মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২২ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৭ আশ্বিন ১৪২৪, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

সুযোগ নিচ্ছে মুনাফালোভী

প্রকাশিত : ১৮ মে ২০১৭
  • মোঃ মকবুল হোসেন

আমরা দেখে আসছি চাহিদার তুলনায় সরবরাহ বাড়লে দ্রব্যের মূল্য কমে এবং সরবরাহ অপ্রতুল হলে মূল্য বাড়ে। যেমন সবজি এবং ফলের ভরা মৌসুমে সরবরাহ চাহিদার তুলনায় বেশি হলে দাম কমে, আবার প্রথম এবং শেষের দিকে সরবরাহ কম থাকায় দাম চড়ে সাধারণ মানুষের ক্রয়ক্ষমতার উর্ধে চলে যায়। প্রায় সব পণ্যের ক্ষেত্রে এ ধারা কম বেশি প্রযোজ্য। এ জন্য বাজার স্থিতিশীল রাখার লক্ষ্যে সরকার প্রয়োজনে আমদানির মাধ্যমে একটি ভারসাম্য বজায় রাখার চেষ্টা করে। এতদসত্ত্বেও, বিশেষ বিশেষ সময়ে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যদ্রব্যের দাম লাগামহীনভাবে বাড়তে থাকে যা সাধারণ মানুষের নাভিশ্বাসের কারণ হয়ে ওঠে। যেমন, পবিত্র রমজান মাস, পহেলা বৈশাখের মতো সর্বজনীন উৎসবের সময় এবং আপদকালীন এবং প্রাক বাজেটকালীন সময়ে সরবরাহ যথেষ্ট থাকা সত্ত্বেও দ্রব্যের মূল্য বাড়ে। বাড়ান হয় বলাই শ্রেয়। এর পিছনে কাজ করে অল্প সময়ে অতি মুনাফা অর্জনের হীন মানসিকতা। বাজার নিয়ন্ত্রণে দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে বাজার সিন্ডিকেট, মজুতদাররা কৌশলে কৃত্রিম সঙ্কট তৈরি করে দ্রব্যের মূল্য বাড়াতে সচেষ্ট হয়। গণমাধ্যমের মাধ্যমে আগাম কোন পণ্যদ্রব্যের সঙ্কট বা মূল্যবৃদ্ধির সম্ভাবনা জানতে পারলে এ সুযোগটিকেও তারা কাজে লাগায়। দ্রব্য মূল্যবৃদ্ধির এ লাগামকে টেনে ধরতে হলে বাজার নিয়ন্ত্রণে সরকারকে আরও বলিষ্ঠ পদক্ষেপ নিতে হবে।

কাদিরগঞ্জ, রাজশাহী থেকে

প্রকাশিত : ১৮ মে ২০১৭

১৮/০৫/২০১৭ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: