মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২২ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৭ আশ্বিন ১৪২৪, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

আইসিসি সভায় কয়েক সিদ্ধান্ত

প্রকাশিত : ৪ জুলাই ২০১৬

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ এডিনবরায় আইসিসির (ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল) এবারের সভাটি বেশ আলোচিত। বিশেষ করে দ্বিস্তরবিশিষ্ট টেস্টসহ আরও কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রস্তাবনার কারণে। তবে আপাতত দ্বিস্তর টেস্টের প্রচলন হচ্ছে না, এজন্য সংস্থাটি সময় নেবে। সপ্তাহব্যাপী চলা বার্ষিক সভায় ইতোমধ্যে যে সিদ্ধান্তগুলো উঠে এসেছেÑ

দ্বিস্তরবিশিষ্ট টেস্ট এখনই নয় ॥ প্রস্তাব অনুযায়ী দশ টেস্ট খেলুড়ে দেশকে দু-ভাগে ভাগ করার কথা বলা হয়েছিল। সেক্ষেত্রে র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ সাত দেশ ‘প্রথম’ ও শেষের তিনটির সঙ্গে দুটি সহযোগী মিলিয়ে করা হতে ‘দ্বিতীয়’ স্তর। বাংলাদেশ আগে থেকেই এর বিরোধিতা করে, আন্তর্জাতিক সংবাদ সূত্রে জানা যায় এশিয়ার পরাশক্তি ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা ও জিম্বাবুইয়েও এই দলে। আপাতত তাই সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি আইসিস। প্রধান নির্বাহী ডেভ রিচার্ডসন বলেন, ‘বিভিন্ন দিক দিয়েই দ্বিস্তর টেস্ট বাস্তবায়ন জটিল বিষয়। তবে এ পর্যন্ত যতটুকু অগ্রগতি হয়েছে তাতে আমি খুশি। দুবাইয়ে পরবর্তী সভার দিকে তাকিয়ে আছি।’

এলবিডব্লিউ (ডিআরএস পদ্ধতি) ॥ ‘নিখুঁত নয়’Ñ অযুহাতে ভারতের বিরোধিতার কারণে আইসিসি এখনও ডিআরএস (ডিসিশন রিভিউ সিস্টেম) বাধ্যতামূলক করতে পারেনি। তবে এলবিডব্লিউর ক্ষেত্রে কিছুটা সংশোধনী আনা হয়েছে। এতদিন স্টাম্প বরাবর অন্তত অর্ধেক বল (ব্যাটসম্যানের মিসিং হওয়া) স্টাম্পে আঘাত করলে আম্পায়ার ব্যাটসম্যানের পক্ষে রায় দিতেন। সেই আইনটি আর বহাল থাকছে না। এখন থেকে সেটিতে আম্পায়ার আউটের সিদ্ধান্ত দেবেন। ব্যাটসম্যানদের শ্বাসনের এই যুগে বোলারদের সুবিধার (বেনিফিট) কথা চিন্তা করে এলবিডব্লিউর ক্ষেত্রে নতুন এই নিয়ম প্রবর্তিত হচ্ছে। আগামী অক্টোবর থেকেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এটি বাস্তবায়ন হবে বলে আইসিসির বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

ব্রিটিশ স্ট্যান্ডার্ড হেলমেট ॥ ফিলিপ হিউজেসের অকাল মৃত্যুর পর থেকেই ব্যাটসম্যানদের হেলমেট নিয়ে ব্যাপক আলোচনা হচ্ছে। সভায় সাধারণের পরিবর্তে ব্রিটিশ স্ট্যান্ডার্ড হেলমেট ব্যবহারের পরামর্শ দেয়া হয়েছে। কারণ ব্যাটসম্যানের ঘাড়ের সঙ্গে এটির গ্রিলের ব্যবধান কম, যা অনেকটা নিরাপদ। দু-দিকে এ্যাডজাস্টেবল নয় বলে নড়াচড়াও করে কম। বল হেলমেটের ফাঁক গলে ভেতরে ঢুকতে পারে না। তাই ক্রিকেটারদের এটি ব্যবহারে আগ্রহী করতে বলা হয়েছে। সহযোগী দেশগুলোকে অনুরোধ করা হয়েছে, যাতে ব্রিটিশ স্ট্যান্ডার্ড হেলমেটের কার্যকরিতার বিষয়ে ক্রিকেটারদের ধারণা দেয়া হয়।

নতুন সহযোগী সৌদি আরব ॥ ৩৯তম সহযোগী দেশ হিসেবে সৌদি আরবের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। আইসিসির চেয়ারম্যান শশাঙ্ক মনোহর বলেন, ‘সহযোগী সদস্য হওয়ায় সৌদি ক্রিকেট সেন্টারকে (এসসিসি) আমি অভিনন্দন জানাই। আমার বিশ্বাস তারা নিজস্ব ভূ-খ-ে ক্রিকেটের ব্যাপকতা বৃদ্ধিতে ও উন্নয়নে ইতিবাচক এবং সক্রিয় ভূমিকা পালন করবে।’ সৌদি ২০০৩ সাল থেকেই আইসিসির সঙ্গে সম্পৃক্ত। দেশটি ২০১৫ সালের আইসিসির ডেভেলপমেন্ট কমিটির সভায় সহযোগী দেশ হতে আবেদন করে। তারই প্রেক্ষিতে আইসিসি তাদের কাজে সন্তুষ্ট হয়ে অবশেষে সহযোগী দেশ হিসেবে ঘোষণা দিল।

সভায় আইসিসির বর্তমান সিইও ডেভ রিচার্ডসনের দায়িত্ব ২০১৯ সাল পর্যন্ত নবায়ন করা হয়েছে, আলোচনায় থাকছে ২০২২ কমনওয়েলথ গেমসে নারী ক্রিকেট অন্তর্ভুক্তির বিষটিও।

প্রকাশিত : ৪ জুলাই ২০১৬

০৪/০৭/২০১৬ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



শীর্ষ সংবাদ: