১২ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

কোপার ফাইনাল: আর্জেন্টিনা-চিলি মুখোমুখি


কোপার ফাইনাল: আর্জেন্টিনা-চিলি মুখোমুখি

অনলাইন ডেস্ক ॥ অপেক্ষার পালা দুই দশকের বেশি। দীর্ঘ ২৩ বছর কোনো শিরোপা দেখেনি আর্জেন্টিনা নামের সব সময়ের ফেভারিট দলটি। ব্যাপারটি অবাক করলেও বাস্তবতা বলছে তাই। টানা দুই বছর দুটি ফাইনালে গিয়ে থেকেছে ট্রফি বঞ্চিত। তবে এবার কোপা আমেরিকার শতবর্ষী আসরের ফাইনালে সবচেয়ে নির্ভার থেকেই মাঠে নামবে আলবেসেলিস্তারা।

এবারের ফাইনালটি অবশ্য জেরার্ডো মার্টিনোর শিষ্যদের গতবারের ফাইনালের পুনরাবৃত্তিই। কারণ প্রতিপক্ষ যে ২০১৫ সালে ঘরের মাঠে আর্জেন্টিনাকে হারিয়ে প্রথমবার চ্যাম্পিয়নের মুকুট পড়া চিলি। এবারের ফাইনালটিকে আর্জেন্টিনার প্রতিশোধের ম্যাচ বললেও কম হবে না। কারণ গতবার টাইব্রেকারে মেসিদের এক রকম কাঁদিয়েই শিরোপা উৎসব করেছিল চিলিয়ানরা। তবে, এবারের আসরে গ্রুপপর্বে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে কোপার মিশন শুরু করেছিল ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা।

সোমবার (২৭ জুন) নিউ জার্সির মেটলাইফ স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হবে আর্জেন্টিনা ও চিলি। বাংলাদেশ সময় ভোর ৬টায় শিরোপা লড়াইয়ে বলে আঘাত করবে দু’দলের ফুটবলাররা।

আর্জেন্টিনা সর্বশেষ কোপা শিরোপা জিতেছিল ১৯৯৩ সালে। সেবার মেক্সিকোকে ২-১ গোলে হারিয়ে দক্ষিণ আমেরিকার শ্রেষ্ঠত্বের প্রমাণ করে নীল-সাদা জার্সিধারীরা। কিন্তু এরপর আরও মেজর দুটি ফাইনাল খেললেও খালি হাতেই ফিরতে হয় ১৪ বারের কোপা চ্যাম্পিয়নদের।

অন্যদিকে ১৯১৬ সালে শুরু হওয়া আসরের প্রথম দিকে খারাপ সময়ই কেটেছিল চিলির। তবে পরবর্তীতে ১৯৫৫, ১৯৫৬, ১৯৭৯ ও ১৯৮৭ সালে ফাইনালে ওঠার যোগ্যতা অর্জন করে দলটি। আর সর্বশেষ গতবার সেই অপেক্ষার অবসান ঘটে। তাও আবার আর্জেন্টিনার মতো শক্তিশালী দলকে হারিয়ে। তাই এবার দলটির সামনে থাকছে টানা দ্বিতীয় শিরোপা উদযাপন করার হাতছানি।

এদিকে এবারের আর্জেন্টিনাকে কিন্তু সবচেয়ে নির্ভারই মনে হচ্ছে। কারণ পুরো টুর্নামেন্ট জুড়ে ফিফা ৠাংকিংয়ের এক নম্বর দলটি ছিল দুর্দান্ত। আসরে প্রথম ম্যাচেই চিলিকে হারিয়ে শুরু করে তারা। টুর্নামেন্টে এখন পর্যন্ত মেসি-হিগুয়েন-আগুয়েরোরা দিয়েছেন মোট ১৮টি গোল। যা কোপা ইতিহাসে রেকর্ডও। বিপরীতে হজম করেছে মাত্র দুটি।

ফর্মে রয়েছেন খোদ অধিনায়ক লিওনেল মেসি। গ্রুপপর্বে পানামার বিপক্ষে হ্যাটট্রিকের পর সব মিলিয়ে গোল করেছেন দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পাঁচটি। নিয়মিত গোল পাচ্ছেন স্ট্রাইকার হিগুয়েনসহ অন্যরা। তাই ফাইনালে এক পেশেই জিতে ট্রফির স্বাদ পেতে পারে আর্জেন্টাইনরা।

আর্জেন্টিনার হয়ে ফাইনালে খেলতে পারবেন না স্ট্রাইকার ইজিকুয়েল লাভেজ্জি। সেমিফাইনালে যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে গুরুতর ইনজুরিতে পড়েন তিনি। তবে ইনজুরি কাটিয়ে ফেরার সম্ভাবনা রয়েছে মিডফিল্ডার অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়ার। অন্যদিকে চিলি মিডফিল্ডার মার্সেলো ডিয়াজও এ ম্যাচে ফিরতে পারেন।

দু’দল এখন পর্যন্ত মোট ৮৭বার মুখোমুখি হয়েছে। যেখানে সাফল্যের সিংহভাগই আর্জেন্টিনা ঘরে। ৫৭ জয়ের বিপরীতে আলবেসেলিস্তারা হেরেছে মাত্র সাতটিতে। বাকি ২৪টি ম্যাচ ড্র হয়। গত পাঁচবারের দেখাতেও আর্জেন্টিনা তিন জয়ের বিপরীতে একটি ম্যাচ হেরেছে। বাকি ম্যাচটি ড্র হয়।