মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৪ আগস্ট ২০১৭, ৯ ভাদ্র ১৪২৪, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

রামেক ভাণ্ডারে পর্যাপ্ত উপকরণ ॥ তবু বঞ্চিত রোগীরা

প্রকাশিত : ২৯ জুন ২০১৬

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী ॥ রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের স্টোরে (ভা-ারে) চিকিৎসা উপকরণের ঘাটতি না থাকলেও রোগীদের বাইরে থেকে কিনতে বাধ্য করা হয় বিভিন্ন ধরনের উপকরণ। বিশেষ করে হাসপাতালের অর্থোপেডিক বিভাগের এ চিত্র সবচেয়ে বেশি। এক্স-রে থেকে শুরু করে বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষাও করানো হয় বাইরে থেকে অথচ হাসপাতালে এসব সেবা থাকলেও রোগীরা সহজে তা পায় না। প্রায় সব ওয়ার্ডেই একই চিত্র। অর্থোপেডিক এক নম্বর ওয়ার্ডের ৩২ বেডের রোগী বাসন্তি (৫৮) নিজেই রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের এমএলএসএস। তাকেও পরপর দুইবার পটিবল এক্স-রে করার জন্য মেডিপ্যাথ থেকে মেশিন নিয়ে এসে করানো হয়েছে। এর জন্য প্রতিবার ব্যয় হয়েছে এক হাজার টাকা। ওই ওয়ার্ডের ইউনিট ওয়ানের চিকিৎসক রোগীকে এ বিষয়ে ব্যবস্থাপত্র দেন অথচ রামেক হাসপাতালেই পটিবল এক্স-র মেশিন আছে। ওই ওয়ার্ডের ইউনিট ২-এর এক নম্বর বেডের রোগী শিশু নুর আলম (৯)। তাকে এক্স-র করতে পাঠানো হয়েছে নিউ গ্রীন ডায়াগনস্টিক সেন্টারে। রামেক হাসপাতালের এক নম্বর ওয়ার্ডের এমনই জগাখিচুড়ি অবস্থা। দালালদের খপ্পরে পড়ে রোগীদের নাজেহাল হওয়া প্রতিদিনের চিত্র। হাসপাতালের পুলিশ বক্স ও আনসার নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকার পরেও রোগীরা প্রতারিত হচ্ছেন। রোগীদের অভিযোগ অনেক সময় ওয়ার্ড সংশ্লিষ্ট কর্তব্যরতদের কেউ কেউ নির্দিষ্ট নাম করে রোগীদের বিভিন্ন পরীক্ষা ও প্লাস্টার কেনার জন্য বাইরে পাঠিয়ে দিচ্ছে। চিকিৎসা হবে না এমন ভয়ে রোগীরা নীরবে এসব মেনে নিচ্ছে।

সম্প্রতি সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ১ নম্বর ওয়ার্ডের ইউনিট একের বেড নং ৩০। সেখানে শিশু শাওন (১০) চিকিৎসাধীন। জয়পুরহাট জেলার তিলপুর গ্রামের শিশু শাওন গত ১৫ মে ভর্তি হয়েছে। তার রেজিস্ট্রেশন নম্বর ৭৩০২/৪। অভাবী শাওনের পরিবারকে বাইরের বিভিন্ন ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার থেকে এক্স-রে করে নিয়ে আসতে হয়েছে।

সাত বছরের শিশু হাসানুল। ২০ জুন রামেক হাসপাতালের এক নম্বর ওয়ার্ডের ইউনিট একে ভর্তি হয়েছে। সে রাজশাহী মহানগরীর মেহেরচ-ি এলাকায় রফিকুল ইসলামের ছেলে। তার এক্স-রে করানো হয়েছে বাইরে থেকে। এসব বিষয়ে রামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল রফিকুল ইসলাম জানান, পটিবল এক্স-রের বিষয়টি তিনি জানেন। রামেক হাসপাতালে যে পটিবল এক্স-রে আছে তা অনেক পুরাতন আর ভারি। সে কারণে যেসব রোগীর বিছানায় শুয়ে এক্স-রে করতে হয় তাদের বাইরে থেকে মেশিন নিয়ে এসে এক্স-রে করানো হয়।

প্রকাশিত : ২৯ জুন ২০১৬

২৯/০৬/২০১৬ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



শীর্ষ সংবাদ:
ঘূর্ণিঝড়, পাহাড় ধস, বন্যা ॥ দুর্যোগ পিছু ছাড়ছে না || বিএনপি-জামায়াতের নৈরাজ্যের শিকার পরিবারগুলোকে প্রধানমন্ত্রীর অনুদান || বিটি প্রযুক্তির ব্যবহার দেশকে কৃষিতে ব্যাপক সাফল্য এনে দিয়েছে || রিজার্ভের চুরি যাওয়া অর্থ পুরো ফেরত পাওয়া যাবে || গ্রেনেড হামলা মামলার পলাতক ১৮ আসামিকে ফেরত আনার চেষ্টা || অনেক সড়ক মহাসড়ক পানির নিচে মহাদুর্ভোগের শঙ্কা || খাদ্য প্রক্রিয়াজাত শিল্পে ’২১ সালের মধ্যে বিলিয়ন ডলার রফতানি || নূর হোসেনের দম্ভোক্তি উবে গেছে, কালো মেঘে ছেয়েছে মুখ || জবাবদিহিতা না থাকা ও রাজনৈতিক প্রভাবে পাউবো প্রকল্পে দুর্নীতি || রোহিঙ্গা সঙ্কট সমাধানে আজ চূড়ান্ত রিপোর্ট দিচ্ছে আনান কমিশন ||