১৮ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৮ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

তিস্তার পানি বিপদসীমার ২৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে


তিস্তার পানি বিপদসীমার ২৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে

নিজস্ব সংবাদদাতা, লালমনিরহাট ॥ ২৪ ঘন্টার ভারি বৃষ্টিতে ও ভারত থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে লালমনিরহাটে তিস্তা নদী পানি শনিবার সকাল ৬টা থেকে বিপদসীমার ২৫সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ডালিয়া (দোয়ানী ব্যারেজ) পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোস্তাফিজুর রহমান। এতে জেলার পাঁচ উপজেলার তিস্তা নদি উপকুলে পানি ঢুকে পড়ে বন্যা দেখা দিয়েছে।

প্রায় ২০ হাজার পরিবার কার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।

পনিবান্দি পরিবারগুলোর গরু, ছাগল, হাঁস-মুরগি নিয়ে বিপাকে পড়েছে। এছাড়া ভারী বর্ষণে জেলার ছোট-বড় সব কয়েকটি নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। ফলে নদী সংলগ্ন এলাকার হাজার হাজার বিঘা জমির সদ্য রোপনকৃত আমন ধান, সবজিসহ নানা ফসল ও রাস্তা-ঘাট তলিয়ে গেছে পানির নীচে। তিস্তা নদীর পানি তোরে তিস্তা গোর্বদ্ধন বাঁধ ও র্স্পারটি থর থর করে কাপছে। বাঁধটি পড়েছে হুমকীর মুখে।

পাউবো সূত্র জানায়, পাটগ্রামের দহগ্রাম, হাতীবান্ধার সানিয়াজান, গড্ডিমারী, ডাউয়ার বাড়ী, সিঙ্গীমারী, পাটিকাপাড়া, সিন্দুর্না, কালীগঞ্জের কাকিনা, তুষভান্ডার, আদিতমারীর মহিষখোচা, সদর উপজেলার গোকুন্ডা, রাজপুর ও খুনিয়াগাছ ইউনিয়ন তিস্তা নদী বিধৌত হওয়ায় পানির নিচে তলিয়ে গেছে। নদী কূলবর্তী হাজার হাজার বিঘা সদ্য রোপনকৃত ধান ক্ষেত তলিয়ে গেছে। ফলে এসব এলাকার প্রায় ২০ হাজার পরিবার বর্তমানে পানিবন্দি অবস্থায় রয়েছে। এসব নদী তীরবর্তী এলাকায় ভাঙন তীব্রতাও বেড়েছে অনেক খানি। কৃষকের ফসলি জমিসহ ভাঙছে শত শত মানুষের বসতভিটা। ভাঙনের তালিকাতে বাদ পড়েনি একাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন স্থাপনাও।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: