২০ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

আজ পবিত্র জুমাতুল বিদা, মসজিদে মুসল্লিদের ঢল


আজ পবিত্র জুমাতুল বিদা, মসজিদে মুসল্লিদের ঢল

অনলাইন রিপোর্টার॥ আজ রমজান মাসের শেষ শুক্রবার তথা পবিত্র জুমাতুল বিদা। মুসলিম উম্মাহর কাছে রমজান মাসের শেষ শুক্রবার একটি পবিত্র দিন। বিভিন্ন মসজিদে এ উপলক্ষে নামাজ আদায় করতে মুসল্লিদের ভিড় বেড়েছে।রমজানকে বিদায় জানাতে এ দিনে মসজিদগুলোতে বিশেষ মোনাজাতের ব্যবস্থা রয়েছে। ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরাও মনে করে থাকেন রহমত, মাগফিরাত ও নাজাতের মাস রমজানের মহিমা জুমাতুল বিদার মধ্য দিয়ে আরো বেশি মহিমান্বিত হয়। দিনটি মুসলিম বিশ্বের কাছে জুমাতুল বিদা নামে পরিচিত। তবে এ দিনটি আল-কুদস দিবস হিসেবেও পালিত হয়।

রমজানের শেষ জুমা হিসেবে মুসলিম উম্মাহর কাছে দিনটির বিশেষ গুরুত্ব ও তাৎপর্য রয়েছে। জুমার দিনের স্বতন্ত্র ফজিলত অনেক বেশি। শুক্রবারকে মুসলমানদের সাপ্তাহিক ঈদ হিসেবে অভিহিত করা হয়েছে।

রমজানের প্রতিটি জুমা ফজিলত ও তাৎপর্যের দিক থেকে অনন্য। বিদায়ী জুমা হিসেবে জুমাতুল বিদার মর্যাদা ও ফজিলত আরো বেশি। পবিত্র কুরআনে জুমার নামাজ আদায়ের তাগিদ দিয়ে আল্লাহ তায়ালা বলেন, ‘হে মুমিনগণ! জুমার দিনে যখন নামাজের জন্য আহ্বান করা হয় তখন তোমরা আল্লাহর স্মরণে ধাবিত হও এবং ক্রয়-বিক্রয় ত্যাগ কর। এটাই তোমাদের জন্য শ্রেয়, যদি তোমরা উপলব্ধি কর।’ (সূরা জুমুআ)

প্রত্যেক মুসলমানের ওপর জুমার নামাজ ফরজ। জুমার দিন ও রাত উভয়টিই ফজিলতপূর্ণ। জুমার দিন এমন একটি মুহূর্ত রয়েছে, যখন দোয়া করলে সরাসরি তা কবুল হয়। ধারণা করা হয়, সে মুহূর্তটি আসর থেকে মাগরিবের মাঝামাঝি কোনো সময়। এছাড়া দুই খুতবার মাঝামাঝি সময়টিও দোয়া কবুলের বিশেষ মুহূর্ত বলে হাদিসে উল্লেখ আছে।

রমজান মাসের সর্বোত্তম রাত লায়লাতুল কদর, আর সর্বোত্তম দিন জুমাতুল বিদা। এদিন মুমিন মুসলমানদের ঈমানি সম্মেলন হয়। জুমার দিনের তাৎপর্য বর্ণনা করে রাসুল (দ.) বলেছেন, ‘সপ্তাহের সাত দিনের মধ্যে জুমাবার সর্বাধিক মর্যাদাবান ও নেতৃস্থানীয় দিন। এ পুণ্য দিনে আদি পিতা হজরত আদমকে (আ.) সৃষ্টি করা হয়। একই দিনে তিনি জান্নাতে প্রবেশ করেন। আবার পুনরায় পৃথিবীতে আগমন করেন। এ দিনে তার ইন্তেকাল হয়। এ শুক্রবারেই কেয়ামত সংঘটিত হবে। এ পুণ্য দিনে এমন একটি সময় রয়েছে, যখন আল্লাহর দরবারে দোয়া কবুল হয়।’ (মিশকাত)

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: