২০ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

জঙ্গীদের শেকড় খুঁজে বের করা হবে ॥ প্রধানমন্ত্রী


জঙ্গীদের শেকড় খুঁজে বের করা  হবে ॥ প্রধানমন্ত্রী

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গুলশানের রেস্তরাঁয় সন্ত্রাসী হামলাকে ‘অনাকাক্সিক্ষত ও অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক’ অভিহিত করে বলেছেন, যে সন্ত্রাসীরা এই হত্যাযজ্ঞ চালিয়েছে, তাদের ‘শেকড়’ খুঁজে বের করা হবে। কারা তাদের অস্ত্র-বিস্ফোরক দিচ্ছে তাও খুঁজে বের করা হবে।

রবিবার বাংলাদেশের অন্যতম উন্নয়ন সহযোগী দেশ জাপানের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সিইজি কিহারা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তাঁর সরকারী বাসভবন গণভবনে সাক্ষাত করতে গেলে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন। সাক্ষাত শেষে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের বলেন, সাক্ষাতকালে ধর্ম যাজকসহ সাম্প্রতিক বিভিন্ন গুপ্তহত্যা-হামলার ঘটনা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সন্ত্রাসীরা এর আগে গুপ্তহত্যা চালিয়েছে এবং পুরোহিত, ফাদারস ও ভিক্ষুদের টার্গেট করেছে। যারা এসব হামলা করেছে, তাদের অনেককেই গ্রেফতার করা হয়েছে। গুলশানের জঙ্গী হামলার সঙ্গে জড়িতদেরও শেকড় খুঁজে বের করা হবে। জাপানের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের সময় ফ্রান্স, বেলজিয়াম, ভারত ও জাপানে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনাও তুলে ধরেন শেখ হাসিনা।

প্রেস সচিব বলেন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী ও জাপানের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী উভয়েই সন্ত্রাসী কর্মকা-ের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে লড়াই করার কথা বলেছেন। সন্ত্রাসী হামলায় নিহত জাপানীদের মরদেহ ময়নাতদন্ত শেষে হস্তান্তর করা হবে বলেও দেশটির পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীকে জানান প্রধানমন্ত্রী।

ব্রিফিংকালে ইহসানুল করিম আরও জানান, সন্ত্রাসী হামলায় হতাহতের ঘটনায় জাপানের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সেইজি কিহারা গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। মৃতদেহগুলো পরিবারের সদস্যদের কাছে হন্তান্তর করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

গুলশানের হামলার ঘটনায় যথাযথ পদক্ষেপ নেয়ায় জাপানের প্রতিমন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। বাংলাদেশ ও জাপানের মধ্যে অর্থনৈতিক সহযোগিতার ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকবে বলেও দুই পক্ষই বৈঠকে আশা প্রকাশ করে বলে জানান প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব।

সাক্ষাতকালে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব আবুল কালাম আজাদ এবং ঢাকায় জাপানের রাষ্ট্রদূত মাসাতো ওয়াতানাবে উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার রাতে গুলশান ২ নম্বরের হলি আর্টিজান রেস্তরাঁয় সন্ত্রাসী হামলায় নিহতদের মধ্যে জাপানের সাতজন নাগরিক রয়েছেন। নিহত সাত জাপানীর মধ্যে ছয়জনই মেট্রোরেল প্রকল্পের সমীক্ষা কাজে নিয়োজিত ছিলেন। তাদের সঙ্গে ওই রেস্তরাঁয় ছিলেন আরও এক জাপানী, যাকে কমান্ডো অপারেশন করে উদ্ধার করা হয়।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: