২০ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৬ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

অন্যান্য দেশের ইইউ ত্যাগ রুখতে হবে ॥ মেরকেল


ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) নেতারা ব্রিটেনের এ ব্লক ত্যাগ করার (ব্রেক্সিট) পক্ষে ভোট দেয়ার পর ইইউকে নতুন করে উজ্জীবিত করার সংকল্প ব্যক্ত করেছেন। ব্রিটেন আনুষ্ঠানিকভাবে ইইউ ত্যাগের সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে দেশটির সঙ্গে ব্লক কোন চুক্তি করবে না বলেও তারা লন্ডনকে জানিয়ে দেন। এদিকে, ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরুন তার দেশের গণভোটের ঐ ফলাফল জনিত আশঙ্কা প্রমশিত করার চেষ্টা করছেন। খবর এএফপির।

বার্লিনে এক যৌথ বিবৃতিতে ইইউর তিনটি জনবহুল দেশের নেতারা যুক্তরাজ্য ইইউর ভেতর তাদের অংশীদার না থাকায় দুঃখ প্রকাশ করেন। কিন্তু তারা আস্থার সঙ্গে বলেন, ইইউ সঠিক পথ খুঁজে পাওয়ার মতো যথেষ্ট শক্তিশালী। তারা বলেন, জার্মান চ্যান্সেলর এঞ্জেলা মেরকেল, ফরাসী প্রেসিডেন্ট ফাঁসোয়া ওলাঁদ ও ইতালির প্রধানমন্ত্রী মাত্তেও রেনজি। ব্রাসেলসে এক শীর্ষ সম্মেলনের আগে তারা অভ্যন্তরীণ ও বাহ্যিক নিরাপত্তা এবং অর্থনীতি যুব সহায়তা কর্মসূচী প্রশ্নে সহযোগিতা জোরদার করতে অবশিষ্ট ২৭ সদস্য রাষ্ট্রের প্রতি আহ্বান জানান। তারা বলেন, ইইউ ত্যাগ করার আবেদন পেশ (লিসবন চুক্তির ৫০ অনুচ্ছেদ) না করা পর্যন্ত ব্রিটেনের বিদায় নেয়ার বিষয়ে কোন আনুষ্ঠানিক বা অনানুষ্ঠানিক কথা হবে না। ব্লকের সঙ্গে ভবিষ্যৎ বাণিজ্য ও অন্যান্য সম্পর্ক নিয়ে আলোচনার আগে যুক্তরাজ্যকে অবশ্যই ইইউ ত্যাগের সিদ্ধান্ত জানাতে হবে বলে তারা আভাস দেন। ব্রিটিশ অর্থমন্ত্রী জর্জ অসবোর্ন এর আগে বলেন, ব্লকের সঙ্গে ভবিষ্যৎ সম্পর্কের স্পষ্ট ধারণা পাওয়ার পরই কেবল তার দেশ ৫০ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী আবেদন করবে। মেরকেল জোর দিয়ে বলেন, অনিশ্চয়তার কাল অবশ্যই দীর্ঘস্থায়ী হতে দেয়া যাবে না। তিনি আরও বলেন, ইইউকে ব্লকের অন্যান্য দেশে সক্রিয় বিচ্ছিন্নবাদী শক্তিগুলোর মোকাবেলা করতে হবে। তিনি বলেন. ইইউর অন্যান্য সদস্য রাষ্ট্র যাতে ব্রিটেনের পথ অনুসরণ করে ব্লক ত্যাগ না করে ইইউ’র সেই লক্ষ্যে পদক্ষেপ নেয়া প্রয়োজন। ওলাঁদ আরও কড়া ভাষায় ইইউ ত্যাগের প্রক্রিয়া শুরু করতে কোন সময় নষ্ট না করতে ব্রিটেনের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি বলেন, এ পক্ষে দ্রুত এগিয়ে যাওয়া সব পক্ষের জন্যই কল্যাণকর। এদিকে, গণভোটের পর প্রথম পার্লামেন্টে উপস্থিত হয়ে ক্যামেরুন আইন প্রনেতাদের বলেন, তিনি ইউরোপীয় নেতাদের সঙ্গে যথাসম্ভব শক্তিশালী অর্থনৈতিক সম্পর্ক বজায় রাখতে চান। তিনি বলেন, ব্রিটেন ইইউ ত্যাগ করছে, কিন্তু আমরা অবশ্যই ইউরোপের দিকে বা বিশ্বের অবশিষ্টাংশের দিকে পৃষ্ঠ পদর্শন করব না।