মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৬ আশ্বিন ১৪২৪, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

কক্সবাজারে হাইকোর্টের আদেশ উপেক্ষা, স্থানীয় এমপি বিদ্যালয়ের সভাপতি

প্রকাশিত : ২৬ জুন ২০১৬, ০৬:৪১ পি. এম.

স্টাফ রিপোর্টার, কক্সবাজার ॥ হাইকোর্টের নির্দেশ অমান্য করে রামু উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ে সংসদ সদস্যকে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি করা হয়েছে। রবিবার (২৬ জুন) সকাল ১১ টায় বিদ্যালয়টির ম্যানেজিং কমিটির প্রথম সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। ম্যানেজিং কমিটির একাধিক সদস্যের আপত্তি থাকা সত্ত্বেও এ ধরণের বিধিবহির্ভূত সিদ্ধান্তে আলোচনা-সমালোচনার ঝড় উঠেছে জেলা জুড়ে। বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির অভিভাবক সদস্য ও রামু উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শামসুল আলম মন্ডল বলেন, তিনি হাইকোর্টের নির্দেশনার কথা তুলে ধরলে সভায় উপস্থিত কয়েকজন অভিভাবক ও শিক্ষক প্রতিনিধি তা গুরুত্ব না দিয়ে রামু-কক্সবাজার আসনের সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমলকে সভাপতি করার পক্ষে মত দেন। এক পর্যায়ে প্রিসাইডিং অফিসার উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মো. আতিক উল্লাহও সাংসদ কমলকে সভাপতি করার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেন। এতে ম্যানেজিং কমিটির কয়েকজন সদস্য মহামান্য হাইকোর্টের নির্দেশনা অমান্য করে সিদ্ধান্ত নেয়ায় ক্ষুব্দ হয়ে সভা বর্জন করে চলে আসেন।

উল্লেখ্য গত ১ জুন হাইকোর্টের দেয়া নির্দেশনা অনুযায়ি বেসরকারি মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের (কলেজ ও স্কুল) ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি হতে পারবেন না স্থানীয় সংসদ সদস্যরা। এমপিদের ইচ্ছামতো বেসরকারি কলেজ বা স্কুলের ব্যবস্থা কমিটির সভাপতি হওয়ার বিধান বাতিল ও অবৈধ বলে ওইদিন রায় দিয়েছেন হাইকোর্ট। এ-সংক্রান্ত প্রবিধানমালা ২০০৯-এর ৫(২) ও ৫০ ধারা বাতিল করা হয়েছে। তবে যেসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সভাপতি পদে এমপিরা এখনও রয়েছেন, তাঁরা কমিটির মেয়াদ পূর্ণ হওয়া পর্যন্ত থাকতে পারবেন। তবে সংসদ সদস্যকে সভাপতি করে নতুন কোনো ব্যবস্থাপনা কমিটি আর অনুমোদন দেবে না শিক্ষা বোর্ড। একই সঙ্গে বেসরকারি এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বিশেষ কমিটিও গঠন করা যাবে না। বিচারপতি জিনাত আরা ও বিচারপতি একেএম জহিরুল হকের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় দেন। সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবী ইউনুস আলী আকন্দের দায়ের করা এক রিট আবেদনের রায়ে এসব আদেশ দেয়া হয়।

প্রকাশিত : ২৬ জুন ২০১৬, ০৬:৪১ পি. এম.

২৬/০৬/২০১৬ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



শীর্ষ সংবাদ: