২২ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৫ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

ইতিহাস বিকৃতি: ঢাবির ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রারকে অব্যাহতি


ইতিহাস বিকৃতি: ঢাবির ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রারকে অব্যাহতি

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার ॥ সাবেক সামরিক শাসক জিয়াউর রহমানকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দিবসের স্মরণিকায় বাংলাদেশের ‘প্রথম রাষ্ট্রপতি’লেখায় বিক্ষোভ-ভাঙচুরের পর ওই প্রকাশনার দায়িত্বে ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার সৈয়দ রেজাউর রহমানকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

শুক্রবার উপাচার্যের কার্যালয়ে নিযুক্ত উপ-রেজিস্ট্রার মুন্সি শামসুদ্দীন আহম্মদ স্বাক্ষরিত এক আদেশে বলা হয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আ ম ম স আরেফিন সিদ্দিক অব্যাহতির এই আদেশ দিয়েছেন।

আদেশে বলা হয়েছে, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) সৈয়দ রেজাউর রহমানকে তার পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হল। আদেশ অবিলম্বে কার্যকর হবে।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামান বলেন, ‘তথ্য বিকৃতি ঘটেছে। এ কারণে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রারকে অব্যাহতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।’

এদিকে রেজাউর রহমানকে অব্যাহতি দেওয়ার পর আন্দোলন স্থগিত করার ঘোষণা দিয়েছে ছাত্রলীগের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা। ছাত্রলীগ নেতারা বলেছেন, আগামী ১৭ জুলাইয়ের মধ্যে এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত বাকিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া না হলে তাঁরা আবারও আন্দোলনে নামতে বাধ্য হবেন।

জিয়াকে প্রথম রাষ্ট্রপতি লেখার কারণে দুপুরে রেজাউর রহমানের কক্ষে তালা দেন ছাত্রলীগের কর্মীরা। দুপুরের পর বিক্ষুব্ধ ছাত্রলীগের কর্মীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বাসভবন ঘেরাও করে রাখেন। একপর্যায়ে উপাচার্য গাড়ি নিয়ে বাসভবনে ঢুকতে গেলে ছাত্রলীগের কর্মীরা গাড়ির কাচ ভাঙচুর করেন।

পরিস্থিতি উত্তপ্ত হলে বিকেল সাড়ে চারটার দিকে রেজাউর রহমানকে অব্যাহতি দিয়ে অফিস আদেশ জারি করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

রেজাউর রহমানকে অব্যাহতি দেওয়া প্রসঙ্গে উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক সাংবাদিকদের বলেন, স্মরণিকায় লেখাটি রেজাউর রহমানের নিজের লেখা। যেহেতু এটা ভারপ্রাপ্ত রেজাউর রহমানের ‘বাইলাইন লেখা’ তাই এর দায়-দায়িত্ব লেখককে বহন করতে হবে। এ কারণে রেজাউর রহমানকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। অবশ্য রেজাউর রহমান এই লেখাকে ‘ছাপার ভুল’ বলে সাংবাদিকদের কাছে উল্লেখ করেছেন।

প্রায় দুই ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে বাসভবন ঘেরাও করার পর ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রারকে অব্যাহতির ঘোষণা এলে ছাত্রলীগ কর্মীরা উপাচার্যের বাসভবনের সামনে থেকে সরে যান।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেন প্রিন্স বলেন, ইতিহাস বিকৃতির চেষ্টা কেউ করলে আন্দোলন থেমে থাকবে না। গাড়ি ভাঙচুর প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এটি বিক্ষুব্ধ ছাত্ররা করেছে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: