মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২০ আগস্ট ২০১৭, ৫ ভাদ্র ১৪২৪, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

বিশ্ব অর্থনীতি নিয়ে উদ্বিগ্ন এশিয়া

প্রকাশিত : ২৮ জুন ২০১৬
  • ব্রেক্সিটের পরিণতি বছরের পর বছর ধরে অনুভূত হবে ॥ চীন

এশিয়ার বড় বড় কয়েকটি অর্থনীতিক শক্তি ব্রিটেনের ইউরোপীয় ইউনিয়ন ত্যাগের পক্ষে ভোট দেয়ার পর বিশ্ব অর্থনীতির স্থিতিশীলতা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। খবর বিবিসির।

চীনের অর্থমন্ত্রী লোউ জিউইয়ি বলেন, এর পরিণতি অস্পষ্ট, কিন্তু তা আগামীতে বছরের পর বছর অনুভূত হবে। দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট পার্ক জিউন হাই এবং জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে বলেন, তাদের দেশগুলো অর্থবাজারের অস্থিরতা মোকাবেলায় প্রস্তুত রয়েছে।

এদিকে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরির সোমবার লন্ডনে পৌঁছানোর কথা। তিনি ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফিলিপ হ্যামন্ডের সঙ্গে আলোচনায় মিলিত হবেন বলে মনে হয়। বৃহস্পতিবারের গণভোটের পর এটিই হবে তাদের মধ্যে প্রথম উচ্চ পর্যায়ের মুখোমুখি বৈঠক। ব্রিটেনের সিদ্ধান্তের কারণে সৃষ্ট অনিশ্চয়তা বিশ্বজুড়ে অর্থবাজারকে প্রভাবিত করে বলে আশঙ্কা রয়েছে। চীনের লোউ বলেন, ব্রেক্সিট বিশ্ব অর্থনীতির ওপর ছায়াপাত করবে এবং এর প্রতিক্রিয়া ও পরিণতি আগামী পাঁচ থেকে দশ বছরই উদ্ভূত হতে হতে থাকবে। তবে তিনি এ কথাও বলেন, শেয়ার বাজারে সৃষ্ট প্রতিক্রিয়াকে অতিরঞ্জিত করা হয়ে থাকতে পারে। শুক্রবার শেয়ারের দাম দ্রুত পড়ে যায়। তিনি বলেন, শেয়ার বাজারে আপনিতেই সৃষ্ট প্রতিক্রিয়া কিছুটা বেশিই বলে মনে হয় এবং তা শান্ত করা ও বাস্তব দৃষ্টিভঙ্গী গ্রহণ করা উচিত। চীনের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের মুদ্রানীতি কমিটির সদস্য হুয়াবে ইপিং বলেন, ব্রেক্সিট বিশ্বায়ন পাল্টে যাওয়ার আভাস হতে পারে এবং তা বিশ্বের জন্য খুবই খারাপ হবে। গত বছর ব্রিটেনে চীনের সরাসরি বৈদেশিক বিনিয়োগ ছিল ৩৩০ কোটি ডলার (২৪০ কোটি পাউন্ড)। ল ফার্ম বেকার এ্যা- ম্যাকেঞ্জি একথা জানায়।

গত বছর অক্টোবরে প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের যুক্তরাজ্যে সফরের পর ডেভিড ক্যামেরন ব্রিটেন ও চীনের মধ্যে ৪০০০ কেটি ডলারের কয়েকটি চুক্তি হওয়ার কথা ঘোষণা করেছিলেন। গণভোটের ফল প্রকাশিত হওয়ার পর পাউন্ডের দাম ডলারের বিপরীতে শতকরা ১০ ভাগ কমে যায়। তবে দিন শেষে এ পতনের পরিমাণ দাঁড়ায় শতকরা ৭ দশমিক ৫ ভাগ। স্টার্লিংয়ের দাম ইয়েনের বিপরীতে শতকরা ১১ দশমিক ৪ ভাগ কমে যায়। জাপান ইয়েনের মূল্য বৃদ্ধি ঠেকাতে হস্তক্ষেপ করতে পারে বলে জানায়। ভারতের মোটর থেকে শুরু করে বিমান নির্মাতা কোম্পানি মাহিন্দ্র গ্রুপের চেয়াম্যান আনন্দ মাহিন্দ্র বলেন, বিশ্ব এমন আচরণ করছে যেন সুনামির ঢেউ আঘাত হেনেছে। তিনি একে সাম্প্রতিক প্রতিক্রিয়া বলে দেখতে পান। চলতি বছরের প্রথম দিকে ভারতীয় কোম্পানিটি যুক্তরাজ্যে বিদ্যুত চালিত গাড়ি চালু করে। সেখানে এর টেক মাহিন্দ্র নামে আইটি ব্যবসাও রয়েছে। মাহিন্দ্র বলেন, ব্রিটেনের ইইউ ত্যাগ সুবিধাজনক প্রমাণিত হতে পারে। তিনি বলেন, গত বছর আমি বিদ্যুত চালিত যানবাহনের ওপর আরোপিত কর ও ডিউটি হ্রাস করার বিষয়ে ব্রিটিশ সরকারের লোকজনের সঙ্গে কথা বলেছিলাম। তারা বলেছিলেন, ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রটোকল ও ট্যারিফের কারণে তারা এরূপ করার পথে বাধার মুখে পড়েছেন।

তিনি বলেন, আমি অবশ্য এ কথা বলতে ঘৃণাবোধ করি, কিন্তু আমাদের বৈদ্যুতিক যানবাহন নিয়ে সম্ভবত আমি আবার তাদের কাছে গিয়ে বলতে পারি, এখন থেকে যে কর কমানোর ক্ষমতা আপনাদের রয়েছে তা তো আপনারা জানেনই। ভারতের গোদরেজ গ্রুপের চেয়ারম্যান আদি গোদরেজ মাহিন্দ্রর চেয়ে কম নিশ্চিত। এ গ্রুপ বিশ্বজুড়ে ব্যবসারত এবং ব্রিটেনে সফট এ্যাড জেন্টল ও বাইও অয়েলের মতো বিউটি ব্র্যান্ড বিক্রি করে থাকে। তিনি বলেন, এটা বিস্ময়ের কথা, যুক্তরাজ্য এমন এক সিদ্ধান্ত নিয়েছে যার অর্থনৈতিক দৃষ্টিকোণ থেকে এত নেতিবাচক হতে যাচ্ছে। তিনি আরও বলেন, এটি এমন সক ভারতীয় কোম্পানির জন্য ক্ষতির কারণ হবে, যেগুলো ইইউতে প্রবেশের জন্য ব্রিটেনে প্রতিষ্ঠান স্থাপন করেছিল। তিনি বলেন, এটি খারাপই হবে, কারণ তাদের ইউরোপের অন্যান্য অংশে প্রতিষ্ঠান গড়তে হবে।

প্রকাশিত : ২৮ জুন ২০১৬

২৮/০৬/২০১৬ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ:
চাহিদার চেয়ে কোরবানিযোগ্য পশুর সংখ্যা বেশি ॥ কোন সঙ্কট হবে না || বঙ্গবন্ধুর খুনীরা যে গর্তেই লুকিয়ে থাকুক ধরে এনে রায় কার্যকর করা হবে ॥ আনিসুল হক || উত্তরের বন্যার পানি নামছে, মধ্যাঞ্চলে নতুন এলাকা প্লাবিত || রায় যদি বিরাগ প্রসূত হয়ে থাকে তাহলে শপথ ভঙ্গ হবে || কমলাপুরে মানুষের ঢল, প্রত্যাশিত টিকেট না পেয়ে অনেকেই হতাশ || সেই মৃত্যু- রক্তস্রোতের ভয়ঙ্কর স্মৃতি আজও তাড়িয়ে বেড়ায় || বিএনপির ক্ষমতার রঙিন খোয়াব কর্পূরের মতো উবে গেছে ॥ কাদের || মেগা প্রকল্পে অর্থ ব্যয়ের ওপরই নির্ভর করছে চট্টগ্রামের উন্নয়ন || যমুনার বাঁধে আশ্রয় নিতেও এককালীন নজরানা, দিতে হয় মাসিক ভাড়া || আওয়ামী লীগে যোগ দেয়া ৪শ’ জামায়াতীর ওপর নজরদারি ||