মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৫ আশ্বিন ১৪২৪, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

তারকার ঈদ আয়োজন

প্রকাশিত : ৩০ জুন ২০১৬

স্টাইলিস্ট অপূর্ব

এবারে ঈদে ১৫ নাটকে দেখা যাবে অভিনেতা জিয়াউল ফারুক অপূর্বকে। এবার তাহসান-আর তাকে একই নাটকে দেখা যাবে। একই সঙ্গে অভিনয় করেছেন মিজানুর রহমান আরিয়ানের ‘কথোপকথন’ নাটকে। তাহসান, অপূর্ব, মিথিলা, মৌসুমী হামিদও অভিনয় করেছেন এই নাটকে। ‘এখানে দেখা যাবে তাহসান, মিথিলা, অপূর্বের মধ্যকার ত্রিভূজ প্রেম কাহিনী। তবে কে সত্যি ভালবাসছে আর কে ফার্ট করছে তা টেলিফিল্ম দেখলে বোঝা যাবে। শুধু তাই নয় মৌসুমী হামিদ কি ভূমিকায় আসছেন এই গল্পে তাও একটা চমক। তাই এটি না দেখা পর্যন্ত দর্শকরা বুঝবে না।’ টেলিফিল্ম, একক মিলিয়ে ঈদে ১৫টি নাটক নিয়ে আসছেন অপূর্ব।

নানা রূপে মোশাররফ করিম

ঈদ এলেই বেশির ভাগ তারকার দম ফেলার ফুরসত মেলে না। ভোর থেকে রাত পর্যন্ত এক শূটিংস্পট থেকে অন্য শূটিং স্পটে দৌড়াদৌড়ি করতে হয়। দর্শকদের জন্য ঈদ উপহার নিয়েই তাদের যত ব্যস্ততা। সে দৌড়ে আছেন অভিনেতা মোশাররফ করিম। ঈদে প্রায় প্রতিটি চ্যানেলে একাধিক নাটকে দেখা যাবে তাকে। কেমন কাটছে মোশাররফ করিমের ঈদ ব্যস্ততা? এমন প্রশ্নে মোশাররফ করিম বলেন, ঈদে যেমন নাটক দর্শক দেখে অভ্যস্ত কিংবা আমাকে যেভাবে দেখে আসছেন সেভাবেই প্রস্তুতি চলছে। তবে একটির চেয়ে আরেকটি আলাদা। গল্প, চরিত্র সবকিছুই ভিন্নভাবে সাজানো হয়েছে। আশা করছি ঈদের দর্শকের জন্য বিশেষ কিছু চমক থাকবে। এবার ঈদে মোশাররফ করিমকে দেখা যাবে সাগর জাহানের পরিচালনায় ‘এ্যাভারেজ আসলাম, চুপ ভাই কিছু ভাবছেন’, সাজিন আহমেদ বাবুর ‘কিড সোলায়মান’ ও মেহেদী হাসানের ‘তলোয়ার, আজাদ আবুল কালামের যমজ-৫, মারুফ মিঠুর ইয়েস বস, মোরসালিন শুভর একটা লাইক দেবেন প্লিজ, শামস করিমের চোর নাটকে। এছাড়া মাসুম রেজার রচনা ও সাঈদের নির্দেশনায় ‘চান্স মাস্টার’ ধারাবাহিকটি একটি চ্যানেলে প্রচার হওয়ার কথা রয়েছে। এদিকে ধারাবাহিকের পাশাপাশি ঠিক কতটি খণ্ড নাটক চ্যানেলগুলোতে প্রচার হবে সেটা মোশাররফ করিম নিজেই জানেন না। কারণ গত কয়েক মাস ধরে তিনি শুধু ঈদের খণ্ড নাটকের কাজই করেছেন। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ধারাবাহিকের কথাগুলো বললাম। কিন্তু খণ্ড নাটকের আসলে কোন হিসাব নেই। কারণ টানা অনেক নাটকেই কাজ করেছি।

নতুন ধারাবাহিক নাটকে হাজির হচ্ছেন মোশাররফ করিম। নাম ‘এ্যাভারেজ আসলাম’। সিকান্দার বক্সের মতোই এখানে নাম ভূমিকায় পাওয়া যাবে মোশাররফ করিমকে। তবে ‘এ্যাভারেজ আসলাম’কে সিকান্দার বক্সের বিকল্প ভাবতে মোটেই নারাজ মোশাররফ করিম। তিনি বলেন, একটি নাটক কখনোই আরেকটি নাটকের বিকল্প হতে পারে না। এটি নতুন একটি নাটক।

বহুরূপী তিশা

তিশা এখন ছোট এবং বড়পর্দা দুই জগতেরই বাসিন্দা। দুই জগতেই তার সমান ব্যস্ততা। হাতে ছবির শূটিংয়ের ব্যস্ততা থাকা সত্ত্বেও ঈদ উপলক্ষে কাজ করছেন একাধিক খণ্ড নাটকে। প্রতিটি নাটকেই দর্শকরা তিশাকে ভিন্ন ভিন্ন চরিত্রে দেখতে পাবেন বলে জানালেন এ তারকা। সম্প্রতি এ অভিনেত্রী কাজ শেষ করেছেন ‘মরীচিকা’নামের একটি খণ্ড নাটকে। এতে নাকি দর্শকরা তিশাকে চিনতেই হিমশিম খেয়ে যাবেনÑ এমনটিই জানালেন তিশা। এ নাটকে তার বিপরীতে অভিনয় করেছেন আফরান নিশো। নাটকটির গল্পে দেখা যাবেÑ কে যেন ক্রমাগত নিশোর ক্রেডিট কার্ড হ্যাক করতে থাকে। ওই হ্যাকারকে খোঁজার জন্য একের পর এক কাণ্ড ঘটাতে থাকেন তিনি। এদিকে তার বাবা-মা তার বিয়ের পাত্রী ঠিক করে রেখেছেন। একদিকে ক্রেডিট কার্ডের অপরাধীকে খোঁজা, অন্যদিকে পাত্রী দেখতে যাওয়া- এ দুটি বিষয় নিয়েই এগিয়ে যেতে থাকে নাটকের গল্প। এতে অভিনয় প্রসঙ্গে তিশা বলেন, ‘দারুণ একটি চরিত্রে অভিনয় করেছি। দর্শক ইতোপূর্বে আমাকে এ চরিত্রে কখনই দেখেনি। আশা করি নতুন এ চরিত্রটি দর্শকদের কাছে উপভোগ্য হবে।

লাস্যময়ী তানিন সুবহা

সময়ের অন্যতম আলোচিত চিত্রনায়িকা তানিন সুবাহ। আসছে ঈদে তানিন সুবাহকে দেখা যাবে বেশ কয়েকটি নাটক এবং টেলিফিল্ম এ। এর মধ্যে দুটি ছয় পর্বের বিশেষ ধারাবাহিক নাটক এবং দুটি টেলিফিল্ম এর শূটিং এরই মধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। ঈদের বিশেষ ছয় পর্বের নাটক দুটি হলো সর্দার রোকন পরিচালিত ‘রঙ্গিলা কারিগর’ ও তুষার মাহমুদ পরিচালিত ‘প্রেম পথিক’ এবং টেলিফিল্ম দুটি হলো ইন্দ্রজিৎ ইমন ও হুমায়ন কাবেরী পরিচালিত ‘বাই বাই দুর্নীতি কাব।’ এছাড়াও তার অভিনীত ঈদের আরও তিনটি নাটকের শূটিং চলছে। সব মিলিয়ে ঈদে সাতটি নাটক এবং টেলিফিল্মে দেখা হবে এই লাস্যময়ীকে। ঈদের কাজ সম্পর্কে তানিন বলেন, এবারের ঈদে আমি যে নাটক এবং টেলিফিল্মগুলোতে অভিনয় করেছি সেগুলোর প্রতিটি চরিত্রই ভিন্ন ভিন্ন ধরনের। আর প্রতিটির গল্পও খুবই সুন্দর। তাই আশা করছি দর্শকরা আমার অভিনীত নাটক এবং টেলিফিল্মগুলো বেশ আনন্দের সঙ্গেই উপভোগ করবেন।

চঞ্চল চৌধুরীর চমক

কমেডি, রোমান্টিক সব ধরনের চরিত্রে অভিনয়ের জন্য দর্শক মহলে আলোচিত তিনি। বলছি জনপ্রিয় অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরীর কথা। সম্প্রতি নতুন কোন চমক না দিলেও দেয়ার অপোয় আছেন এ অভিনেতা। আর সেটা আসছে ঈদ উপলক্ষে তার অভিনয় করা একাধিক নাটকে অভিনয়ের মাধ্যমে। একেক নাটকে একেক ধরনের চরিত্রে অভিনয় করেছেন চঞ্চল। এবারের ঈদের জন্য তাকে বেশ কিছু খ- নাটকে দেখা যাবে। এছাড়া রয়েছে ৬টি ধারাবাহিক নাটক। আর এ ৬টিই ছয় পর্বের। এর মধ্যে রয়েছে মাহফুজ আহমেদের পরিচালনায় ‘ইজম আনলিমিটেড’, অনিমেষ আইচের ‘অশ্বডিম্ব’, মাসুদ সেজানের ‘ওয়াও ফ্যান্টাসি’, চন্দন চৌধুরীর ‘চালু মামার চালু ভাগ্নে’ এবং সালাহ উদ্দিন লাভলুর ‘লাভ মানে ভালোবাসা’ ও ‘ইতি মীরজাফর’। ঈদের নাটক প্রসঙ্গে চঞ্চল চৌধুরী বলেন, আমি ঈদের নাটকের ব্যাপারে বরাবরই খুব চুজি। ভাল গল্প কিংবা মানসম্মত নাটক মনে না করলে কাজ করি না। বাসায় বসে থাকি। ঈদে ভাল কিছু কাজ নিয়েই পর্দায় আসব। অন্তত দর্শককে ঠকাব না। যে কাজগুলো এর মধ্যে শেষ করেছি সেগুলোর প্রতিটিতে নতুনত্ব থাকবে। থাকবে অনেক চমক। বিশেষত আমার চরিত্রে বৈচিত্র্য দেখা যাবে। ঈদের নাটকে কাজ করার আগে বেশ কয়েকটি ধারাবাহিকের কাজ শেষ করে রেখেছেন চঞ্চল। তার মধ্যে রয়েছে ‘নন স্টপ’, ‘কমেডি অ্যাট কলোনি’, ‘পলাশ ফুলের নোলক’, ‘একদিন ছুটি হবে’ সহ আরও বেশ কয়েকটি।

প্রকাশিত : ৩০ জুন ২০১৬

৩০/০৬/২০১৬ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: