২১ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

জঙ্গী নির্মূলে সর্বাত্মক সহযোগিতায় প্রস্তুত যুক্তরাষ্ট্র


বিশেষ প্রতিনিধি ॥ গুলশানে ক্যাফেতে জঙ্গী হামলার প্রেক্ষাপটে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ফোন করে সন্ত্রাস নির্মূলে বাংলাদেশকে সব ধরনের সহযোগিতা দিতে প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের পক্ষ থেকে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি রবিবার রাতে টেলিফোন করে প্রধানমন্ত্রীকে এ কথা জানান বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম। তিনি বলেন, জঙ্গীবাদের বিষয়ে অনুসন্ধানমূলক তথ্য দিয়ে বাংলাদেশকে সহযোগিতা করতেও আগ্রহ দেখিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা এই সন্ত্রাসী হামলার নিন্দা ও সহানুভূতিও জানিয়েছেন।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল হক জনকণ্ঠকে জানান, রাত ৮টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের পক্ষ থেকে ফোন করেন দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি। তাদের মধ্যে প্রায় ১২ মিনিট কথা হয়।

প্রেস সচিব জানান, মার্কিন প্রেসিডেন্টের পক্ষ থেকে জন কেরি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বলেন, সন্ত্রাসী ও জঙ্গী নির্মূলে বাংলাদেশকে যেকোন ধরনের সহযোগিতা করতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সব সময় প্রস্তুত রয়েছে। জবাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, অনুসন্ধানমূলক তথ্য দিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশকে সহযোগিতা করতে পারে।

জন কেরিকে প্রধানমন্ত্রী আরও জানান, জঙ্গীবাদ ও সন্ত্রাসবাদ মোকাবেলার জন্য তার সরকার পুলিশের ‘কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট’ গঠন করছেন। প্রধানমন্ত্রী সব সময় বাংলাদেশের পাশে থাকার জন্য বারাক ওবামাকে ধন্যবাদও জানান।

এদিকে বাসস জানায়, ঢাকার গুলশানের একটি ক্যাফেতে জঘন্য সন্ত্রাসী হামলার জন্য দায়ীদের বিচারের আওতায় আনার প্রচেষ্টায় যুক্তরাষ্ট্র সহযোগিতার প্রস্তাব দিয়েছে। বাংলাদেশে সহিংস সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অঙ্গীকারের সমর্থনে যুক্তরাষ্ট্র এই সহযোগিতার প্রস্তাব দেয়।

ইউএস এসিস্টেন্ট সেক্রেটারি এ্যান্ড ডিপার্টমেন্ট স্পোকসপার্সন, ব্যুরো অব পাবলিক এ্যাফেয়ার্স জন কারবি শনিবার বলেন, আমরা বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ রক্ষা করছি এবং ওই হামলায় জড়িতদের আইনের আওতায় আনার প্রচেষ্টায় আমাদের সহায়তার প্রস্তাব দিয়েছি।

এক বিবৃতিতে তিনি ‘ঢাকায় বর্বর সন্ত্রাসী কার্যক্রমের’ কঠোর নিন্দা জানান এবং বিশ অথবা বিশ জনের অধিক নিহত এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নিহত সদস্যদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা ও শোক জানান।

বিবৃতিতে তিনি বলেন, আমরা নিশ্চিত হয়েছি যে, এই বর্বর হামলায় নিহতদের মধ্যে একজন মার্কিন নাগরিক রয়েছেন।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: