১২ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ব্রিটেনের বিদায় বড় ধাক্কা স্বীকারোক্তি মেরকেলের


ব্রিটিশ অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক ইউনিয়নে ব্রেক্সিটের (ব্রিটেনের ইউরোপীয় ইউনিয়ন ত্যাগ) অর্থ কী হতে পারেÑ এ বিষয়ে যেমন জল্পনা চলছে, তেমনি ইউরোপে সমানভাবে জরুরী একটি আলোচনা চলছে যে, ব্রিটেনের ইইউ ত্যাগের সিদ্ধান্ত ব্লকের জন্য কী ভবিষ্যদ্বাণী করছে। ইউরোপের সবচেয়ে ক্ষমতাধর নেতা জার্মান চ্যান্সেলর এ্যাঞ্জেলা মেরকেল এ পরিস্থিতির গুরুত্বকে এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা না করে অকপটে স্বীকার করেছেন যে, বিশ্বের পঞ্চম বৃহত্তম অর্থনীতি এবং ন্যাটোর গুরুত্বপূর্ণ সদস্য যুক্তরাজ্যের প্রস্থান ইউরোপীয় একত্রীকরণ প্রক্রিয়ার জন্য একটি বড় ধাক্কা, যা উপেক্ষা করা যাবে না। খবর বিবিসি ও টেলিগ্রাফের।

পাশাপাশি মেরকেল বলেছেন, ইইউ থেকে যুক্তরাজ্যের বেরিয়ে যাওয়া নিয়ে আলোচনাকে নোংরা বানানোর কোন দরকার নেই। জার্মানির রাজধানী বার্লিনে শনিবার ইইউর প্রতিষ্ঠাতা সদস্য দেশগুলোর পররাষ্ট্র মন্ত্রীদের বৈঠকের পর এ কথা বলেন মেরকেল। ইইউর সঙ্গে বিচ্ছেদের পক্ষে ব্রিটিশ নাগরিকদের রায়ের পর নিজেদের করণীয় ঠিক করতে বার্লিনে জার্মানিসহ জোটের ছয় দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রীদের জরুরী বৈঠক হয়। বৈঠক থেকে যুক্তরাজ্যকে বিচ্ছেদের প্রক্রিয়া দ্রুত শুরু করতে বলা হয়। ব্রিটেনের বিচ্ছেদ নিয়ে আলোচনার চেয়েও ইউরোপের জন্য একটি বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে যে, গত সপ্তাহে ব্রিটিশ জনগণ গণতান্ত্রিক উপায়ে যে জবাব দিয়েছে তার অর্থপূর্ণ সাড়া দেবে কিভাবে ইউরোপ। কারণ সম্প্রতি করা কয়েকটি জরিপে দেখা গেছে, ব্রিটেনের সমৃদ্ধি ও গণতান্ত্রিক জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে ইউরোপের ব্যর্থতা নিয়ে হতাশা শুধু কিছু মানুষের মধ্যে নয়, ব্রিটেনের অনেক মানুষের মধ্যেই রয়েছে। তাই ইউরোপ এখন বিরক্ত ও ক্ষুব্ধ। ইউরোপীয় নেতারা জানেন, বৈশ্বিক অর্থনৈতিক সঙ্কটের কারণে সৃষ্ট বিভাজন দূর করতে তাদের আরও অনেক কিছু করতে হবে। এ সঙ্কটের কারণে এক সময়ের স্বল্প ও মাঝারি দক্ষতাসম্পন্ন অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ শ্রমিকরা শোচনীয় অবস্থার মধ্যে পড়েছে। ফরাসী পররাষ্ট্রমন্ত্রী জ্যঁ মার্ক আয়রায়ুলত রবিবার বলেছেন, এখন প্রধান বিষয় হলো, জনগণের জন্য ইউরোপকে অবশ্যই আরও সুুনির্দিষ্ট ও আকর্ষণীয় করে গড়ে তুলতে হবে। অনেক দিন ধরেই আমরা এ বিষয়ে অবগত যে, আমাদের ইউরোপকে অবশ্যই আরও আকর্ষণীয় করে তুলতে হবে।