২০ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

কোপা জিতে কিংবদন্তি হবেন মেসি!


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ জাতীয় দল আর্জেন্টিনার জার্সি গায়ে বারবার বেদনায় ভারাক্রান্ত হতে হয়েছে লিওনেল মেসিকে। ২০১৪ ব্রাজিল বিশ্বকাপ ও ২০১৫ কোপা আমেরিকায় তীরে এসে তরী ডোবে মেসির দলের। দু’টি আসরেই ফাইনালে হেরে কান্নার সাগরে ডুবতে হয় দিয়াগো ম্যারাডোনার উত্তরসূরিদের। এবার আরও একবার দীর্ঘ প্রায় দুইযুগের শিরোপা বন্ধ্যাত্ব ঘোচানোর সুযোগ পাচ্ছে আর্জেন্টিনা।

আগামী মাসে শতবর্ষী কোপা আমেরিকা ফুটবলে আর্জেন্টিনা মিশন শুরু করবে কাক্সিক্ষত শিরোপার লক্ষ্যেই। আর ট্রফি জিতে মেসি কিংবদন্তি হবেন বলেই বিশ্বাস আর্জেন্টিনার সাবেক তারকা জুয়ান রোমান রিকুয়েলমের। রিকুয়েলমের বিশ্বাস যুক্তরাষ্ট্রে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া আসরে অধিনায়ক মেসি শতভাগ সুস্থ থাকলে শিরোপা উৎসব করবে আলবেসেলিস্তারা। সদ্য শেষ হওয়া ২০১৫-১৬ মৌসুমের শুরু থেকেই হাঁটুর ইনজুরিতে ভুগছিলেন বার্সিলোনা সুপারস্টার। যে কারণে প্রায় দুই মাস মাঠের বাইরে থাকতে হয় পাঁচবারের ফিফা সেরা তারকাকে। অবশ্য ইনজুরি কাটিয়ে দাপটের সঙ্গে মাঠে ফেরেন তিনি। লা লিগায় বার্সিলোনার টানা দ্বিতীয় শিরোপা জয়ে রাখেন গুরুত্বপূর্ণ অবদান।

আর্জেন্টিনা কিংবা বার্সিলোনা সবখানেই যে মেসি দলের প্রাণ সেটি প্রমাণ হয়েছে বারবার। আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচে মেসির অনুপস্থিতিতে চার ম্যাচের একটিতে জয় পায় জেরার্ডো মার্টিনোর দল। তবে মেসি ইনজুরি থেকে ফিরলে চিলি ও বলিভিয়ার বিরুদ্ধে দারুণ জয় তুলে নেয় আর্জেন্টিনা। রিকুয়েলমে মনে করেন কোপার বিশেষ আসরে মেসি ম্যাজিকে ট্রফিতে চুমু খাবে আর্জেন্টিনা। এক সাক্ষাতকারে রিকুয়েলমে বলেন, কোপার এবারের আসর নিয়ে আমি খুব আশাবাদী। এই শিরোপার পথে আর্জেন্টিনা খুবই কাছে। আমাদের বেশ কয়েকজন ভাল ফুটবলার আছে। আর মেসিও ফর্মে আছে।

তিনি আরও বলেন, মেসি যদি ইনজুরিতে না থাকে তবে আমাদের শিরোপা জয় করা খুবই সহজ হবে। আগের দু’টি ফাইনালে আর্জেন্টিনা কেন পারেনি, সেটার উত্তরও দিয়েছেন সাবেক এই এ্যাটাকিং মিডফিল্ডার। বলেন, গত দুটি বড় ফাইনালেই আর্জেন্টিনা মেসির ওপর এতটা বোঝা চাপিয়ে দিয়েছিল, মেসি নিজের খেলাটাই খেলতে পারেননি। এই নির্ভরতা কমানোর পরামর্শ দিয়ে রিকুয়েলমে বলেন, কেন আমরা কিছু জিতিনি? কারণ আমরা একা মেসির কাছ থেকেই সবকিছু চেয়েছিলাম। কিন্তু আমাদের উচিত ওর যতœ নেয়া। মেসি একজনই, ওর মতো আর কেউ কখনও আসবে না।

এমনিতেই আগের দুইবার দেশের হয়ে তীরে এসে তরী ডুবিয়েছেন। এবার আবার অলিম্পিক গেমসে খেলতে পারছেন না। যে কারণে মেসি মুখিয়ে আছেন কোপা কাপ জিততে। আর এই মিশনে গত আসরের ফাইনালে হারের প্রতিশোধ নেয়ারও সুযোগ পাচ্ছেন মেসিরা। কেননা এবারের কোপার গ্রুপ পর্বেই মুখোমুখি হচ্ছে চিলি ও আর্জেন্টিনা। ২০১৫ সালে কোপা আমেরিকা শিরোপা জিতে বিশ্বকাপ জিততে না পারার কষ্ট ভুলতে চেয়েছিল আর্জেন্টিনা। দুর্দান্ত নৈপুণ্য দেখিয়ে চলেও গিয়েছিল ফাইনাল পর্যন্ত। কিন্তু শিরোপা জয়ের অন্তিম লড়াইয়ে টাইব্রেকারে চিলির কাছে হেরে হতাশ হতে হয়েছিল মেসিদের। সেই হারের প্রতিশোধ নেয়ার সুযোগটা এক বছরের মধ্যেই পাচ্ছে আর্জেন্টিনা।

১৯১৬ সালে আার্জেন্টিনায় শুরু হয় দক্ষিণ আমেরিকান ফুটবল শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই কোপা আমেরিকা। চলমান ২০১৬ সালে ১০০ বছর পূর্ণ করতে যাচ্ছে ফুটবলের সবচেয়ে প্রাচীন এই আন্তর্জাতিক আসর। ১০০ বছর পূর্তিকে স্মরণীয় করে রাখার জন্য ১৬ দলের অংশগ্রহণে কোপা আমেরিকার বিশেষ এই আসর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রে। বিশেষ আসরের ড্রতে ‘ডি’ গ্রুপে আর্জেন্টিনার সঙ্গী হয়েছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন চিলি। গ্রুপের অপর দুইটি দল বলিভিয়া ও পানামা। দক্ষিণ আমেরিকান ফুটবলের আরেক পরাশক্তি ব্রাজিলকে গ্রুপ পর্বে খেলতে হবে ইকুয়েডর, পেরু ও হাইতির বিরুদ্ধে। স্বাগতিক যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ‘এ’ গ্রুপে আছে কলম্বিয়া, কোস্টারিকা ও প্যারাগুয়ে। এই গ্রুপটিকেই বিবেচনা করা হচ্ছে কোপা আমেরিকার মৃত্যুকূপ হিসেবে। ‘সি’ গ্রুপে আছে উরুগুয়ে, মেক্সিকো, ভেনেজুয়েলা ও জ্যামাইকা। ড্রর পর আর্জেন্টাইন কোচ জেরার্ডো মার্টিনো বলেন, আবারও আমি চিলির মুখোমুখি হতে চাইব। তবে ফাইনালের থেকে ফলটা এবার ভিন্ন হতে হবে।

আগামী ৩ জুন স্বাগতিক যুক্তরাষ্ট্র ও কলম্বিয়ার ম্যাচ দিয়ে পর্দা উঠবে কোপা আমেরিকার। ২৬ জুন নিউজার্সির মেটলাইফ স্টেডিয়ামে হবে কাক্সিক্ষত ফাইনাল মহারণ।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: