২১ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

পুঁজিবাজারে লেনদেন কমেছে ১৫ শতাংশ


অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ ব্রেক্সিটের পর যেখানে সারাবিশ্বের শেয়ার বাজার টালমাটাল অবস্থায় রয়েছে সেখানে দেশের পুঁজিবাজারে কিছুটা হলেও স্বস্তির পরিবেশ দেখা গেছে। ঈদ উল ফিতরের ছুটির ঠিক এক সপ্তাহ আগে প্রধান পুঁজিবাজারে বেশিরভাগ কোম্পানির দর কমায় সূচক কিছুটা কমলেও লেনদেন কমেছে। তবে সেখানকার শরীয়াহ ও বাছাই দুটি সূচকই কিছুটা বেড়েছে। কিন্তু ঢাকা স্টক একচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেন তলানিতে নেমে গেছে। ডিএসইতে ২৬৫ কোটি ৭৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে; যা আগের দিনের তুলনায় প্রায় ৪৫ কোটি টাকা বা ১৫ শতাংশ কম। বৃহস্পতিবার ডিএসইতে ৩১১ কোটি ৬০ লাখ টাকার লেনদেন হয়েছিল।

রবিবার ডিএসইতে মোট লেনদেনে অংশ নেয় ৩২০টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৮১টির, কমেছে ১৯৩টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৬টির শেয়ার দর।

সকালে দরপতন দিয়ে শুরুর পরে ডিএসইএক্স বা প্রধান মূল্য সূচক ১ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৪ হাজার ৩৮০ পয়েন্টে। ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ১ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৮০ পয়েন্টে। আর ডিএস৩০ সূচক দশমিক ৩৭ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে এক হাজার ৭১৪ পয়েন্টে।

আইডিএলসি ইনভেস্টমেন্টের প্রতিদিনের বাজার পর্যালোচনায় বলা হয়েছে, ব্রেক্সিটের প্রভাবে সারাবিশ্বের পুঁজিবাজারেই গত দুইদিনে বড় ধরনের সূচকের পতন ঘটেছে। তবে বৃহস্পতিবারে গণভোটের পর ডিএসইতে প্রথম লেনদেন হয়েছে রবিবারই। ফলে শুরুতে বিনিয়োগকারীদের মাঝে কিছুটা হতাশা দেখা দিলেও দুপুরের দিকে পরিস্থিতি কিছুটা পাল্টাতে থাকে। দিনশেষে সূচক মাত্র ১ পয়েন্ট কমে যায়। তবে দিনটিতে গত ২৮ কার্যদিবসের সর্বনিম্ন ২৭০ কোটি টাকা লেনদেনের ঘটনা ঘটেছে। রবিবারে মোট লেনদেনের ২৫ শতাংশ দখল করেছে ওষুধ এবং রসায়ন খাত এবং প্রকৌশল খাতটি ১৬.৭০ ভাগ দখল করেছে। সার্বিকভাবে বীমা খাতটির ১.৭০ শতাংশ দরবৃদ্ধি ঘটেছে।

ডিএসইর লেনদেনের সেরা কোম্পানিগুলো হলো : অলিম্পিক এক্সেসরিজ, একমি ল্যাবরেটরিজ, আমান ফিড, ন্যাশনাল ফিড মিলস লিমিটেড, রেনেটা, স্কয়ার ফার্মা, ইবনে সিনা, বাংলাদেশ বিল্ডিং সিস্টেম, ইসলামী ব্যাংক ও ওরিয়ন ইনফিউশন।

অন্যদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই) সূচকের মিশ্রাবস্থায় লেনদেন শেষ হয়েছে। সিএসইতে ৭৯ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

সিএসই সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ২৬ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৩ হাজার ৪৩৪ পয়েন্টে। সিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ২৪৪টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৬২টির, কমেছে ১৫১টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩১টির।