২০ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট পূর্বের ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

ভৈরব শহর ইজিবাইকের দখলে


নিজস্ব সংবাদদাতা, ভৈরব ॥ বন্দরনগরী ভৈরব শহরে দিন দিন বেড়েই চলেছে ব্যাটারিচালিত অটো-ইজিবাইকের সংখ্যা। ইতোমধ্যে এ যানের সংখ্যা ছাড়িয়ে গেছে আনুমানিক ৩ হাজার। ফলে ভৈরবের রাস্তাঘাট এখন এ অটো-বাইকের দখলে। লাইসেন্সবিহীন ও অদক্ষ চালকের কারণে নিত্যদিন শহরে যানজটসহ ঘটছে দুর্ঘটনা। এছাড়াও গ্যারেজে এসব অটো-বাইকের ব্যাটারি চার্জ দিতে গিয়ে হতাহতের ঘটনাসহ চুরি হচ্ছে দেশের মূল্যবান স¤পদের শত শত ইউনিট বিদ্যুত। জানা গেছে, উপজেলার শিবপুর, আগানগর, শিমুলকান্দি, গজারিয়া, কালিকাপ্রসাদ, শ্রীনগর ও সাদেকপুরসহ পৌর শহরের সকল রাস্তাঘাট রয়েছে ব্যাটারিচালিত এ অটো -বাইকের দখলে। শিশু-কিশোর ও প্যাডেল চালিত রিক্সা চালকরাই এখন ব্যাটারিচালিত অটো-বাইকের চালক। এদের অধিকাংশই অদক্ষ। ফলে শহরের নিত্যদিন যানজটসহ ঘটছে দুর্ঘটনা। ঢাকা-সিলেট ও ভৈরব-কিশোরগঞ্জ আঞ্চলিক মহাসড়কে দূরপাল্লার বাস, ট্রাকের সাথে অটো-বাইক চালকরা প্রতিযোগিতা করতে গিয়ে অনেক যাত্রী এবং চালক নিজেই হয়েছেন গুরুতর আহত। কেউ কেউ আবার হয়েছেন পঙ্গু। অন্যদিকে ব্যাটারিচালিত অটো-বাইকের সাথে যুক্ত হয়েছে ব্যাটারিচালিত রিক্সা। তাদের গতি আরও বেপরোয়া। এসব রিক্সা দুর্ঘটনার শিকার হলে যাত্রী পড়েন ছিটকে। ফলে এ যান থেকেও রেহাই নেই যাত্রীদের। তাছাড়া স্থানীয় প্রশাসন ও পৌর কর্তৃপক্ষের কঠোর নজরদারি না থাকার ফলে এ পেশায় জড়িয়ে পড়ছে শিশুরাও। এ বাইকটি অন্য যে কোন যানবাহনের তুলনায় হাল্কা, সহজে ও মাটির রাস্তায় চালানো যায়।

ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি ভাস্কর্য দুর্জয় চত্বরে গিয়ে দেখা যায় এসব অটো-বাইকের যানজট থেকে রেহাই পেতে নিয়োজিত ট্রাফিক পুলিশ সড়কের একপাশে রশি টানিয়ে রেখেছেন। তারপরও যানজট নিরসনে রয়েছেন তিনজন পুলিশ। কিন্তু এরপরও ভৈরব বাজার সড়ক থেকে বিপরীত পাশে আসতে হিমশিম খেতে হচ্ছে যাত্রীদের। পুলিশ সদস্য কিছুক্ষণ পর পর অটো-বাইকে লাঠি দিয়ে আঘাত করছেন। এ সময় কথা হয় দশ-এগারো বছর বয়সের রকি নামের এক অটো-বাইক চলকের সাথে, সে জানায়, তার চাচার কাছ থেকে অটো-বাইক চালানো কিছু কিছু শিখেছে। তবে সে সব সময় চালায় না। দরশন সিনেমা হলের সামনে গিয়ে দেখা যায়, একজন অটোবাইক চালক দূরপাল্লার ট্রাকের সাথে প্রতিযোগিতা করছেন।