১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

যশোরে বসতবাড়ির ছাদে টমেটো চাষ

প্রকাশিত : ৪ ডিসেম্বর ২০১৬
  • ১০ মাসে মোট ২০ মণ টমেটো বাজারে বিক্রি

স্টাফ রিপোর্টার, যশোর অফিস ॥ জনপ্রিয় এক সবজির নাম টমেটো। আমাদের দেশে এখন ব্যাপকহারে এর চাষ হয়। টমেটো মূলত: শীতকালীন সবজি হলেও গ্রীস্ম ও বর্ষাকালে এর চাষাবাদ শুরু হয়েছে বেশ আগে থেকেই। স্বল্প পরিসরে আর কম পরিশ্রমে বসত বাড়ির ছাদেও যে টমেটোর চাষ করা যায় তার দৃষ্টান্ত রেখেছেন যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার চ-িপুর গ্রামের এক দম্পতি। তাদের এই কর্মকা- দেখতে প্রতিদিনই ভিড় করছেন গ্রামবাসী। সম্প্রতি ঘুরে গেছেন কৃষি বিভাগের কর্মকর্তারাও। উপজেলার চ-িপুর গ্রামের কৃষক পরিবারের সন্তান ইমদাদুল হক পান্নু দীর্ঘ ২৩ বছর বিদেশে কাটিয়ে বছর আটেক হলো দেশে ফিরেছেন। দীর্ঘ এ সময় তিনি দুবাই ৫ বছর আর মালয়েশিয়ায় ১৮ বছর থেকেছেন। মালয়েশিয়ায় একটি এসি কোম্পানিতে চাকরির সুবাদে পরিচয় ঘটে মাছনিয়া নামে ইন্দোনেশিয়ার এক মেয়ের সাথে। পরিচয় থেকে ঘটে পরিণয়। মাছনিয়া এখন পান্নুর সহধর্মিণী। বিদেশী হলেও বাঙালী স্বামীর কাছ থেকে রপ্ত করে নিয়েছেন বাংলা ভাষা। ৩৭ বছরের মাছনিয়া এখন বাংলায় কথা বলেন বাধাহীনভাবেই। ব্যতিক্রম চিন্তাধারার এই মেয়েটির মাথা থেকেই প্রথমে আসে ছাদে চাষাবাদ করার ব্যতিক্রমী এই চিন্তাটি। ইমদাদুল হক পান্নু জানান, গত বছর তার বিদেশী বধূ মাছনিয়া টমেটোর বীজ সংগ্রহ করে প্রথমে ২০ চাড়িতে (মাটির তৈরি পাত্র) চাষ করেন। ফলন ভাল হওয়ায় দুজন মিলে এ বছর আরও ৬০টি চাড়িতে টমেটো চাষ করেন। গত ১০ মাসে মোট ২০ মণ টমেটো বাজারে বিক্রি করেছেন তারা। পান্নু বলেন, এ চাষে বেশি পরিশ্রম করতে হয় না। কোন ধরনের ওষুধ ব্যবহার করি না। গত ১০ মাসে মাত্র দু’বার হরমন ব্যবহার করেছি। বলা যায় কম পরিশ্রমে বেশি লাভ। তিনি জানান, সপ্তাহে দু’বার টমেটো তুলে স্থানীয় খাজুরা হাটে তা বিক্রি করেন। গত হাটে ৬৫ টাকা কেজি দরে টমেটো বিক্রি করেছেন বলেও জানান তিনি। হাস্যোজ্জ্বল ভিনদেশী মেয়ে মাছনিয়া বেগম বলেন, ‘চাচাবাদ করতে ভাল লাগে। তাছাড়া ছংসার ছচ্ছল হয়’। এই কথা বলেই মুখ লুকিয়ে ফেলেন। উপজেলার কৃষি কর্মকর্তা জাহিদুল আলম বলেন, আমরা দেখেছি। কৃষক দম্পতির এ উদ্যোগ প্রশংসনীয়। এ ব্যাপারে প্রযুক্তিগত সহযোগিতা দিতে প্রস্তুত আছি। সবমিলিয়ে পান্নু-মাছনিয়ার এ ব্যতিক্রমী ভাবনায় রীতিমতো চমক সৃষ্টি হয়েছে। অন্যরাও তাদের অনুসরণ করবেন বলে জানিয়েছেন অনেকে।

প্রকাশিত : ৪ ডিসেম্বর ২০১৬

০৪/১২/২০১৬ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: