১৭ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

তাবেলা হত্যা মামলায় ৭ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট উদ্দেশ্যপ্রণোদিত: ফখরুল


স্টাফ রিপোর্টার ॥ ইতালীয় নাগরিক তাবেলা সিজার হত্যা মামলায় ঢাকা মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক এম এ কাইয়ুম সহ ৭ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট প্রদানের ঘটনাকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন. এ ঘটনার মাধ্যমে উদোর পিন্ডি বুধোর ঘাড়ে চাপানো হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে এক বিবৃতিতে তিনি এ অভিযোগ করেন।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, বিদেশী নাগরিক তাবেলা সিজার হত্যাকান্ডের পরপরই কোন আইনী প্রক্রিয়া ব্যতিরেকেই জঙ্গীবাদের সঙ্গে বিএনপিকে যুক্ত করতে ঢাকা মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক এম এ কাইয়ুমকে অভিযুক্ত করে মামলা দায়ের করা হয়। এখন সেই মামলায় কাইয়ুমসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট প্রদান করা হয়েছে। আসলে সরকার জঙ্গীবাদ ও উগ্রবাদ দমন করার পরিবর্তে বিএনপিসহ বিরোধী দল দমনেই ব্যস্ত থাকার কারনে দেশে জঙ্গীবাদ মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা আগেও বলেছি জঙ্গীবাদ দমন তো দুরের কথা, বরং তাদেরকে আড়াল করতেই তাবেলা হত্যাকান্ডসহ পরবর্তীতে সকল হত্যাকান্ডে বিএনপির ওপর ধারাবাহিকভাবে দোষ চাপানো হয়েছে। মূলত: দেশের অর্থনৈতিক ভঙ্গুর অবস্থা, লক্ষ লক্ষ কোটি টাকা পাচার হওয়া, বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে ৮০০ কোটি টাকা লোপাট, গুম, খুন, গুপ্তহত্যা এসবের ভয়াবহতা থেকে জনদৃষ্টিকে ঝাপসা করতেই জঙ্গীবাদের সঙ্গে বিএনপিকে যুক্ত করার অপচেষ্টা করেছে বর্তমান সরকার।

ফখরুল বলেন, জঙ্গীদের চিহ্নিত করে তাদেরকে ধরতে সরকারের ব্যর্থতা প্রমান করে যে, সরকার জঙ্গীবাদ ও উগ্রবাদের উত্থানের সঙ্গে জড়িত। দেশে একের পর এক সংঘটিত বিদেশী নাগরিক, বিভিন্ন ধর্ম সম্প্রদায়ের ধর্মযাজক, পুরোহিত, ধর্মান্তরিত খৃষ্টান, ব্লগার, বাউল-সাধক হত্যাসহ অন্যান্য হত্যাকান্ডগুলোর কুলকিনারা করতে চরম ব্যর্থতা ঢাকতেই সরকার বিএনপির ঘাড়ে দোষ চাপানোর অংশ হিসেবেই তাবেলা সিজার হত্যার ঘটনায় ঢাকা মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক এম এ কাইয়ুমের বিরুদ্ধে সম্পূর্ণ রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে মামলা দায়ের করা হয়। সেই মামলায় কাইয়ুমসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট প্রদানের ঘটনায় সরকারের প্রকৃত স্বরুপ উন্মোচিত হলো যে, তারাই জঙ্গীদের রক্ষা করছে এবং এজন্যই বিএনপির ওপর দোষ চাপানো হচ্ছে। আমি এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং অবিলম্বে এম এ কাইয়ুমসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট প্রত্যাহারের জোর দাবি করছি।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: