১৭ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

খালেদা জিয়ার দেশে ফেরা নিয়ে সন্দেহ কাদেরের


খালেদা জিয়ার দেশে ফেরা নিয়ে সন্দেহ কাদেরের

স্টাফ রিপোর্টার ॥ নির্বাচন কমিশন (ইসি) ঘোষিত রোডম্যাপের বাস্তবায়ন দেখে আওয়ামী লীগ মন্তব্য করবে বলে জানিয়েছেন দলের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। সোমবার সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) নেতাদের সঙ্গে এক অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

বৈঠকে সড়ক দুর্ঘটনা রোধে করনীয় বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরেন নিসচা নেতৃবৃন্দ। তারা দুর্ঘটনা রোধে সড়ক-মহাসড়কে আইন মেনে চলা বাধ্যতামূলক করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান। সড়ক দুর্ঘটনারোধে কাজ করে আসা সংগঠনটি মনে করে আইন অমান্য করার কারণেই সড়ক দুর্ঘটনা বারবার হচ্ছে। পাশাপাশি এখন থেকে প্রতি বছরের ২২ অক্টোবর ‘জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস’ সরকারী ভাবে পালনের সিদ্ধান্ত নেয়ার মন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানানো হয় সংগঠনের পক্ষ থেকে।

তিনি বলেন, প্রধান নির্বাচন কমিশনারের পক্ষে সিইসি নির্বাচনের যে রোডম্যাপ ঘোষণা করেছেন এ ব্যাপারে এ মুহূর্তে আওয়ামী লীগের যে বক্তব্য সেটা হচ্ছে, ঘোষিত রোডম্যাপ নিয়ে নির্বাচন কমিশন পথ চলবে। এ রোডম্যাপের বাস্তবায়নের অগ্রগতি দেখে আমরা কথা বলবো। তারা যা বলেছেন সেটা রোডম্যাপ। আমরা একটু বাস্তবায়ন প্রক্রিয়াটা দেখতে চাই। আরও কিছু সময় নিয়ে এ ব্যাপারে কথা বলবো।

বিএনপি বলেছে, এটা আওয়ামী লীগের রোডম্যাপ- এ বিষয়ে মন্তব্য জানতে চাইলে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, একজন মামলার ভয়ে বিদেশ থেকে আসেনি। কতদিন, কত বছর হয়ে গেলো, তিনি আর আসেন না। আর একজন আবার টেমস নদীর পাড়েই গেলেন, তিনি যাচ্ছেন, এ ব্যাপারে আমাদের কোনো আপত্তি বা কোনো মন্তব্য থাকার কথা না।

খালেদা জিয়ার দেশে ফেরা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করে কাদের বলেন, ‘কিন্তু গত শনিবার থেকে ফেসবুকে দেখছি, টুইটারে দেখছি, যে এতো বেশি সময়ের জন্য একটা বড় দলের চেয়ারপারসন বিদেশ যাচ্ছেন। ‘জনশ্রুতি রয়েছে তিনি কি মামলার ভয়ে পালিয়ে গেলেন? এবং তিনি কি মামলার ভয়ে ফিরে আসবেন না?’

তিনি বলেন, মামলায় ১৫০ বার আদালতে সময় চাওয়ার পর এ সন্দেহটা ঘণীভূত হয়েছে এবং জনগণের মধ্যে গুঞ্জনটা শাখা-প্রশাখা বিস্তার করেছে। বিএনপি চেয়ারপারসন দেশে ফিরে নির্বাচনী প্রক্রিয়ার বিষয়ে কথা বলবেন এবং আগের মতো সহিংস অবস্থার সৃষ্টির আশঙ্কা প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, আমরা দেখবো শেখ হাসিনার মতো ওই ওয়ান-ইলেভেনের সময় সাহস করে তিনি ফিরে আসবেন কিনা, মামলার ভয়ে সময় আবার বর্ধিত হবে কিনা। আসার ডেট আরো মামলার তারিখের মতো পেছাবে কিনা ফিরে আসার বিষয়ে সেটা কেবল সময়ই বলে দেবে।

এর আগে ২২ অক্টোবর নিরাপদ সড়ক দিবস ঘোষণা করায় মন্ত্রীকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান নিসচা সভাপতি চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চনসহ সংগঠনের নেতারা। দীর্ঘদিন ধরেই ২২ অক্টোবরকে নিরাপদ সড়ক দিবস ঘোষণা দেয়ার দাবি জানিয়ে আসছিল নিসচা।

এ ব্যাপারে সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয়ে সংগঠনের পক্ষ থেকে এশাধিকবার চিঠিও দেয়া হয়। কিন্তু একাধিক পরিবহন ও শ্রমিক সংগঠন পৃথক তারিকে নিরাপদ সড়ক দিবস ঘোষণা দেয়ার দাবি জানিয়ে মন্ত্রণালয়ে চিঠি দেয়। এক পর্যায়ে সংবাদ সম্মেলন করে বিভিন্ন সংগঠনের বাধা দেয়ার বিষয়টি পরিস্কার করেন কাঞ্চন। তাতেও কাজ হয়নি। সর্বশেষে কাঞ্চনের প্রস্তাবিত তারিখটিই সরকার বিবেচনায় নেয়।

চলতি বছরের ৫জুন মন্ত্রী পরিষদের বৈঠকে ২২ অক্টোবরকে ‘জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস’ ঘোষণা করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। ২৪ বছর আগে মর্মান্তিক এক সড়ক দুর্ঘটনায় চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চনের স্ত্রী জাহানারা কাঞ্চনের অকাল মৃত্যুর মধ্যদিয়ে গড়ে উঠে নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলন। ক্রমবর্ধমান সড়ক দুর্ঘটনা নিরসনে গড়ে উঠা এই আন্দোলন এখন দেশজুড়ে। সরকার এ দাবি ও সংগঠনের প্রতি আন্তরিক থেকে দেশকে সড়ক দুর্ঘটনামুক্ত করতে নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করে। মন্ত্রীসভা বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সাংবাদিকদের বলেন, ২২ অক্টোবরকে ‘জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস’ ঘোষণা এবং দিবসটিকে মন্ত্রি পরিষদ বিভাগের পিরপত্রের ‘খ’ ক্রমিকে অন্তর্ভুক্তকরণের প্রস্তাব অনুমোদিত হয়েছে।

২০০২ সালে নিরাপদ সড়ক চাই’র পক্ষ থেকে ২২ অক্টোবরকে আন্তর্জাতিক নিরাপদ সড়ক দিবস ঘোষণা করে জাতিসংঘের তৎকালীন মহাসচিব কফি আনানের কাছেও আবেদন করা হয়। জাতিসংঘ এ বিষয়টি আমলে নিয়ে সড়ক দুর্ঘটনার ভয়াবহতার কথা ভেবে সড়ক নিরাপত্তা সপ্তাহ ঘোষণা করে বিভিন্ন প্রতিপাদ্য বিষয় নির্ধারণ করে। এমনকি সড়ক দুর্ঘটনা কমিয়ে আনতে জাতিসংঘ ২০১১-২০২০ পর্যন্ত সড়ক নিরাপত্তা দশক ঘোষণা করেছে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম বলেন, এখানে সর্বপ্রথম ইলিয়াস কাঞ্চনের কৃতিত্ব আছে বলা যায়। ওনার সংগঠন নিরাপদ সড়ক চাই দীর্ঘদিন ধরে দাবি জানিয়ে আসছিলেন। ওনার স্ত্রী ২২অক্টোবর সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যান এবং ঐ দিনটিতে দাবি করে আসছিলেন। ২০১১ সালে চট্টগ্রামের মীরসরাইয়ে ভয়াবহ সড়ক দুর্ঘটনাকেও গুরুত্ব দেয়া হয় বলে মন্ত্রিপরিষদ সচিব। তিনি বলেন মীরসরাইয়ে ৪৩জন শিশু মারা যায়, ঐ দাবিটিও আসছিল যে ১১ জুলাই করা যায় কিনা। কিন্তু সার্বিক বিবেচনায় ২২অক্টোবর যেহেতু আনুষ্ঠানিকভাবে অনেক দিন দিন থেকেই পালন হয়ে আসছে সেজন্য ২২ অক্টোবরই সরকারিভাবে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস পালন করা হবে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: