ০৭:৫১ পি. এম.
বখাটেদের বিচার দাবিতে স্মারকলিপি প্রদান

নিজস্ব সংবাদদাতা, নাটোর ॥ নাটোরের বড়াইগ্রামে জোয়াড়ি ইউনিয়নের কচুরগাড়ী ফকিরবাড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেনীর ছাত্রী রাইশা জাহান রিতু (১৩)কে অপহরন চেষ্টা, শ্লীলতাহানী এবং প্রতিবাদকারী সহপাঠীদেরকে মারপিটের প্রতিবাদ ও অবিলম্বে জড়িতদের শাস্তি দাবি জানিয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেছে ওই বিদ্যালয়ের শতাধিক শিক্ষার্থীরা।

শনিবার দুপুরে স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে ভিটাকচুরগাড়ী এলাকায় ওই ছাত্রীকে অপহরণ চেষ্টা চালায় বখাটেরা। পরে শনিবার বিকালেই বড়াইগ্রাম উপজেলা চেয়ারম্যান ডাঃ সিদ্দিকুর রহমান পাটোয়ারি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(ইউএনও) শারমিন আক্তার জাহানের নিকট লিখিত আবেদন জমা দেন বিদ্যালয়ের শতাধিক শিক্ষার্থীরা। এসময় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের আশ্বাস দিয়েছেন উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা।

জানা গেছে, পাশ্ববর্তী গুরুদাসপুর উপজেলার দাদুয়া গ্রামের মৃত সেকু প্রামাণিকের ছেলে রাসেল সেখ (২০) সম্পর্কে রিতুর বেয়াই হয়। তবে প্রায় ৫-৬ মাস ধরে রাসেল হোসেন তাকে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিলো। কিন্তু রিতু রাসেলের কোন কথায় কর্ণপাত না করায় একটি অপহরনের পরিকল্পনা করে রাসেল ও তার সহযোগীরা।

এরই ধারাবাহিকতায় শনিবার দুপুরে রিতুকে বিদ্যালয় থেকে ফেরার পথে অপহরনের উদ্দেশ্যে রাসেল ও তার সহযোগী ৭-৮জন বখাটে। কিন্তু বিষয়টি দুর থেকেই আঁচ করতে পেরেই রিতু তার বান্ধবীকে তার অন্যসব সহপাঠীদেরকে কৌশলে ডেকে নিয়ে আসতে বলে। রিতুর অন্যসহপাঠীরা দ্রুত ঘটনাস্থলের দিকে এগিয়ে গেলে ভয়ে পালিয়ে যায় আগে থেকে অবস্থান নেওয়া বখাটে রাসেল ও সহযোগীরা।

শিক্ষার্থীরা আরো জানান, রাসেল প্রায়ই রিতুকে বিভিন্নভাবে উত্যক্ত ও শ্লীলতাহানির চেষ্টা করত। সম্প্রতি এনিয়ে প্রতিবাদ করায় বখাটে রাসেল রিতুর সহপাঠীদের মারপিট করে।

স্কুলের প্রধান শিক্ষক এম এ জামান জানান, এ ঘটনার পর রিতুসহ শতাধিক স্কুল শিক্ষার্থী বিকেলে উপজেলা চেয়ারম্যান ও ইউএনও কার্যালয়ে এসে লম্পট রাসেল ও সহযোগীদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবি করেছে। এঘটনায় অভিযুক্তের শাস্তি দাবি ও নিন্দা জানান তিনি।

ইউএনও বেগম ইশরাত ফারজানা জানান, আমাকে শিক্ষার্থীরা লিখিত অভিযোগ করেছে। এ ব্যপারে তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

প্রকাশিত : ১২ আগস্ট ২০১৭, ০৭:৫১ পি. এম.

১২/০৮/২০১৭ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



শীর্ষ সংবাদ: