২৩ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ইসলামী ব্যাংক চলবে সব আইনকানুন মেনেই


রহিম শেখ ॥ পরিচালনা পর্ষদ, চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক পরিবর্তনের পর ইতোমধ্যে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে রদবদল করেছে ইসলামী ব্যাংক কর্তৃপক্ষ। পদত্যাগ করেছেন শীর্ষ পদের কর্মকর্তারা। পাশাপাশি বিভাগীয় পদে দায়িত্বরত কর্মকর্তাদের পদোন্নতি দিয়ে শীর্ষ নির্বাহী পদে নিয়োগ দিয়েছে ইসলামী ব্যাংক। বাংলাদেশ ব্যাংক বলছে, নিয়মকানুন মেনেই সবকিছু হয়েছে। তবে নিয়মের ব্যত্যয় হলে সে বিষয়ে তদারকি করবে বাংলাদেশ ব্যাংক। এদিকে বুধবার সন্ধ্যায় এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ইসলামী ব্যাংক জানিয়েছে, যে কোন মূল্যে শরিয়া নীতিমালা ও মৌলিক মূল্যবোধ অক্ষুণœ রাখবে। কোনভাবেই এর ব্যত্যয় ঘটবে না। মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তানসহ জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে মেধা ও যোগ্যতার ভিত্তিতে অভিজ্ঞ, নিরপেক্ষ ও পেশাদারী প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে জনবল নিয়োগ করা হবে। নারী অফিসার নিয়োগ বৃদ্ধি এবং ব্যাংকিং সেক্টরে অন্যান্য ব্যাংকের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতনকাঠামো বৃদ্ধিসহ পুনর্বিন্যাসের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ব্যাংকের পরিচালনা পরিষদ।

জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার ইসলামী ব্যাংকের পর্ষদ ভেঙ্গে পুনর্গঠন করা হয়। আগের চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মুস্তফা আনোয়ার সরে যাওয়ায় সাবেক সচিব আরাস্তু খানকে নতুন চেয়ারম্যানের দায়িত্ব দেয়া হয়। ভাইস চেয়ারম্যান এম আযীজুল হকের স্থলে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক সৈয়দ আহসানুল আলম দায়িত্ব নেন। এছাড়া নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান হিসেবে মেজর জেনারেল (অব.) ইঞ্জিনিয়ার আবদুল মতিন, অডিট কমিটির চেয়ারম্যান বিডিবিএলের সাবেক এমডি ড. জিল্লুর রহমান এবং পাসপোর্ট অধিদফতরের সাবেক মহাপরিচালক আবদুল মাবুদকে ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা কমিটির চেয়ারম্যান পদে বহাল রাখা হয়। অন্যদিকে, মোহাম্মদ আবদুল মান্নানের জায়গায় দায়িত্ব দেয়া হয় ইউনিয়ন ব্যাংকের এমডি মোঃ আবদুল হামিদ মিঞাকে।

ব্যাংক কোম্পানি আইন অনুযায়ী এমডি নিয়োগের জন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংকের অনুমোদন প্রয়োজন হয়। এছাড়া ইসলামী ব্যাংকের ক্ষেত্রে ডিএমডি নিয়োগেও কেন্দ্রীয় ব্যাংকের অনুমোদন বাধ্যতামূলক। গত ২০১৫ সালের ডিসেম্বরে জনস্বার্থ, আমানতকারীদের স্বার্থ সংরক্ষণ ও ব্যাংকের জন্য ক্ষতিকর কার্যকলাপ প্রতিরোধে ইসলামী এই বাধ্যবাধকতা আরোপ করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। ব্যাংকের জন্য ক্ষতিকর ও বিতর্কিতরা যেন ব্যাংকে নিয়োগ না পান এই জন্য যোগ্য লোককে নিয়োগ দিতে এই বিশেষ নিয়ন্ত্রণ আরোপ করা হয়। নিয়মানুযায়ী এমডি ও ডিএমডি নিয়োগের অনুমোদন নিতে গত রবিবার কেন্দ্রীয় ব্যাংকে চিঠি দেয় ইসলামী ব্যাংক। ইসলামী ব্যাংকের এমডি মোহাম্মদ আব্দুল মান্নান শারীরিক অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে গত বৃহস্পতিবার বোর্ডে পদত্যাগপত্র পাঠান। বোর্ড তার পদত্যাগপত্র গ্রহণ করে নতুন এমডি নিয়োগ করেন। এদিকে নতুন এমডি আবদুল হামিদ মিঞাকে অবশ্যই ইউনিয়ন ব্যাংক থেকে পদত্যাগ করতে হবে। তার ক্ষেত্রে এক মাসের নোটিস দেয়ার বিধিবিধান প্রযোজ্য। এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র শুভঙ্কর সাহা জনকণ্ঠকে বলেন, ইসলামী ব্যাংকের এমডি শারীরিক অক্ষমতার কথা বলে পদত্যাগ করেছেন। তিনি যদি বাংলাদেশ ব্যাংকে কোন অভিযোগ করেন তাহলে আমরা বিষয়টি দেখব। নিয়মকানুন মেনেই সবকিছু হয়েছে। নিয়মের ব্যত্যয় হলে সে বিষয়ে দেখবে বাংলাদেশ ব্যাংক।

সূত্র জানায়, ইসলামী ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদ ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক পরিবর্তনের পর বিভিন্ন পদে ব্যাপক রদবদল আর পদোন্নতি দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। ইতোমধ্যে পদোন্নতি দেয়া হয়েছে চার ডিএমডিকে। এর আগে তারা ব্যাংকের এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। অন্যদিকে রদবদল করা হয়েছে শতাধিক পদে। এতে করে আতঙ্কে আছেন কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

ইতোমধ্যে ব্যাংকটির ব্যবস্থাপনায় সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে বিবেচিত অপারেশন উইং থেকে ডিএমডি মো. মাহবুব-উল-আলমকে সরিয়ে শামসুজ্জামানকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। আন্তর্জাতিক বিভাগের প্রধান থেকে ডিএমডি সাদেক ভূঁইয়াকে সরিয়ে আইসিটি বিভাগের প্রধান করা হয়েছে। নতুন পদোন্নতি পাওয়া তিন ডিএমডির মধ্যে মোহন মিয়াকে ডেভেলপমেন্ট উইং, মোহাম্মদ মনিরুল মাওলাকে রিটেইল ব্যাংকিং এবং কোম্পানি সেক্রেটারি আবু রেজা মোঃ ইয়াহিয়াকে ইন্টারনাল কন্ট্রোল এ্যান্ড কমপ্লায়েন্স উইংয়ের প্রধান করা হয়েছে। সার্বিক বিষয়ে জানতে ইসলামী ব্যাংকের এমডি আবদুল হামিদকে কয়েক দফা টেলিফোন করেও পাওয়া যায়নি।

সূত্রে জানা গেছে, ইসলামী ব্যাংকের রদবদলের মধ্যে ডিএমডির পরের পদ এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট (ইভিপি) ও প্রধান আর্থিক কর্মকর্তা (সিএফও) মোহাম্মদ শহিদ উল্লাহকে বদলি করে আগ্রাবাদ শাখার ব্যবস্থাপক করা হয়েছে। প্রধান কার্যালয়ের ডেভেলপমেন্ট উইংয়ের প্রধান মোঃ মোশাররফ হোসেনকে পাঠানো হয়েছে ঢাকা সেন্ট্রাল জোনের প্রধান করে। ঢাকা দক্ষিণ জোনের প্রধান মোঃ উবায়দুল হককে প্রধান কার্যালয়ের রুরাল ডেভেলপমেন্ট উইংয়ের প্রধান করা হয়েছে। মানবসম্পদ বিভাগের প্রধান ইয়ানুর রহমানকে পাঠানো হয়েছে ঢাকা দক্ষিণ জোনের প্রধান করে। খুলনা জোনের প্রধান আবু নাসের মোহাম্মদ নাজমুল বারীকে প্রধান কার্যালয়ের হাউস বিল্ডিং ফাইন্যান্সের প্রধান করা হয়েছে। ঢাকা উত্তর জোনের প্রধান কাওসার-উল-আলমকে প্রধান কার্যালয়ের এসএমই উইং-২ এবং নোয়াখালী জোনের প্রধান মোহাম্মদ উল্লাহকে এসএমই উইং-১ এর প্রধানের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। আর সিলেট জোনের প্রধান মাহমুদ আহমেদকে ইসলামী ব্যাংক ট্রেনিং এ্যান্ড রিসার্চ উইংয়ের প্রধান করা হয়েছে। এছাড়া ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সেক্রেটারিয়েটের প্রধান সিদ্দিকুর রহমানকে বদলি করে ঢাকার নবাবপুর শাখায় পাঠানো হয়েছে। এছাড়া ইভিপির নিচের গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন পদে রদবদল করা হয়। এরকম রদবদল আরও হতে পারে বলে ইসলামী ব্যাংক সূত্রে জানা গেছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ব্যাংকের উর্ধতন এক কর্মকর্তা জনকণ্ঠকে জানান, একের পর এক সিদ্ধান্ত পরিবর্তন হচ্ছে। কারণ দর্শানো নোটিস ছাড়াই ছাঁটাই করা হচ্ছে। ব্যাংকে কী হচ্ছে কিছুই বুঝতে পারছি না। সবসময় আতঙ্কে আছি কখন কী হয়। এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপত্র শুভঙ্কর সাহা বলেন, ইসলামী ব্যাংকে যা কিছু হয়েছে তা নিয়ম অনুযায়ীই হয়েছে। নতুন ব্যবস্থাপনা পরিচালকের বিষয়ে আমাদের অনাপত্তি চাওয়া হয়েছে, তা আমরা ইতোমধ্যে অনুমোদন দিয়েছি।

শরিয়া নীতিমালা ও মৌলিক মূল্যবোধ অক্ষুণœ রাখবে ইসলামী ব্যাংক ॥ শরিয়া নীতিমালা ও মৌলিক মূল্যবোধ অক্ষুণœ রাখবে বলে বুধবার সন্ধ্যায় এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে ইসলামী ব্যাংক। কোনভাবেই এর ব্যত্যয় ঘটবে না। শরিয়া নীতিমালা পরিপালনের ক্ষেত্রে জিরো টলারেন্স নীতি অনুসরণ করা হবে। মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তানসহ জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বেশেষে মেধা ও যোগ্যতার ভিত্তিতে অভিজ্ঞ, নিরপেক্ষ ও পেশাদারী প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে জনবল নিয়োগ করা হবে। এছাড়া নারীর ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে নারী অফিসার নিয়োগ বৃদ্ধি এবং ব্যাংকিং সেক্টরে অন্যান্য ব্যাংকের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতনকাঠামো বৃদ্ধিসহ পুনর্বিন্যাসের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ব্যাংকের পরিচালনা পরিষদ। তাছাড়া মেধা, যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে পদোন্নতি ও পদায়ন করা হবে। পরিচালনা পরিষদ আরও একমত হয় যে, ব্যাংকের কাউকে চাকরিচ্যুত করা হবে না। গত বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত ব্যাংকের বোর্ড অব ডাইরেক্টরসের সভায় এসব সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। ব্যাংকের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান আরাস্তু খান ও পরিচালকবৃন্দ সভায় উপস্থিত ছিলেন।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: