২৪ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৮ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

নওগাঁয় প্রতিবেশী চাচা কর্তৃক ২য় শ্রেনীর ছাত্রীকে ধর্ষণ!


নওগাঁয় প্রতিবেশী চাচা কর্তৃক ২য় শ্রেনীর ছাত্রীকে ধর্ষণ!

নিজস্ব সংবাদদাতা, নওগাঁ ॥ নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার কুড়াইল গ্রামের ২য় শ্রেণীর স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ করেছে প্রতিবেশী আলমের ছেলে (সম্পর্কে চাচা) ফরহাদ হোসেন লাদেন (১৬)। শিশুটি বর্তমানে নওগাঁ সদর হাসপাতালে গাইনি বিভাগে চিকিৎসাধীন রয়েছে। ধর্ষকের পরিবার প্রভাবশালী হওয়ায় থানায় মামলা করার সাহস পাচ্ছেনা ভিটটিমের পরিবার।

শিশুটির দাদী আমেনা বেগম সাংবাদিকদের বলেন, শিশুটির মা নেই। বাবা ঢাকায় রিক্সা চালায়। জন্মের পর থেকে তার কাছেই থাকে শিশুটি। মঙ্গলবার (৩ জানুয়ারি) সকালে তিনি পার্শ্ববর্তী জয়পুরহাট জেলায় আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে গিয়েছিলেন। ওইদিন বাড়ি ফিরতে সন্ধ্যা হয়। এ সময় নাতনী খাবার ঘরে চিৎকার করছিল। আমার উপস্থিতি বুঝতে পেরে লাদেন দৌড়ে পালিয়ে যায়। তিনি আরো বলেন, আমার চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসে। এরপর লাদেনের বাবা আলম আমার নাতনীকে নিয়ে পতœীতলা উপজেলার নজিপুরে এক ডাক্তারের কাছে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বাড়িতে নিয়ে এসে আটকে রাখে। আর কোন ধরণের মামলা না করার জন্য হুমকি দেয়। মেয়েটির অবস্থা খারাপ হতে থাকলে রবিবার পালিয়ে গিয়ে মহাদেবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করানো হয়। এরপর ওইদিনই নওগাঁ সদর হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

নওগাঁ সদর হাসপাতালের মেডিক্যাল অফিসার ডা. দিলরাজ বানু বলেন, শিশুটিকে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে। রক্তাক্ত ও সামান্য একটু কাটা ছিল। শিশুটা ভয়ে আছে। চিকিৎসা চলছে। বুধবার বিকেলে এব্যাপারে মহাদেবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ সাবের রেজা আহমেদের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ ব্যাপারে এখনো কেউ কোন অভিযোগ করেনি। তবে অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: