২০ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

মানুষের অর্থনৈতিক অধিকার বাড়ছে


মানুষের অর্থনৈতিক অধিকার বাড়ছে

অর্থনৈতিক রিপোর্টার॥ অর্থনৈতিক অধিকারের সূচকে বাংলাদেশ এগিয়েছে। গত বছরের ১৩৭ তম অবস্থান থেকে এবছর ১২৮ তম অবস্থানে উঠে এসেছে বাংলাদেশ। এতে অর্থনৈতিক অধিকারের প্রশ্নে বাংলাদেশের মানুষের উন্নতি ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান হেরিটেজ ফাউন্ডেশন প্রকাশিত অর্থনৈতিক অধিকারের সূচক থেকে এতথ্য জানা গেছে। এতে বলা হয়েছে, রাজনৈতিক অস্থিরতা সত্ত্বেও বাংলাদেশের মানুষের অর্থনৈতিক অধিকারের প্রশ্নে উন্নতি হচ্ছে। এ সূচকে গত বছর বাংলাদেশের অবস্থান নির্ধারিত হয়েছে ১২৮। অর্থনৈতিক অগ্রগতির পেছনে প্রবৃদ্ধিকে মূল কারণ হিসেবে শনাক্ত করেছে তারা। আর উন্নয়ন ব্যহত হওয়ার পেছনে ‘আইনের শাসন’-এর অভাবকেই কারণ বলছে তারা। উল্লেখ্য, গত বছরের সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ১৩৭।

বার্ষিক প্রতিবেদনে হেরিটেজ ফাউন্ডেশন প্রকাশিত সূচক অনুযায়ী, আগের বছরের সূচকের চেয়ে এবারের সূচকে বাংলাদেশের প্রাপ্ত স্কোর ১.৭ বেড়ে ৫৫ তে দাঁড়িয়েছে।

প্রকাশিত অর্থনৈতিক অধিকারের সূচক বলছে, এই উন্নতির নেপথ্যে রয়েছে গত এক দশকের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির দুর্দান্ত গতি, যা দারিদ্র্য মুক্তিতে দুর্দান্ত ভূমিকা রেখেছে। বিপরীতে আইনের শাসনের নাজুক অবস্থার কারণে বাংলাদেশে অর্থনৈতিক উন্নয়নের গতি ব্যাহত হয়েছে ।

হেরিটেজ ফাউন্ডেশনের এ বছরের সূচকে সর্বশীর্ষে রয়েছে হংকং, সিঙ্গাপুর এবং নিউ জিল্যান্ড। সূচকে চীনের অবস্থান ১১১-তম, আর যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান ১৭-তম। সূচকে নেপালের অবস্থান ১২৫-তম, শ্রীলঙ্কার অবস্থান ১১২-তম এবং ভুটানের অবস্থান ১০৭-তম। আর সূচকে মালদ্বীপের অবস্থান ১৫৭-তম।

হেরিটেজ ফাউন্ডেশন প্রতিবছর এ বার্ষিক সূচকটি প্রকাশ করে থাকে। অর্থনৈতিক স্বাধীনতা বিবেচনার ক্ষেত্রে আইনের শাসন, সরকারি আয়-ব্যয়ের পরিমাণ, নিয়ন্ত্রণগত দক্ষতা এবং মুক্ত বাজারের প্রশ্নকে বিবেচনায় নেওয়া হয়।

সূচক অনুযায়ী দক্ষিণ এশিয়ার বড় অর্থনীতির দেশ ভারতসহ পাকিস্তান ও আফগানিস্তানকে অর্থনৈতিক অধিকারের প্রশ্নে পেছনে ফেলেছে বাংলাদেশ। তবে নেপাল, শ্রীলঙ্কা আর ভুটানকে টপকাতে পারেনি।