১৫ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

নওগাঁর মান্দায় লাখ টাকার তাজা গাছ মাত্র ১২ হাজারে নিলাম! এলাকায় তোলপাড়


নওগাঁর মান্দায় লাখ টাকার তাজা গাছ মাত্র ১২ হাজারে নিলাম! এলাকায় তোলপাড়

নিজস্ব সংবাদদাতা, নওগাঁ ॥ নওগাঁ-রাজশাহী মহাসড়কের জয়বাংলা এলাকায় লক্ষাধিক টাকা মূল্যের ২৫টি আম ও তরতাজা শিশুর গাছ নিলাম দেয়া হয়েছে মাত্র ১২ হাজার ৭শ’ টাকায়? ওই এলাকায় সম্পূর্ণ ব্যক্তিগত নবনির্মিত মেসার্স হাজী ফিলিংস্টেশনে যাতায়াতের রাস্তা তৈরির জন্য গাছগুলো নিলাম দেয় মান্দার বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিএমডিএ)। গাছগুলোর নিলামও পেয়েছে ওই ফিলিং স্টেশন কর্তৃপক্ষ। প্রচার-প্রচারণা ছাড়াই সম্পূর্ণ গোপনে এ নিলাম দেয়া হয়েছে বলে স্থানীয়দের অভিযোগ। রবিবার সকাল থেকে ডাককারী শ্রমিক লাগিয়ে গাছগুলো কাটা শুরু করেন। এতে এলাকাবাসির মাঝে চরম তোলপাড় শুরু হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, নবনির্মিত হাজী ফিলিং স্ট্রেশনে যাতায়াতের রাস্তায় বড় বাধা ছিল মহাসড়কে লাগানো এসব মূল্যবান আম ও শিশু গাছগুলো। তাই গাছগুলো সরানোর জন্য চক্রান্ত শুরু করে ফিলিং স্টেশন কর্তৃপক্ষ। ব্যর্থ হয়ে তা নিলাম দেয়ার জন্য মান্দা উপজেলার কালীসফা গ্রামের অলক কুমার রাজশাহী বিএমডিএ অফিসে আবেদন করেন।

মান্দা বিএমডিএর সহকারী প্রকৌশলী মাহফুজুর রহমান জানান, উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে গাছগুলো নিলাম দেয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। তবে মূল্য কমের বিষয়ে তিনি বলেন, স্থানীয় বনবিভাগের কর্মকর্তা গাছগুলোর মূল্য ১২ হাজার নির্ধারণ করে দিয়েছে। সেই মূল্যের ৭শ’ টাকা বেশিতে তা নিলাম দেয়া হয়।

উপজেলা বন কর্মকর্তা মাহবুব আলম জানান, ২৫টি নয়, তিনি মাত্র ৩টি গাছের মূল্য নির্ধারণ করে দিয়েছেন। অতিরিক্ত গাছ কাটা হলে সেটির দায়ভার বিএমডির, আমার নয়। এমতাবস্থায় বিএমডিএ কর্তৃপক্ষ ও বনবিভাগ কর্মকর্তার দু’ধরনের বক্তব্যে নিলামের স্বচ্ছতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন স্থানীয়রা। এছাড়া বৃক্ষ নিধন পরিবেশের জন্য মারাত্মক ক্ষতি তথা জনস্বার্থকে গুরুত্ব না দিয়ে ব্যক্তিস্বার্থকে প্রাধান্য দিয়ে সরকারী তরতাজা গাছ নিধন করায় এটি বরেন্দ্র কর্তৃপক্ষের আরেক দুর্ণীতি বলে স্থানীয়রা বলাবলি করছেন।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: