২১ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

এক জুলাই থেকে লঞ্চের বিশেষ সার্ভিস চালু


স্টাফ রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) ও বেসরকারী মালিকানাধীন লঞ্চের বিশেষ সার্ভিস ১ জুলাই থেকে শুরু হবে। নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। ইতোমধ্যে সরকারী-বেসরকারী উভয় লঞ্চের অগ্রিম কেবিনের টিকেট বিক্রি শুরু হয়েছে রবিবার সকাল থেকে। মঙ্গলবার দেয়া হয়েছে তৃতীয় দিনের টিকেট। সকাল থেকে সদরঘাট নদী বন্দরে ২০টি টিকেট কাউন্টারে যাত্রীদের ভীড় লক্ষ করা যায়নি। বেশিরভাগ কাউন্টার ছিল ফাঁকা।

এ ব্যাপারে লঞ্চ মালিকরা বলছেন, এবছর ছুটি বেশি হওয়ার কারণে অগ্রিম টিকেট নেয়ার চাপ কম। যাত্রীরা সুবিধা মতো বাড়ি যাচ্ছেন। তবে গার্মেন্টস ছুটি হলে চাপ কিছুটা বাড়বে বলে জানান তারা। ৬ জুলাই ঈদ ধরে ৫, ৬, ও ৭ জুলাই ছুটি নির্ধারণ করা হয়েছে। অর্থাত চার তারিখ থেকেই ঘরে ফেরা মানুষের ঢল নামবে নদী বন্দরে। তবে সরকারী চাকুরীজিবীদের ক্ষেত্রে ২৭ রোজার পর থেকেই ছুটি শুরু। এবছর সরকারী কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা নয়দিন ছুটি পাচ্ছেন। প্রায় ১৭০টি লঞ্চ সদরঘাট কেন্দ্রীয় লঞ্চ টার্মিনাল থেকে ৪১টি নৌ-পথে দেশের বিভিন্ন গন্তব্যে ছেড়ে যায়।

এদিকে ঢাকা নদী বন্দরে যাত্রীদের নিরাপত্তা ও গতি বিধি পর্যবেক্ষণের জন্য ১৪টি পয়েন্ট ৩০টি সিসি ক্যামেরা বসানো হয়েছে। এছাড়া সদরঘাট নৌ-টার্মিনাল এলাকায় পকেটমার, অজ্ঞানপার্টি এবং ছিনতাইকারী ঠেকাতে তৎপর পুলিশ প্রশাসন। বিআইডব্লিউটিএ সূত্রে জানা গেছে, নৌ-বন্দরের গুরুত্বপূর্ণ ১৪টি পয়েন্টে এবং ৯টি গ্যাংওয়ে ও পন্টুনে এই ৩০টি সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে। টার্মিনাল ও পন্টুনে ২০টি মাইক স্থাপন করা হয়েছে। এ মাইকের সাহায্যে সার্বক্ষণিক নির্দেশনা দেয়া হবে। এবছর যাত্রীদের চাপ সামাল দিতে পুরনো ঢাকার লালকুটির ঘাট থেকে চাঁদপুরগামী ২০টি লঞ্চ ছড়ে যাবে। এ ঘাটে ৫টি পন্টুন বসানো হয়েছে। যাত্রীদের রোদ বৃষ্টির জন্য অস্থায়ী শামিয়ানাও প্রস্তুত রাখা হয়েছে। পটুয়াখালীগামী সব লঞ্চ ওয়াইজঘাট থেকে ছেড়ে যাবে।

এবছর নৌ দুর্ঘটনা মোকাবেলায় বিআইডব্লিউটিএ এর উদ্ধারকারী জাহাজ ও ডুবুরি রাখা হয়েছে। এছাড়া লালকুটিরঘাট থেকে ওয়াইজঘাট পর্যন্ত টার্মিনাল পন্টুনে ফ্যাসিলিটি প্রায় দুই হাজার ফুট দীর্ঘ নদীর তীরে ১৪টি পয়েন্টে যাত্রী প্রবেশ করতে পারবে। ১৩টি গ্যাংওয়ে ও ২১টি পন্টুনের মাধ্যমে যাত্রী জাহাজে উঠতে এবং নামতে পারবেন।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: