১৪ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ২ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

ক্রোয়েশিয়াকে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে পর্তুগাল


ক্রোয়েশিয়াকে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে পর্তুগাল

অনলাইন ডেস্ক॥ ক্রোয়েশিয়াকে হারিয়ে ইউরো টুর্নামেন্টের কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে এসেছে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর পর্তুগাল। গতকাল শনিবার অতিরিক্ত সময়ের গোলে কষ্টার্জিত এই জয় নিশ্চিত করে পর্তুগাল। গোল মেশিন রোনালদোই দলের পক্ষে গোলের শেষ সুযোগটি সৃষ্টি করলেও সেটির মালিকানা লাভ করেছেন রিকার্ডো কারেসমা। অতিরিক্ত সময়ে গড়ানো ম্যাচের ১১৭তম মিনিটে রোনালদোর জোরালো শটে তৈরি হওয়া সুযোগ কাজে লাগিয়ে বল জালে পাঠিয়ে দেন পর্তুগালের এই বদলি খেলোয়াড়।

নির্ধারিত সময়ে কোন গোল আদায় করতে না পেরে অতিরিক্ত সময়েও গোল খরায় ভুগছিল দল দুটি। শেষ পর্যন্ত রিয়াল মাদ্রিদ তারকার তারকা দ্যুতিতেই নিষ্পত্তি হলো ম্যাচের ফলাফল। অন্যথায় টাইব্রেকারের মাধ্যমেই ফলাফল নির্ধারণ করা হতো। তবে সে পথে হাঁটতে হয়নি রোনালদো বাহিনীকে। ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে ১-০ গোলে জয় নিয়েই মাঠ ছেড়েছে তারা। এই জয়ের ফলে কোয়ার্টার ফাইনালে পোল্যান্ডের মোকাবেলা করবে পর্তুগাল। আগামী বৃহস্পতিবার মার্সেইয়ে অনুষ্ঠিত হবে ম্যাচটি।

খেলা শেষে অবশ্য হতাশা ব্যক্ত করে ক্রোয়েশিয়ার কোচ অন্টে ক্যারিক বলেন, ‘সেরা দল অনেক সময় জয়লাভ করতে পারে না। যেমনটি ঘটেছে আজকের ম্যাচে। এদিন অনুষ্ঠিত নক-আউট পর্বের অপর দুই ম্যাচে জয়লাভ করেছে পোল্যান্ড ও ওয়েলস। পোল্যান্ড টাইব্রেকারে সুইজারল্যান্ডকে এবং ওয়েলস গ্যারেথ মেকাউলির আত্মঘাতী গোলের সুবাদে ১-০ গোলে নর্দান আয়ারল্যান্ডকে হারিয়ে শেষ আটে জায়গা করে নিয়েছে।

লিনসে অনুষ্ঠিত ম্যাচের প্রথমার্ধে দুই দলের অতি মাত্রায় সতর্কতা অবলডম্বেনের কারণে ঝিমিয়ে পড়ে লড়াই। এ সময় একটি মাত্র গোলের সুযোগ পেয়েছিল পর্তুগাল। ২৫তম মিনিটে পর্তুগালের ডিফেন্ডার রাফায়েল গুয়েরেইরোর ফ্রি-কিকের বলটি যথাস্থানে পাঠাতে ব্যর্থ হন পেপে।

দ্বিতীয়ার্ধে দল দুটি আক্রমণের ধার কিছুটা বাড়িয়ে দিলেও গোল আদায়ের জন্য সেটি যথেষ্ট কার্যকর ছিলো না। এ সময় গোল আদায়ের সেরা সুযোগটি লাভ করেছির ক্রোয়েশিয়া। ৬১তম মিনিটে ইভান রাকিটিচের চমৎকার ক্রসের বলটিতে হেড করলেও সেটি যথা স্থানে পাঠাতে ব্যর্থ হন ডিফেন্ডার ভিদা। দুই মিনিট পর প্রতিপক্ষের সীমানায় বল পেলেও হতাশ করেন দেশের হয়ে শততম ম্যাচ খেলতে নামা নানি। এদিন শুরু থেকে নিজেকে খোলসবন্দী করে রাখা রোনালদো শেষ ভাগে এসে নিজেকে মেলে ধরতে শুরু করেন। অবশ্য রক্ষণভাগ আগলে রেখে সতর্ক থাকার কারণে নির্ধারিত সময়ের ৯০ মিনিটে কেবল দুই দলের কোনো খেলোয়াড়ই প্রতিপক্ষের গোলবারে জেড়ালো শট নিতে পারেননি। বড় কোন আসরে এটি ছিল নজিরবিহীন একটি ঘটনা।

অতিরিক্ত সময়ে এসে প্রাণ পেতে শুরু করে ম্যাচটি। দুই দলই এ সময় গোল আদায়ের জন্য মরিয়া হয়ে ওঠে। ম্যাচের ১১৩তম মিনিটে ব্যর্থ হয় ক্রোয়েশিয়ার আরেকটি প্রচেষ্টা। কর্নারে ভিদার হেডের বল ক্রসবারের ওপর দিয়ে বাইরে চলে যায়। দুই মিনিট পরেই মিডফিল্ডার ইভান পেরিসিচের প্রচেষ্টা নস্যাৎ করে দেয় পর্তুগালের রক্ষণ বিভাগ।

এর পরেই প্রতি-আক্রমণ থেকে জয়সূচক গোলটি আদায় করতে সক্ষম হয় পর্তুগাল। নানির পাসের বল পেয়ে ডান দিক থেকে রোনালদোর নেওয়া শট কোনোমতে পা দিয়ে ঠেকান ক্রোয়েশিয় গোলরক্ষক। কিন্তু বিপদমুক্ত করতে পারেননি। ফিরতি বলটি হেডে জালে জড়ান কারেসমা।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: