১৯ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট পূর্বের ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

রাতের আঁধারে ভরাট হচ্ছে মুন্সীগঞ্জের কালিদাস নদী


রাতের আঁধারে ভরাট হচ্ছে মুন্সীগঞ্জের কালিদাস নদী

স্টাফ রিপোর্টার, মুন্সীগঞ্জ ॥ রাতের আধারে বালু ভরাট করে অবৈধ ভাবে দখল করে নিচ্ছে মুন্সীগঞ্জ শহর ঘেষা কালীদাস নদীর তীর। শহরের উত্তর ইসলামপুরের ফরাজি বাড়ী ঘাটের তীর ভরাট করে দখল করছে স্থানীয় প্রভাবশালীরা।

শহরের উত্তর প্রান্তের হাটলক্ষীগঞ্জ এলাকা হয়ে শহরের বুকচিরে দক্ষিন প্রান্তের রমজানবেগ, চরমশুরা গ্রাম হয়ে মেঘনা নদীতে মিশে যাওয়া এই কালীদাস নদীটি এক সময় দূর-দূরান্তে যাতায়াতের উপযুক্ত নদী পথ ছিল। কালে কালে দখলদারদের দখলে নদীটি এখন খালে পরিণত হয়েছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উত্তর ইসলামপুরের ফরাজী বাড়ীর ঘাট এলাকার প্রভাবশালী সেন্টু হাজী ও তার ছোট ভাই সেলেম হাজী নদীর পাড়ে বাঁশের বেঁড়া দিয়ে ড্রেজারের মাধ্যামে বালু ফেলে ভরাট করে নিচ্ছে নদী তীরের বিশাল একটি অংশ। রাতের আধারে বালু ফেলে ভরাট করে নিচ্ছে নদীর তীর। এছাড়াও নদীটির বিভিন্ন স্থানে অবৈধ দখলদারা ভরাট করে মালিকানায় পরিনত করছেন নদী তীর।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় এলাকাবাসীরা বলেন, নদীটি ধলেশ্বরী নদীর একটি শাখা। ছোট বেলা থেকেই দেখছি নদীটি। নদীটি আগে অনেক চওড়া ছিল এখন প্রভাবশালী ভূমিদস্যুদের দখলদারিত্তের কারণে আস্তে আস্তে ভরাট হয়ে ছোট হয়ে গেছে নদীটি।

এ ব্যাপারে বালুভরাটকারী সেন্টু মিয়ার সাথে ফোন আলাপকালে তিনি জানান, এটা আমাদের পৈত্রিক সম্পত্তি। তাই বালু দিয়ে ভরাট করতেছি। আগে এখানে আমাদের পৈত্রিক জমি ছিল। এক সময় নদীতে ভেঙ্গে তা নদীগর্ভে বিলীন হয়। এখন চর পরেছে তাই আমরা আস্তে আস্তে বালু দিয়ে ভরাট করতেছি ।

সদর উপজেলা সহকারী কমিমনার (ভূমি) মো. সাইদুজ্জামান বলেন, আমরা একাধিকবার দখলদারদের বালু ভরাট করতে নিষেধ করেছি, বাধা দিয়েছি। নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে কেউ বালু ভরাট করছে এমন অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। বিষয়টি আমরা অবগত নই। তদন্ত করে এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: