মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৫ আশ্বিন ১৪২৪, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

হাত-পা বেঁধে ১১ বছরের শিশুকে ধর্ষণ, ভিডিওচিত্র ধারণ

প্রকাশিত : ১৮ মে ২০১৬

নিজস্ব সংবাদদাতা, নারায়ণগঞ্জ, ১৭ মে ॥ সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি পূর্বপাড়া এলাকায় হাতÑপা বেঁধে ১১ বছরের এক শিশুকে ধর্র্ষণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ধর্ষণকারী ধর্ষণের ঘটনাটি ভিডিওচিত্র ধারণ করে রাখে। এ ঘটনায় পুলিশ মঙ্গলবার বিকেলে বাড়িওয়ালা আলাউদ্দিন ও ভাড়াটিয়া ধর্ষক টিটুর স্ত্রী মুন্নিকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। রাত সাড়ে ৮টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় মামলা হয়নি।

ধর্ষণের শিকার ঔই শিশুর পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ৮-১০ দিন আগে ঐ শিশুটি তার বড় বোনের মিজমিজি পূর্বপাড়ার আলাউদ্দিন মিয়ার ভাড়াটিয়া বাড়িতে বেড়াতে আসে। একই বাড়ির ভাড়াটিয়া টিটু ১১ মে বুধবার বাসায় ১১ বছরের শিশুকে একা পেয়ে হাত-পা ও মুখ বেঁধে ধর্ষণ করে। পরে ধর্ষণের ঘটনাটি ভিডিওচিত্র ধারণ করে রাখে। পরে টিটু ঐ ভিডিওচিত্র দেখিয়ে ওই শিশুকে আরো কয়েকবার ধর্ষণ করে। বিষয়টি বাড়িওয়ালা আলাউদ্দিনকে ওই শিশুর বোন জানালে আলাউদ্দিন দেখবে বলে তাদেরকে জানায়। পরে ১৫ মে রবিবার বাড়িওয়ালা আলাউদ্দিন শিশুকে বাসায় একা পেয়ে ধর্ষণ করে। এরপর থেকে শিশুটি ভয়ে ফতুল্লা মামুদপুরের ফুফুর বাড়িতে চলে যায়। মঙ্গলবার আবারও সে মিজমিজির বাসায় আসলে টিটু ধর্ষণের ভিডিও চিত্র দেখিয়ে পুনরায় তাকে ধর্ষণ করতে তাদের ঘরে ঢুকলে কৌশলে শিশুর বোন বাইরে থেকে ঘরের দরজা আটকিয়ে দেয়। পরে ধর্ষণকারী টিটুর স্ত্রী মুন্নি তার স্বামী টিটুকে ঘরের দরজা ভেঙ্গে পালিয়ে যেতে সহায়তা করে। পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ এসে মঙ্গলবার বিকেলে বাড়িওয়ালা আলাউদ্দিন ও তার ভাড়াটিয়া টিটুর স্ত্রী মুন্নিকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আকিকুজ্জামান ঘটনাটি স্বীকার করে জানান, ১১ বছরের শিশুটি ধর্ষণের বিষয়টি পুলিশের কাছে বর্ণনা করেছে । এ সময় ধর্ষণের ঘটনাটি ভিডিওচিত্র ধারণ করেছে বলেও পুলিশকে জানায়। ভিডিওচিত্রটি টিটুর মোবাইল ফোনে রয়েছে। টিটু পলাতক থাকায় ঔ ভিডিওচিত্রটি উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। এ ঘটনায় বাড়ি মালিক আলাউদ্দিন ও টিটুর স্ত্রী মুন্নিকে আটক করে থানায় আনা হয়েছে। মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

প্রকাশিত : ১৮ মে ২০১৬

১৮/০৫/২০১৬ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



শীর্ষ সংবাদ: