২৩ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

ক্যাপ্টেনই বস, আমি পিছনে থাকব


ক্যাপ্টেনই বস, আমি পিছনে থাকব

অনলাইন ডেস্ক ॥ তিনি অন্য রকম কোচ হতে চান। একেবারে অন্য রকম।

অনিল কুম্বলে।

যিনি তাঁর দলের বোলারদের বলবেন, নিজেই নিজের ক্যাপ্টেন হয়ে ওঠো। সবসময় আত্মবিশ্বাসে টগবগ করো।

আর তিনি নিজে যেহেতু স্পিন বিশেষজ্ঞ, তাই নেটে দলের পেস বোলারদের কয়েকদিন দেখে, তাঁদের সঙ্গে কথা বলে বোর্ডকে একজন পেস বোলার কোচ দেওয়ার প্রস্তাবও দিতে পারেন।

বেঙ্গালুরুতে প্রস্তুতি শিবিরের প্রথম দিনই ভারতীয় ক্রিকেটাররা নেটে নামতে না পারলেও নতুন কোচ কিন্তু প্রথম দিনই বুঝিয়ে দিলেন তিনি ফ্রন্টফুটে খেলারই পক্ষপাতী। তিনিও যে বিরাট কোহালির মতো আগ্রাসী, ঠোঁটকাটা হয়ে উঠতে পারেন, তা এ দিন সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েই বুঝিয়ে দিলেন কুম্বলে।

সাফ জানিয়ে দিলেন, দায়িত্ব নেওয়ার পর তিনি প্রথম রবি শাস্ত্রীকেই ফোন করেছিলেন, কেমন করে এত দিন সাফল্যের সঙ্গে ভারতীয় দল চালালেন, তার রহস্য জানার জন্য।

সামনেই ওয়েস্ট ইন্ডিজে টেস্ট সিরিজ। তাই বুধবার বেঙ্গালুরুতে ছ’দিনের প্রস্তুতি শিবির শুরু হল ভারতীয় দলের। কিন্তু প্রথম দিনই বাধ সাধল বৃষ্টি। ঠিক ছিল, দু’বেলাই মাঠে নামবেন, নেট করবেন কোহালিরা। কিন্তু সারা দিনের বৃষ্টিতে সে সব কিছুই হল না। স্থানীয় আবহাওয়া দফতর জানিয়ে দিয়েছে, শুক্রবারের আগে মেঘ-বৃষ্টি থেকে রেহাই পাওয়ার সম্ভাবনা কম। অর্থাৎ শুক্রবারও কুম্বলে দল নিয়ে মাঠে বা নেটে নামতে পারবেন কি না, সন্দেহ রয়েছে।

তবে তাঁর পরিকল্পনা কী, তা নিয়ে কোনও সন্দেহ রাখলেন না কুম্বলে। বলে দিলেন, ‘‘আমার কাজ দলটাকে প্রস্তুত করা ও শেপে রাখা। আমরা, সাপোর্ট স্টাফ নেপথ্যে কাজ করব। সামনে থাকবে ক্রিকেটাররা। আমি একসময় ক্রিকেটার ছিলাম, এখন কোচ। তাই দু’জনেরই ভূমিকা কী, তা আমার কাছে স্পষ্ট। মাঠে ক্যাপ্টেনই সিদ্ধান্ত নেবে। স্ট্র্যাটেজি তৈরির জন্য যা যা তথ্য প্রয়োজন, সেগুলো আমি বড়জোর তাকে দিতে পারি। এর বেশি কিছু নয়।’’

দলের বোলারদের আরও আত্মবিশ্বাসী হয়ে ওঠার পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, ‘‘যখন খেলতাম, তখন মনে করতাম, আমিই আমার বোলিংয়ের ক্যাপ্টেন। এই দলের বোলারদের মধ্যেও এই ব্যাপারটাই আনার চেষ্টা করব। আমি নিজে একজন বোলার বলে ওদের আরও কাছে গিয়ে ওদের সমস্যাগুলো বোঝার চেষ্টা করব। ওরা কী চায়, তা বোঝার চেষ্টা করব। তারপর হয়তো বোর্ডকে একজন ফাস্ট বোলার কোচ দেওয়ার কথাও বলব।’’

শুধু যাঁরা মাঠে নেমে খেলছেন, তাঁরা নয়, দলের বাইরেও যাঁরা থাকবেন, তাঁদের পাশে থাকাটাও যে তাঁর কাজ, তাও স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন কুম্বলে। বলেন, ‘‘একটা সফরে আমাকে দল থেকে বাদ দেওয়া হয়েছিল। তাই বুঝি, দলের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটার হয়েও বাদ পড়লে কেমন লাগে। এ রকম সময়ে ছেলেদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার। ফোন তুলে ওদের, ‘ডোন্ট ওয়ারি’ বলাটা খুব জরুরি। আশা করি, ছেলেদের সঙ্গে এই যোগাযোগ রাখার কাজটা আমি ভালই পারব।’’

রবি শাস্ত্রীর বদলে তাঁকে কোচ করে নিয়ে আসা নিয়ে হঠাৎ একটা বিতর্ক দেখা দিয়েছে। কুম্বলে পুরো বিষয়টাকেই অন্য দিকে ঘুরিয়ে দিয়ে বলেন, ‘‘দায়িত্ব পাওয়ার পর প্রথম ফোনটা আমি রবিকেই করি। এত দিন ধরে দলটা ও দুর্দান্ত চালিয়েছে কি না। রবি, আমি বা অন্য কে দায়িত্বে আছে, সেটা কোনও ব্যাপার নয়। দল ও দলের ক্রিকেটাররাই আসল কথা। সব ফর্ম্যাটে ভারতীয় দল ভাল করুক, এটাই বড় কথা। রবি আগে এই জার্নির একটা অংশ ছিল, এখন আমি। কাল হয়তো অন্য কেউ আসবে। সেটা বড় কথা নয়। দল ও ক্রিকেটাররাই আসল ব্যাপার।’’

কয়েক দিন পরেই চার টেস্টের সিরিজ খেলতে দল নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজে যাচ্ছেন কুম্বলে। যেখানে ১৫টি আন্তর্জাতিক ম্যাচে ৪৯ উইকেট রয়েছে তাঁর। তিনবার ইনিংসে পাঁচ উইকেটও নিয়েছেন সেখানে। কোচ হওয়ার পর প্রথম সিরিজ নিয়ে ভারতীয় ক্রিকেটের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি বলছেন, ‘‘শেষবার ওয়েস্ট ইন্ডিজে গিয়ে আমরা ৩-০ জিতেছিলাম। সেই আত্মবিশ্বাসটা নিয়েই এ বার ওখানে যাচ্ছি আমরা। এ বারও আমরা ওখানে সিরিজ জয়ের আশা ও সম্ভাবনা নিয়েই যাচ্ছি। গত বার ইশান্ত শর্মা সিরিজ সেরা হয়েছিল। বিরাট, মুরলী বিজয়, অমিত মিশ্ররা ভাল করেছিল। তাই এ বারের দলের ওখানে খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে। আমারও রয়েছে। সেটাও কাজে লাগবে হয়তো। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ছোট ফর্ম্যাটে কঠিন প্রতিপক্ষ। আর ওখানকার কন্ডিশন অনেকটা ভারতের মতোই। তাই দলের ছেলেরাও এই চ্যালেঞ্জের মোকাবিলা করতে মুখিয়ে রয়েছে। ছেলেদের একটা কথা বলে দিয়েছি, হারি-জিতি, লড়াকু মানসিকতাটা থাকা দরকার।’’

আগামী এক বছর তাঁকে বেশিরভাগ সময়ই কাটাতে হবে বিরাট কোহালির সঙ্গে। তার পরে মহেন্দ্র সিংহ ধোনির সঙ্গেও জুটি বাঁধতে হবে। দু’জনের সঙ্গেই এর মধ্যে কথা হয়ে গিয়েছে বলে জানালেন কুম্বলে। দু’জনের সঙ্গেই সম্পর্ক যথেষ্ট ভাল সম্পর্ক তাঁর, দাবি নতুন কোচের।

সূত্র : আনন্দাবাজার পত্রিকা

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: