১৮ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

উত্তর কোরিয়ার নেতা কিমের সঙ্গে ‘বসতে চান’ ট্রাম্প


উত্তর কোরিয়ার নেতা কিমের সঙ্গে ‘বসতে চান’ ট্রাম্প

অনলাইন ডেস্ক॥ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আসন্ন নির্বাচনে রিপাবলিকান দলের সম্ভাব্য প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প জানিয়েছেন, তিনি পিয়ং ইয়ং-য়ের পরমাণু কর্মসূচি নিয়ে আলোচনা করতে দেশটির শীর্ষ নেতা কিম জং উনের সঙ্গে বসতে চান।

মঙ্গলবার বার্তা সংস্থা রয়টার্সের সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে দলের মনোনয়ন দৌড়ে টিকে থাকা একমাত্র প্রার্থী ট্রাম্প এ ইচ্ছার কথা জানিয়েছেন।

উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে তার ‘সরকারের’ সম্পর্ক কীভাবে নির্ধারিত হবে সে বিষয়ে ‘পূর্ণাঙ্গ পরিকল্পনা’ দিতে অস্বীকৃতি জানালেও দেশটির নেতা কিমের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, “আমি তার সঙ্গে কথা বলতে চাই। তার সঙ্গে কথা বলতে আমার কোন সমস্যা নেই।”

চীন, উত্তর কোরিয়ার একমাত্র ‘অর্থনৈতিক ও কূটনৈতিক বন্ধু’ হওয়ায় পিয়ং ইয়ং-এর পরমাণু কর্মসূচির আলোচনায় চীনকেও অন্তর্ভূক্তির আগ্রহ দেখিয়েছেন তিনি।

“আমরা চীনকে বড় ধরনের চাপ দিতে পারি, কারণ অর্থনৈতিকভাবে তাদের উপর ক্ষমতা খাটানোর সুযোগ আমাদের আছে।”

ট্রাম্পের এ বক্তব্যের ব্যাপারে জাতিসংঘে থাকা উত্তর কোরিয়ার প্রতিনিধি দলের কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

আধঘণ্টার এ সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প একইসঙ্গে প্যারিস জলবায়ু সম্মেলন নিয়ে তার আপত্তির কথা জানিয়েছেন, যে চুক্তিতে যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বের ১৭০টি দেশকে কার্বন নিঃসরণ কমাতে বলা হয়েছে।

ট্রাম্পের মতে, এ চুক্তি যুক্তরাষ্ট্রকে ‘সমস্যায়’ ফেলবে আর চীনকে ‘বেশি সুবিধা’ দেবে।

সেন্ট্রাল পার্কে নিজের ‘প্রাসাদোপম’ ট্রাম্প টাওয়ার অফিসের ২৬ তলায় দেয়া সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গেও আলোচনা করার আগ্রহ দেখিয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান দলীয় সম্ভাব্য প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প। ছবি: রয়টার্স

তাকে নিয়ে করা মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ দিলেও উত্তর ইউক্রেন নিয়ে পুতিনের অবস্থান যে তিনি সমর্থন করেন না তাও জানিয়েছেন।

“ব্যাপার হচ্ছে, আমাকে নিয়ে তার (পুতিন) করা সুন্দর মন্তব্য দর কষাকষির টেবিলে তাকে কোন বাড়তি সুবিধা দেবে না।”, বলেন ট্রাম্প।

যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনের সঙ্গে ‘ভালো সম্পর্ক’ গড়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন ৬৯ বছর বয়সী এই ধনকুবের।

“ক্যামেরনের অনেক ধরনের সমস্যা আছে। তবে আমি নিশ্চিত তার সঙ্গে আমার ভালো সম্পর্ক থাকবে।”

এর আগে গেল সপ্তায় অন্য এক মন্তব্যে ট্রাম্প বলেছিলেন, “যুক্তরাজ্যের সঙ্গে আর বেশিদিন মনে হয় আমাদের ভালো সম্পর্ক থাকবে না।”

উত্তর কোরিয়ার শীর্ষনেতা কিম জং উন। ছবি: রয়টার্স

ট্রাম্পের ‘বিদেশনীতি’ বিষয়ক এ ধরনের বক্তব্যের কড়া প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমক্রেট দলের এগিয়ে থাকা মনোনয়ন প্রত্যাশী হিলারি ক্লিনটনের শিবির।

হিলারির জ্যেষ্ঠ পররাষ্ট্র বিষয়ক উপদেষ্টা জ্যাক সুলিভান এক বিবৃতিতে ট্রাম্পের এ ধরনের নীতিকে ‘কাণ্ডজ্ঞানহীন’ বলে অভিহিত করেছেন।

“ডোনাল্ড ট্রাম্প আমাদের সবচেয়ে কাছের মিত্রদেশের নেতাকে (ডেভিড ক্যামেরন) অপমান করেছেন এবং তারপর বলছেন যে তিনি কিমের সঙ্গে আলোচনা করতে চান? কিম ও পুতিনের সঙ্গে আলোচনার ক্ষেত্রে তার (ট্রাম্পের) মোহ আছে বলে টের পাওয়া যাচ্ছে। কিন্তু বিদেশনীতির এ ধরনের অভিমুখ আমাদের কারও জন্যই উপকার বয়ে আনবে না।”

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: