২৩ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

সিপিএলে ভাল কিছু করতে চান সাকিব


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ গতবার খেলতে পারেননি জাতীয় দলের সঙ্গে ব্যস্ত সময়সূচী থাকার কারণে। আর তার আগের বছর ছাড়পত্র জটিলতায় খেলা হয়নি। ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লীগ (সিপিএল) টি২০ এবার শুরু থেকেই খেলবেন বাংলাদেশের অন্যতম সেরা ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান। প্রায় সপ্তাহখানেক আগেই ক্যারিবিয়ান দ্বীপপুঞ্জে পৌঁছেছেন তিনি। বার্বাডোজে থাকার সময় ভক্ত সমর্থকদের উদ্দেশে একটি ভিডিও বার্তাও দিয়েছেন। সেখানে তিনি সবার সমর্থন চেয়েছেন নিজের জন্য ও তার দল জ্যামাইকা তালওয়াহসের জন্য। এছাড়া বার্তায় তিনি দারুণ কিছু করার প্রত্যয় জানিয়েছেন। আজই নিজেদের প্রথম ম্যাচে তারা সেন্ট কিটস এ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টসের বিপক্ষে মাঠে নামবে। রাত ১০টায় ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে সেন্ট কিটসে।

টি২০ র‌্যাঙ্কিংয়ে কিছুদিন আগেও সেরা অলরাউন্ডার ছিলেন সাকিব। তবে আপাতত তার ওপরে আছেন অবসর নেয়া অস্ট্রেলিয়ার অলরাউন্ডার শেন ওয়াটসন। ৩৭৩ রেটিং নিয়ে সবার ওপরে আছেন তিনি, আর সাকিবের রেটিং ৩৪৬! বিশ্বকাপ এবং এরপরে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগ (আইপিএল) টি২০ আসরে তেমন সুবিধা করতে পারেননি সাকিব। তবে ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট খেলে নিজেকে মোটামুটি ফিরে পেয়েছেন। এরপরই সিপিএল টি২০ খেলতে গেছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজে। নিজের ক্লাব জ্যামাইকা তালওয়াহসের সঙ্গেই আছেন। বার্বাডোজের হিলটন হোটেলে থাকার সময় এক ভিডিও বার্তায় তিনি নিজের ফেসবুকে পেজে ভক্ত সমর্থকদের সঙ্গে অভিজ্ঞতা ভাগাভাগি করেছেন। এ বিষয়ে সাকিব বলেন, ‘এখানে আমার অনেক স্মৃতি আছে। ২০০৭ সালে প্রথম যখন আমি এই ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে আসি, সেটা বিশ্বকাপ খেলতে এসেছিলাম। ওই দলের যত সদস্য ছিল আমার মনে হয় কেউ এই জায়গাটার কথা ভুলতে পারবে না যতদিন বেঁচে থাকবে। এটা আমাদের পুরো দলের জন্য অনেক বিশেষ এক জায়গা। এখানে আমরা সবাই অনেক কঠোর পরিশ্রম করেছিলাম। ভাল পারফর্মও করেছে অনেকে, দল হিসেবেও করেছি। আমার প্রতি এবং জ্যামাইকা তালওয়াহসের প্রতি সমর্থন অব্যাহত রাখুন। যেহেতু আমি এখন সিপিএলের জন্য এসেছি, আশা করছি ভাল একটা সময় কাটবে এখানে এবং আমি ভাল অবদান রাখতে পারব দলের জন্য।’

সিপিএলের রেকর্ডে এখন পর্যন্ত সেরা বোলিং নৈপুণ্যটি দেখিয়েছেন সাকিবই। প্রথমবার ২০১৩ সালে তিনি বার্বাডোজ ট্রাইডেন্টসের হয়ে খেলেছিলেন। সেবার তিনি ত্রিনিদাদ ও টোবাগো রেড স্টিলের বিপক্ষে ৬ রানে শিকার করেছিলেন ৬ উইকেট। এখন পর্যন্ত সেটাই সিপিএলের সেরা বোলিং। সেই আসরের পর আর খেলারই সুযোগ পাননি সাকিব। এবার ফিরছেন আবার সিপিএলে। প্রথম ম্যাচ থেকেই দলের সঙ্গে থাকছেন তিনি। তবে বারবারেই তার স্মৃতিতে ফিরে আসছে বাংলাদেশ দল এবং ২০০৭ সালের বিশ্বকাপ। কারণ সেটাই প্রথমবার সাকিবের ক্যারিবীয় দ্বীপপুঞ্জ সফর। এ বিষয়ে সাকিব বলেন, ‘যখন আমরা বিশ্বকাপে এখানে এসেছিলাম সেই স্মৃতি কিছুটা ভাগাভাগি করতে চাই। বিশ্বকাপ শেষে আমরা এখানে তিনদিন ছিলাম। সেই তিনদিন এখানে অনেক বেশি অনুশীলন করেছিলাম আমরা যাতে দেশে ফিরে বেশি ছুটি পাই। অনেক মজার মজার ঘটনা ছিল, আমার মনে হয় ওই দলটির যারা অংশ ছিল তারা সবাই জানে ওটা। এখানে সাঁতার থেকে শুরু করে, বোট রাইডিংও হয় এবং সবই আমাদের অংশ নিতে হয় অনুশীলনের অংশ হিসেবে। আরও অনেক ইভেন্ট হয় যার সবটিতে অংশ নিতে হয় এবং কঠোর পরিশ্রম করতে হয়। কিন্তু জায়গাটা বেশ ভাল তাই সবাই অনেক উপভোগ করেছিল। অনেকদিন থাকা হবে। সবাই দোয়া করবেন, আমার জন্য, পরিবারের জন্য, বাংলাদেশ ও বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য।’