২৪ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ইউপি নির্বাচনের জের হবিগঞ্জে সন্ত্রাসী হামলায় স্বেচ্ছাসেবক নেতাসহ আহত ৭৫


নিজস্ব সংবাদদাতা, হবিগঞ্জ, ৩ জুলাই ॥ ইউপি নির্বাচনে জয়-পরাজয় নিয়ে সৃষ্ট বিরোধের জের ধরে রবিবার দুপুরে নবীগঞ্জের পল্লী কুর্শিতে সন্ত্রাসী হামলা এবং পরবর্তীতে দু’পক্ষের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংর্ঘষে নব-নির্বাচিত সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার ও স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি আল-আমিন খানসহ আহত হয়েছে ৭৫ জন। নেতা আল-আমিন ও লন্ডন প্রবাসী রানা চৌধুরীসহ অন্তত ৮ জনকে মুমূর্ষু অবস্থায় সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এছাড়া আরও বেশ কয়েকজনকে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালসহ স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, সম্প্রতি অনুষ্ঠিত ৫ম দফা ওই নির্বাচনে কুর্শি গ্রামের ৫নং ওয়ার্ড থেকে মেম্বার পদে বিপুল ভোটে বিজয়ী হন সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি আল-আমিন। তবে তা মেনে নিতে পারেননি একই পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী প্রার্থী সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি সৈয়দ নজমুল হোসেন হারুন ও তার লোকজন। এ নিয়ে সংশ্লিষ্ট গ্রামে চলছিল চাপা উত্তেজনা। শুধু তাই নয়, লন্ডন প্রবাসী বিএনপি নেতা রানা মিয়া চৌধুরীও নাকি হারুনকে ভোট না দেয়ায় তাকেও দেখে নেয়ার হুমকি দেয় হারুনের লোকজন। এমনি পরিস্থিতিতে রবিবার বেলা ১১টার দিকে আওয়ামী লীগ নেতা আল-আমিন কুর্শি বাস স্ট্যান্ডে তার ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানের সম্মুখে আসামাত্র চাইনিজ কুড়ালসহ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত থাকা হারুন ও তার লোকজন আল-আমিনের ওপর হামলা চালায়। এসময় উপর্যুপরি কুপিয়ে আল-আমিনকে ক্ষতবিক্ষত করে সন্ত্রাসীরা। এদিকে এই খবর পেয়ে আল-আমিনের পক্ষাবলম্বনকারী লোকজন ঘটনাস্থলে ছুটে আসলে উভয় পক্ষের মধ্যে সংর্ঘষ বেঁধে যায়। প্রায় ঘণ্টাব্যাপী এই সংর্ঘষ চলাকালে দোকানপাট ও যান চলাচল বন্ধ হবার পাশাপািশ পুরো এলাকা এক রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।