১৮ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

পুঁজিবাজারে পাঁচ মাসে সর্বোচ্চ লেনদেন


অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ রমজানের ছুটির ঠিক আগে সূচকের ইতিবাচক প্রবণতা ফিরে এসেছে। বেশিরভাগ কোম্পানির দর বাড়ার কারণে টানা চার দিন উভয় বাজারেই সূচকের উত্থান দেখা গেল। আগের দিনের ধারাবাহিকতায় বুধবারে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) মূল্য সূচকের সঙ্গে লেনদেনেও বড় উত্থানও দেখা গেছে। এদিন ডিএসইতে আগের দিনের তুলনায় প্রায় ৫১ শতাংশ লেনদেন বেড়ে ৬০০ কোটি টাকার কাছাকাছি পৌঁছেছে। তবে ব্লক মার্কেটে আইডিএলসির শেয়ার মাত্র দুটি হাওলায় ১৯৫ কোটি ৪৪ লাখ টাকার লেনদেন হয়। সিটি ব্যাংকের হাতে থাকা ৩ কোটি ৫৭ লাখ ১৬ হাজার ১৩১টি শেয়ার ছেড়ে দেয়ার কারণেই লেনদেন এই উল্লম্ফন দেখা গেছে।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, বুধবার ডিএসইতে ৫৮৬ কোটি ২৪ লাখ টাকার লেনদেন হয়েছে, যা আগের দিনের তুলনায় প্রায় ১৯৭ কোটি ৫৬ লাখ টাকা বেশি। মঙ্গলবারে এই বাজারে ৩৮৮ কোটি ৬৭ লাখ টাকা লেনদেন হয়েছিল। বুধবার গত ৫ মাসের সর্বোচ্চ লেনদেনের ঘটনা ঘটল। এর আগে গত ২০ জানুয়ারি ডিএসইতে মোট ৬৬৯ কোটি টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের লেনদেন হয়েছিল।

বাজার সংশ্লিষ্টদের মতে, রমজানের ছুটির আগের শেয়ার বিক্রি করে টাকা নগদায়নের সুযোগ কমে যাওয়ার কারণেই এখন কেউ হাতে থাকা শেয়ার বিক্রি করতে চাচ্ছেন না। যার কারণে শেয়ার বিক্রির চাপ কমে গেছে। যার প্রতিফলন দেখা গেছে সূচকে। অন্যদিকে ব্যাংক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও বীমা ছাড়া সব কোম্পানির হিসাব বছর শেষ হচ্ছে জুন মাসে। এর আগে ডিসেম্বর ছাড়া বিভিন্ন মাসে বেশ কিছু কোম্পানির হিসাব বছর ছিল। কিন্তু সরকারী প্রজ্ঞাপন অনুসারে কোম্পানিগুলোকে এখন জুন মাসে হিসাব বছর ধরে লভ্যাংশ ঘোষণা করতে হবে। যার কারণে লভ্যাংশ পেতে অনেকেই নতুন করে শেয়ার কিনছেন। ফলে বাজারে এক ধরনের শেয়ার কেনার চাপ বেড়েছে।

বুধবার ডিএসইতে মোট লেনদেনে অংশ নেয় ৩১৮টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৫৮টির, কমেছে ১০৪টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৫৬টির শেয়ার দর।

এদিকে ডিএসইএক্স বা প্রধান মূল্য সূচক ১৮ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৪ হাজার ৪৭০ পয়েন্টে। ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ৫ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে এক হাজার ১০০ পয়েন্টে। আর ডিএস৩০ সূচক ১১ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে এক হাজার ৭৫১ পয়েন্টে।

ডিএসইতে লেনদেনের সেরা কোম্পানিগুলো হলো : লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট, ফার কেমিক্যাল, স্কয়ার ফার্মা, ইসলামী ব্যাংক, শাহজিবাজার পাওয়ার, সিটি ব্যাংক, অলিম্পিক এক্সেসরিজ, সোস্যাল ইসলামী ব্যাংক ও বাংলাদেশ বিল্ডিং সিস্টেম।

অন্যদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই) সূচকের উত্থানে লেনদেন শেষ হয়েছে। সিএসইতে ২৪ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। সিএসই সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৫৫ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩ হাজার ৭০৭ পয়েন্টে। সিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ২৪৩টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১১৩টির, কমেছে ৮৭টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৩টির।

সিএসইর লেনদেনের সেরা কোম্পানিগুলো হলো : সোস্যাল ইসলামী ব্যাংক, ফার কেমিক্যাল, প্রিমিয়ার সিমেন্ট, লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট, ইসলামী ব্যাংক, একমি ল্যাবরেটরিজ, ইউনাইটেড এয়ার, ডরিন পাওয়ার, অলিম্পিক এক্সেসরিজ ও স্কয়ার ফার্মা।