২৪ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

ঝিনাইদহে মঠের সেবায়েতকে কুপিয়ে হত্যা


ঝিনাইদহে মঠের সেবায়েতকে কুপিয়ে হত্যা

এম রায়হান, ঝিনাইদহ থেকে ॥ ঝিনাইদহ সদর উপজেলার উত্তর কাষ্টসাগরা মঠের সেবায়েত শ্যামানন্দ দাস গোসাইকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। তার বয়স ৫০-৫৫ বছর হবে। শুক্রবার ভোর ৫টা ২০ মিনিটের দিকে তিনি মঠের পাশেই পুজোর ফুল তুলছিলেন। সে সময় মোটরসাইকেলে তিন দুর্বৃত্ত এসে তাকে উপর্যুপরি কুপিয়ে হত্যা করে ফেলে রেখে যায়। খবর পেয়ে ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসক মাহবুব আলম তালুকদার, পুলিশ সুপার আলতাফ হোসেনসহ প্রশাসনের পদস্থ কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। ক’দিন আগে ঝিনাইদহে পুরোহিত আনন্দ গোপাল হত্যাকা-সহ সাম্প্রতিক দেশে বিভিন্ন হত্যাকা-ের সঙ্গে এ হত্যাকা-ের মিল আছে বলে তাদের ধারণা। নিহত শ্যামানন্দ দাস নড়াইল সদর উপজেলার মুশুড়ী গ্রামের কিরণ দাসের ছেলে। তিনি ৪ বছর আগে ঝিনাইদহের উত্তর কাষ্টসাগরা গ্রামের শ্রীশ্রী রাধা মদন গোপাল বিগ্রহ মঠে আসেন। এরপর থেকে মঠের সেবায়েত হিসেবে কাজ করতেন।

প্রত্যক্ষদর্শী দিপালী রানী বলেন, খুব সকালে আমি মাঠে কলাই তুলতে যাচ্ছিলাম। সামনেই দেখি মোটরসাইকেলে তিনজন লোক। তাদের মুখ বাঁধা ছিল। এ সময় তারা মাত্র ৫ হাত দূরে দাঁড়িয়ে থাকা আমাদের গোসাইয়ের পেছন দিক থেকে কোপানো শুরু করে। তারা তার মাথায় কোপাতে থাকে। গোসাই বাবা-মা বলে চিৎকার করতে থাকে। আমিও চিৎকার করতে থাকি। অল্প সময়ের মধ্যে তাকে কুপিয়ে ফেলে রেখে তারা তিনজনই মোটরসাইকেলে করে চলে যায়। আমি দেখে ভয়ে আতঙ্কে পাশের পুকুরে ঝাঁপ দিই। এরপর তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বলে জানান।

মঠ দেখাশোনা করেন সুশীলা রায়। তিনি বলেন, প্রতিদিন গোসাই ফুল তুলে পুজো দেন। আমরা তার ভক্তি করি। তিনি ভাল মানুষ। সকালে মঠের পাশেই ফুল তুলছিলেন। হঠাৎ হৈচৈ শুনে দৌড়ে গিয়ে দেখি গোসাই পড়ে আছেন। আমরা হত্যাকা-ের বিচার দাবি করছি।

জেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট সুবীর সমাদ্দার জানান, আমরা এ হত্যাকা-ের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। অবিলম্বে হত্যাকারীদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান তিনি।

ঝিনাইদহ পুলিশ সুপার আলতাফ হোসেন বলেন, শুক্রবার সকাল ৫টা ২০ মিনিটের সময় সেবায়েত শ্যামানন্দ দাস গোসাই মঠে পুজো দেয়ার জন্য পাশেই ফুল তুলছিলেন। সে সময় একটি মোটরসাইকেলে তিন দুর্বৃত্ত এসে তাকে উপর্যুপরি কুপিয়ে ফেলে রেখে যায়। স্থানীয় লোকজন তাকে দ্রুত উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে নিলে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এর আগে ঝিনাইদহে পুরোহিত হত্যাকা-ের সঙ্গে শিবির জড়িত ছিল। এ ঘটনা কারা ঘটিয়েছে, তা অতিদ্রুত বের করা হবে। তবে আগের হত্যাকা-ের সঙ্গে এর লিংক আছে বলে তিনি জানান।

ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসক মাহবুব আলম তালুকদার বলেন, হত্যাকা-ের ধরন দেখে মনে হচ্ছে আগের কিলিংগুলোর সঙ্গে মিল আছে। পুরোহিত হত্যাকা-ের সময়ও তিনজন মোটরসাইকেলে এসেছিল। এবারও প্রত্যক্ষদর্শীরা তাই বলছেন। তদন্তে সব বের হয়ে আসবে বলে তিনি জানান।

উল্লেখ্য, গত ৭ জুন ঝিনাইদহ সদর উপজেলার করাতিপাড়া গ্রামের পুরোহিত আনন্দ গোপাল গাঙ্গুলীকে দুর্বৃত্তরা কুপিয়ে ও গলা কেটে হত্যা করে। এ হত্যাকা-ের ঘটনায় এনামুল হক নামে একজন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছে। এ হত্যাকা-ের ব্যাপারে পুলিশ বলেছে, শিবিরের কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পুরোহিত আনন্দ গোপাল গাঙ্গুলীকে হত্যা করা হয়।

নড়াইলের মুশুড়ী গ্রামে চলছে শোকের মাতম

নিজস্ব সংবাদদাতা নড়াইল থেকে জানান, ঝিনাইদহের কাষ্টসাগর রাধামদন গোপাল মঠের সেবায়েত শ্যামানন্দ দাস হত্যার ঘটনায় তার গ্রামেরবাড়ি নড়াইলের মুশুড়ী গ্রামে চলছে শোকের মাতম। নিহতের স্বজনদের আহাজারিতে গ্রামজুড়ে শোকের নিস্তব্ধতা নেমে এসেছে। হত্যাকা-ের খবর শুনে আশপাশের এলাকার আত্মীয়স্বজনরা বাড়িতে ছুটে এসেছেন। প্রতিবেশীরাও সমবেদনা জানাতে এসে কান্নায় ভেঙ্গে পড়ছেন। অসুস্থ বৃদ্ধ মা চারুবালা সরকার নির্বাক হয়ে বসে আছেন। শ্যামানন্দের বাবা মারা গেছেন অনেক আগেই।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, নিহত শ্যামানন্দ দাস মুশুড়ী গ্রামের কিরণ দাসের ছোট ছেলে। বাবা মায়ের দেয়া নাম প্রদ্যোৎ সরকার। দুই বোন ও চার ভাইয়ের মধ্যে ছোট প্রদ্যোৎ সরকার বাল্যকালে ধর্মীয় শিক্ষা-দীক্ষার জন্য বাড়ি থেকে বেরিয়ে পড়েন। এরপর বিভিন্ন স্থানে সেবায়েতের দায়িত্ব পালন শেষে তিন বছর আগে ঝিনাইদহের কাষ্টসাগর রাধামদন গোপাল মঠের সেবায়েতের দায়িত্ব পালন করেন। অবিবাহিত শ্যামানন্দ দাস মন্দিরের সেবার জন্য নিজেকে নিয়োজিত করেন। সময় পেলে মাঝে মধ্যে তিনি বাড়িতে আসতেন। বাড়িতে এসে পরিবারের সদস্যদের এবং হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের মাঝে ধর্মীয় বিষয়াদি নিয়ে আলোচনা করতেন।

নিহতের ভাবি তৃষ্ণা সরকার জানান, বৃহস্পতিবার রাতে ফোনে সর্বশেষ কথা হয়েছে। তিন মাস আগে বাড়িতে বেড়াতে এসেছিল। তার ভাইয়ের ছেলে বিদেশ থেকে বাড়িতে এসেছে। তার সঙ্গে দেখা করার জন্য শুক্রবার সকালে শ্যামানন্দের গ্রামের বাড়িতে আসার কথা ছিল। কিন্তু জীবিত আর ফেরা হলো না। ভোরে মোবাইলের মাধ্যমে মৃত্যুর খবর পেয়েছি।

নওগাঁয় নিন্দা ॥ নিজস্ব সংবাদদাতা নওগাঁ থেকে জানান, ঝিনাইদহে মন্দিরের পুরোহিত আনন্দ গোপাল গাঙ্গুলী ওরফে নন্দ ঠাকুরের হত্যাকারীদের গ্রেফতার বা ঘটনার রহস্য উদ্ঘাটন না হতেই শুক্রবার সকালে ঝিনাইদহে মঠের সেবায়েত শ্যামানন্দ দাসকে নৃশংসভাবে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। দেশব্যাপী চলমান এসব গুপ্তহত্যার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও উদ্বেগ প্রকাশ করেছে নওগাঁ জেলা পূজা উদযাপন পরিষদ। পরিষদের জেলা সভাপতি নির্মল কৃষ্ণ সাহা, সহসভাপতি বিশ্বজিৎ সরকার মনি ও সাধারণ সম্পাদক বিভাস মজুমদার গোপাল প্রদত্ত বিবৃতিতে ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্ত্রাসীদের অবিলম্বে গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: