মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৮ আশ্বিন ১৪২৪, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

আমিরকে কুকের সতর্কবার্তা

প্রকাশিত : ৫ জুলাই ২০১৬

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ইংল্যান্ড সফরে পাকিস্তানের মাঠের দ্বৈরথ যত ঘনিয়ে আসছে মোহাম্মদ আমিরকে নিয়ে আলোচনা ততই তুঙ্গে। কারণটা অনুমেয়। ২০১০ সালে লর্ডস টেস্টে স্পট ফিক্সিংয়ে জড়িয়ে পাঁচ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছিলেন প্রতিভাবান এই পেসার। শাস্তি ভোগের পর বছরের শুরুতে নিউজিল্যান্ড সফরে ওয়ানডে-টি২০ দিয়ে ফিরেছেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। কাকতালীয়, সেই লর্ডস দিয়ে এবার টেস্টে ফেরার পালা...। মাঠ ও মাঠের বাইরে আমিরকে বিরূপ পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে হবে বলে সতর্ক করে দিয়েছেন এ্যালিস্টার কুক। স্বাগতিক ইংল্যান্ড টেস্ট অধিনায়ক বলেন, আমি নিশ্চিত মাঠে আমিরকে কিছু প্রতিক্রিয়ার শিকার হতে হবে। দুয়ো শুনতে হবে। সেটা অনুচিত কিছু নয়। সেটা তার জন্য অবিচ্ছেদ্য অংশ। যখন আপনি ম্যাচ পাতানোর মতো কাজ করবেন তখন নিষেধাজ্ঞা ও শাস্তির বাইরেও সেটার জের আপনাকে টানতেই হবে। তাকে এগুলোর সঙ্গে মানিয়ে নিতে হবে। তার নতুন করে চলার পথে যা কিছু আসুক সেগুলো সহ্য করে এগিয়ে যেতে হবে।

এর আগে কুক বলেছিলেন, যারা ম্যাচ পাতানোর সঙ্গে জড়িত হয় তাদের আর ক্রিকেটে ফিরতে দেয়া উচিত নয়। তবে তিনি আমিরের ঘটনাটিকে ভিন্নভাবে ব্যাখ্যা করেন, আমিরের বয়স কম। তাছাড়া তিনি নিষেধাজ্ঞা ও শাস্তি ভোগ করে দারুণভাবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরে এসেছেন। তার বয়স কম এবং অমিত সম্ভাবনাময়। তাই আমিরকে আরও একবার সুযোগ দেয়া যায়। এদিকে পাকিস্তান টেস্ট অধিনায়ক মিসবাহ-উল হকের বিশ্বাস প্রতিকূলতা পেছনে ফেলে আমির বিশ্বের এক নম্বর বোলারে পরিণত হবে, ওর বলের গতি, সুইং এবং নিয়ন্ত্রণের দিকে তাকালেই বোঝা যাবে কি হচ্ছে। আমির এখনও বিশ্বসেরা বোলার হওয়ার যোগ্যতা রাখে। আমার বিশ্বাস ও সে পথেই এগোচ্ছে। পারফর্ম করেই আমির সবার মন জয় করবে বলে মনে করেন মিসবাহ, ওর (আমিরের) জীবনে যাই হোক না কেন, সে প্রত্যাবর্তনের জন্যই খেলে যাচ্ছে, এবং সেটা ভালভাবেই করছে। এত ধকল কাটিয়ে ফেরার পর (ওয়ানডে-টি২০) কি দুর্দন্ত বোলিংটাই না করে যাচ্ছে। এমন বোলিং করা একজনের গ্যালারির আওয়াজ (মন্তব্য) শোনার দরকার নেই। বল হাতেই সে এসব নিয়ন্ত্রণ করবে।

ইংল্যান্ড সফরে পাকিস্তান চার টেস্টে সিরিজ ছাড়া পাঁচ ওয়ানডে ও একটি টি২০ খেলবে। ১৪ জুলাই লর্ডস টেস্ট দিয়ে শুরু ময়দানী লড়াই। তার আগে রয়েছে তিনটি প্রস্তুতি ম্যাচ। টনটনে প্রথম তিন দিনের প্রস্তুতিতে মিসবাহদের প্রতিপক্ষ কাউন্টি দল সমারসেট। আমির তার দূরন্ত পেস আক্রমন দিয়ে ইংলিশ ব্যাটিং লাইনআপ গুঁড়িয়ে দেবে, এমনটা বিশ্বাস মিসবাহর। আমিরকে ইংল্যান্ড কেমন ভাবে নেয়? এ নিয়েও আলোচনার কমতি নেই। আমির নিজেও বল হাতে জবাব দিতে চান, এরই মধ্যে ওয়ানডে-টি২০ খেলেছি। কিন্তু টেস্টে সঙ্গে তার তুলনা হয় না। এটাই হবে আমার সত্যিকারের ফেরা। আমি ফের লর্ডসের অনার্স বোর্ডে নাম তুলতে চাই। ইংলিশ ক্রিকেটপ্রেমীদের সমর্থনও ফিরে পেতে চাই। আমি তৈরি।

২০১০Ñএ আলোচিত ওই সিরিজে ১৮ বছর বয়সে নিজের প্রথম ইংল্যান্ড সফরে এই লর্ডসেই ৮৪ রান দিয়ে ৬ উইকেট নিয়ে ইতিহাসের সর্বকনিষ্ট খেলোয়াড় হিসেবে অনার্স বোর্ডে নাম লিখিয়েছিলেন। ১৯ উইকেট নিয়ে ছিলেন সিরিজে পাকিস্তানের শীর্ষ শিকারি, যৌথভাবে পেয়েছিলেন ‘ম্যান অব দ্য সিরিজ’র পুরস্কারও।

প্রকাশিত : ৫ জুলাই ২০১৬

০৫/০৭/২০১৬ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: