মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
১৭ আগস্ট ২০১৭, ২ ভাদ্র ১৪২৪, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

তোমার সঙ্গে ওপেন করে আমিও ধন্য: গেইলকে বললেন বিরাট

প্রকাশিত : ২০ এপ্রিল ২০১৭, ০১:৩৯ পি. এম.
তোমার সঙ্গে ওপেন করে আমিও ধন্য: গেইলকে বললেন বিরাট

অনলাইন ডেস্ক ॥ টি-টোয়েন্টিতে ক্রিস গেইলের পরিসংখ্যান দেখে অবাক বিরাট কোহালি। ক্যারিবিয়ান কিংগের সঙ্গে ওপেন করে ধন্য ভারতীয় কিংগ। মঙ্গলবার পাঁচটা চার ও সাতটা ছয় মেরে গেইল করেন ৩৮ বলে ৭৭। যা উল্টোদিকের ক্রিজ থেকে দেখলেন কোহালি। যিনি নিজেও করলেন ৫০ বলে ৬৪ রান। দু’জনে মিলে প্রথম উইকেটে ১২২ রানের পার্টনারশিপ গড়ে নতুন নজির গড়লেন। এই প্রথম টি টোয়েন্টি-তে কোনও জুটি সেঞ্চুরি পার্টনারশিপ গড়লেন দশ বার।

সেই ব্লকবাস্টার জুটি বিরাট কোহালি ও ক্রিস গেইল মঙ্গলবারের ম্যাচের পর একে অপরের মুখোমুখি হলেন আইপিএল ওয়েবসাইটের জন্য। গেইলের সাক্ষাৎকার নিলেন কোহালি। দু’জনের যা কথোপকথন হল, তা এ রকম:

কোহালি: ক্রিস, আমার সঙ্গে ওপেন করতে তোমার কেমন লাগে?

গেইল: দারুণ। তুমি তো কিংবদন্তি, বন্ধু। আরও অনেক অনেক রান করবে। তোমার সঙ্গে ওপেন করাটা আমার কাছে খুব আনন্দের। উল্টোদিক থেকে তোমাকে মসৃণ ভাবে রান করতে দেখে ধন্য হই। যা করেছ, সে জন্য অনেক অভিনন্দন আর তোমার জন্য হৃদয় থেকে আরও অনেক অনেক শুভেচ্ছা জানাচ্ছি।

কোহালি: টি-টোয়েন্টিতে এটা আমাদের দশ নম্বর একশো রানের পার্টনারশিপ। আর এটা একটা রেকর্ডও। তুমি দশ হাজার রানে পৌঁছলে। ৪০-এর গড় আর ১৪৯-এর স্ট্রাইক রেট, ১৮টা সেঞ্চুরি! পাগলের মতো পরিসংখ্যান। তোমার সঙ্গে ওপেন করে আমিও ধন্য। কিন্তু এত বছর ধরে ধারাবাহিক ভাবে ‘ইউনিভার্স বস’ হয়ে থাকলে কী করে?

গেইল: দশ হাজার রান পাওয়াটা দুর্দান্ত ব্যাপার। সবচেয়ে বড় কথা এই মুহূর্তটা তোমার সঙ্গে ভাগ করে নেওয়া। আমরা একসঙ্গে বহু ভাল পার্টনারশিপ করেছি। তা ছাড়া আরসিবি-র মতো ফ্র্যাঞ্চাইজির হয়ে খেলার সুযোগ পাওয়াটাও দারুণ ব্যাপার। এখানে যোগ দেওয়ার পর থেকে আমার সব কিছুই ভাল হচ্ছে। ক্রিকেট থেকে ব্যক্তিগত জীবন, সব কিছুই। সে জন্য ফ্র্যাঞ্চাইজিকে ধন্যবাদ। তোমরা বরাবরই আমার কাছে স্পেশ্যাল আর তোমাদের সঙ্গে ড্রেসিংরুম ভাগ করে নিতে পারাটাও দারুণ অভিজ্ঞতা।

কোহালিকে ইন্টারভিউ দেওয়া শেষ করে গেইল গেলেন সাংবাদিক সম্মেলনেও। সেখানে গিয়ে বললেন, ‘‘ব্যাট করতে যাওয়ার আগে স্যামুয়েল বদ্রী আমাকে মনে করিয়ে দেয় যে, আমি দশ হাজার থেকে মাত্র তিন রান দূরে আছি। তাই ব্যাপারটা মাথায় ছিলই। মাইলস্টোনটা পেরিয়ে যাওয়ার পরেই নিজেকে বলেছিলাম, চলো ঝাঁপিয়ে পড়ো।’’

নিজেকে আসল জায়গায় ফিরিয়ে আনতে পেরে খুশি গেইল বলেন, ‘‘লোকে শুধু আসল ক্রিস গেইলকে খুঁজে পেতে চায়। ইউনিভার্স বস আছে, এখনও বেঁচে আছে। এ ভাবেই মানুষকে আনন্দ দিয়ে যেতে চাই।’’

ব্যাটিংয়ের মানসিকতা বদলেই যে নিজেকে ফিরিয়ে আনতে পারলেন, তা জানিয়ে গেইল বলেন, ‘‘শন পোলক ও স্যামুয়েল বদ্রী আমাকে মনে করিয়ে দেয় যে, আমি দশ হাজার থেকে মাত্র তিন রান দূরে আছি।’’

সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা

প্রকাশিত : ২০ এপ্রিল ২০১৭, ০১:৩৯ পি. এম.

২০/০৪/২০১৭ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: