২৩ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৪ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

লালমনিরহাটের দহগ্রাম সীমান্তে গরুর ব্যবসার আধিপত্য নিয়ে উত্তেজনা


নিজস্ব সংবাদদাতা, লালমনিরহাট ॥ আজ সোমবার বিকালে জেলার পাটগ্রাম উপজেলার দহগ্রাম আঙ্গোরপোতা ছিটমহলে ভারতীয় গরুর ব্যবসার আধিপত্য নিয়ে চোরাকারবারীদের দুইটি গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে। সীমান্ত গ্রামগুলোতে কয়েক শত ভারতীয় গরু প্রবেশের অপক্ষেয় দুইদিন ধরে অপেক্ষা করছে।

দহগ্রাম আঙ্গোরপোতা ছিটমহল দিয়ে ভারতীয় গরুর ব্যবসায়ী ও বাংলাদেশের গরুর ব্যবসায়ীগণের মধ্যে সমঝোতায় দীর্ঘদিন ধরে গরুর ব্যবসা পরিচালিত হয়ে আসছে। চোরাইভাবে আসা গরু গুলো বাংলাদেশে প্রবেশ করে ৫শত টাকা মূল্যে নিলামের কাগজ সংগ্রহ করে বৈধতা পায়। যাকে গরু করিডোর বলে। সোমবার দহগ্রামে প্রায় কয়েকশত গরু এসেছে। এদের মধ্যে প্রায় তিনশত গরুর করিডোর হয়েছে। সীমান্ত গ্রাম গুলোতে করিডোরের অপেক্ষায় রয়েছে প্রায় কয়েক শত গরু। এই গরুর ব্যবসার আধিপত্য নিয়ে বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান ও প্রাত্তন ইউপি চেয়ারম্যানের সমর্থকদের দ্বন্দ বিরাজ করছে। এই দ্বন্দের জের ধরে সোমবার বিকাল ৫ টায় দহগ্রাম বাজারে দুই গ্রুপ চোরাকারবারীর মধ্যে বচসা দেখা দেয়। তারা ধাওয়া ও পাল্টা ধাওয়ায় জড়িয়ে পড়ে। সীমান্তপরিস্থিতি পানবাড়ি ও দহগ্রাম বিজিবি পর্যবেক্ষণ করছে। জনৈক গরুর ব্যবসায়ী রুহুল জানান, সীমান্ত গ্রামে প্রায় ১৩ শত গরু এসে জমা হয়েছে। এসব গরুর মধ্যে বেশ কিছু গরু খাদ্যাভাবে অসুস্থ্য হয়ে পড়েছে। গরুর ব্যবসার নিয়ন্ত্রন নিয়ে জঠিলতা দেখা দিয়েছে। তাই গরু গুলো দহগ্রাম হতে হাটে নেয়া যাচ্ছে না।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: