মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১১ আশ্বিন ১৪২৪, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

ইতিহাস ডাকছে জোকোভিচকে

প্রকাশিত : ২৮ জুন ২০১৬
  • উইম্বলডনের সেমিফাইনালে সার্বিয়ান টেনিস তারকার সামনে বড় বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেন রজার ফেদেরার

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ সুসময়ে নোভাক জোকোভিচ। গত বছর জিতেছিলেন তিন গ্র্যান্ডসøাম। এ বছর অস্ট্রেলিয়ান ওপেন জেতার পর অতৃপ্তি মিটিয়েছেন রোলাঁ গ্যাঁরোর। সর্বশেষ টেনিসের চার মেজর টুর্নামেন্ট জিতে ‘সøাম মেশিন’ হয়ে উঠেছেন জোকোভিচ। সোমবার থেকে শুরু হয়েছে উইম্বল্ডন। অল ইংল্যান্ড ক্লাবেও ফেবারিটের তকমাটা গায়ে মাখানো সার্বিয়ান তারকার। মৌসুমের তৃতীয় গ্র্যান্ডসøাম টুর্নামেন্ট জিততে পারলে ‘ক্যালেন্ডার সøাম’ জয়ের মাইলফলক স্পর্শের আরও কাছাকাছি চলে যাবেন বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের নাম্বার ওয়ান এই তারকা।

উইম্বল্ডনের সেমিফাইনালে নোভাক জোকোভিচের সামনে বড় বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেন রজার ফেদেরার। যদিওবা উইম্বল্ডনের সর্বশেষ দুই ফাইনালেই সুইস টেনিসের কিংবদন্তিকে হারিয়েছেন নোভাক জোকোভিচ। গত ১৫ বারের দেখায় এ্যান্ডি মারে হেরেছেন ১৩ বার। আর সার্বিয়ান তারকার আরেক প্রতিপক্ষ রাফায়েল নাদাল তো চোটের কারণে টুর্নামেন্ট থেকেই সরে দাঁড়িয়েছেন। তাই ১৩তম গ্র্যান্ডসøামের হাতছানি ভালভাবেই থাকছে জোকোভিচের সামনে। ১৯৬৯ সালে রড লেভারের পর এক বছরে টানা চার গ্র্যান্ডসøাম জিততে পারেননি আর কেউই। এক বছরে না হলেও ৪৭ বছর পর টানা চার গ্র্যান্ডসøাম জয়ের কীর্তিটা সম্প্রতি গড়েছেন জোকোভিচ। গত বছর জিতেছিলেন উইম্বল্ডন আর ইউএস ওপেন। আর এ বছর অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের পর ফ্রেঞ্চ ওপেন। ক্যালেন্ডার সøাম ও অলিম্পিকে সোনা জিতে ‘গোল্ডেন সøাম’ পূরণ করার হাতছানিও আছে জোকোভিচের সামনে। সেই পথে অনেকটা এগিয়ে যাবেন উইম্বল্ডন জিতলে। তা সম্ভব বলেই বিশ্বাস করেন জোকোভিচ। এ প্রসঙ্গে রোঁলা গ্যাঁরোর আরাধ্য শিরোপা জয়ের পরই তিনি বলেছিলেন, ‘মোটেও অহঙ্কারী নই আমি। তবে আমি মনি করি জীবনে সবকিছুই সম্ভব। ক্যারিয়ার সøাম আর অলিম্পিক সোনা জেতাটাও অসম্ভব কিছু নয়।’ ২০১৩ সালে উইম্বল্ডন জয়ের স্বাদ পেয়েছিলেন এ্যান্ডি মারে। বর্তমানেও টেনিস কোর্টে ফেবারিট মারে। তাই ব্রিটিশ এই টেনিস তারকা এবার তৃতীয় গ্র্যান্ডসøামের স্বাদ পাওয়ার লক্ষ্য নিয়েই অল ইংল্যান্ড ক্লাবে খেলতে নামবেন।

এদিকে ইতিহাসের সামনে দাঁড়িয়ে আছেন সেরেনা উইলিয়ামসও। আর মাত্র একটি গ্র্যান্ডসøাম জিতলেই জার্মান কিংবদন্তি স্টেফি গ্রাফের পাশে বসবেন তিনি। কিন্তু সর্বশেষ তিন টুর্নামেন্টে সেরেনা না পারায় অনেকেই হতাশ। ফ্রেঞ্চ ওপেনের ফাইনালে হারের পর একটি মিউজিক ভিডিওতে অংশগ্রহণ করতে দেখা গেছে সেরেনাকে। সমালোচকরা তাই অভিযোগ তুলেছেন টেনিস থেকে সেরেনার মনোযোগও নাকি সরে গেছে! তবে সেই সুযোগটা নিয়ে গারবিনা মুগুরজা, এ্যাগ্নিয়েস্কা রাদওয়ানাস্কা, এ্যাঞ্জেলিক কারবাররা কি পারবেন প্রথমবারের মতো উইম্বল্ডনের স্বাদ পেতে? ক্যারোলিন ওজনিয়াকি-এ্যাগ্নিয়েস্কা রাদওয়ানাস্কারা টেনিস কোর্টের নিষ্প্রভ তারকা। অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের চ্যাম্পিয়ন এ্যাঞ্জেলিক কারবারও পারফর্মেন্সের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারেননি। তবে শিরোপার দৌড়ে এবার এগিয়ে রয়েছেন মুগুরুজাই। কেননা গতবারও যে অল ইংল্যান্ড ক্লাবের এই আসরের ফাইনালে উঠেছিলেন তিনি। কিন্তু সেরেনার কাছে হেরে যান তিনি। সেই পরাজয়ের পর মুগুরুজা এখন আরও পরিণত। রোলাঁ গ্যাঁরোর ফাইনালে হারিয়ে ইতোমধ্যেই সেই প্রতিশোধটাও নিয়ে নিয়েছেন। এবার লন্ডন জয় করতে পারলে নতুন তারাই পাবে মেয়েদের টেনিস।

প্রকাশিত : ২৮ জুন ২০১৬

২৮/০৬/২০১৬ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



শীর্ষ সংবাদ: